ট্র্যায়াম্ফ মোটর সাইকেলস্ ২০২০ সালে বাজারে আনতে চলেছে ট্র্যায়াম্ফ রকেট ৩-এর দুটি নতুন ভার্সন। একটি ভার্সন রকেট ৩ আর দৈনন্দিন ব্যাবহারের জন্য, অপরদিকে রকেট ৩ জিটি অ্যাডভেঞ্চার প্রিয় মানুষদের লম্বা ট্যুরের উদ্দেশ্যে।

কোম্পানির তরফে জানানো হয়েছে বাইকটির ফ্যাক্টরি কাস্টম ভার্সন সম্পূর্ণ বিক্রি হয়ে গিয়েছে এবং নর্মাল ভার্সনটি তাঁরা ২০২০ শুরুর দিকেই ভারতে লঞ্চ করতে চলেছে।

বাইকের দু’টি ভার্সনেই থাকছে ২,৪৫৮ সিসির নতুন ইঞ্জিন।এ ছাড়াও থাকছে ডিওএইচসি ইঞ্জিন ১৬৫ বিএইচপি ও ৬০০০ আরপিএম ক্ষমতাসম্পন্ন যা মাত্র ৪০০০ আরপিএমেই ২২১ এনএম টর্ক উৎপন্ন করতে সক্ষম। ইঞ্জিনের মধ্যে বেশকিছু পরিবর্তন এনেছে নির্মাণকারী সংস্থা। ইঞ্জিনে থাকছে নতুন ক্র্যাঙ্ককেস, ব্যালেন্সার স্যাফটস্। এ ছাড়াও বাইকটিতে থাকছে সিক্স-স্পিড ট্রান্সমিশন এবং হাইড্রোলিক ক্ল্যাচ।

আরও পড়ুন: স্যামসাং-এর গ্যালাক্সি সিরিজে আসছে বড়সড় ধামাকা! বিস্তারিত জেনে নিন...

আরও পড়ুন:বৈদ্যুতিক গাড়ির আসরে এবার টাটা মোটরস

বাইকটির চেসিসে থাকছে নতুন অ্যালুমিনিয়াম ফ্রেম এবং সুইংআর্মেও ঘটছে পরিবর্তন। আরোহীর যাত্রা আরামদায়ক করার লক্ষ্যে গাড়িটির সাসপেনশন সিস্টেমে থাকছে ৪৭ এমএম ইনভার্টেড ফর্ক। রকেট ৩ আর মডেলটির ওজন ২৯১ কিলোগ্রাম ও ৩ জিটি মডেলটির ওজন করা হয়েছে ২৯৪ কিলোগ্রাম।

বাইকটির হেডলাইটে থাকছে এলইডি ও এলইডি ডিআরএল। এ ছাড়া অন্যান্য সুযোগ সুবিধার মধ্যে ইন্টিগ্রেটেড গোপ্রো কন্ট্রোল সিস্টেম, গুগল-পাওয়ারড্ নেভিগেশন, ব্লুটুথ কানেকশন এবং মাই ট্র্যায়াম্প অ্যাপ, অ্যান্ড্রয়েড ও আইওএস ফোনের জন্যে।

রকেট ৩ আর মডেলটি পাওয়া যাবে ‘কোর্সি রেড’ ও ‘ফ্যান্টম ব্ল্যাক’ দুটি রঙে। অন্যদিকে রকেট ৩ জিটি মডেলের সঙ্গে মিলবে হাইওয়ে ইন্সপিরেশন কিট-সহ আরও সরঞ্জাম, যা লম্বা সফরের জন্য প্রয়োজনীয়।

২০২০ সালে বাইকটি লঞ্চ হলেও চলতি বছরের শেষের দিকেই বাইকটির টেস্ট ড্রাইভ করা যাবে বলে জানিয়েছে এই বাইক প্রস্তুতকারী সংস্থা।