সরকার, ব্যাঙ্ক ও সংশ্লিষ্ট নিয়ন্ত্রকের ব্যর্থতাই অনুৎপাদক সম্পদের সমস্যার জন্য দায়ী বলে তোপ দাগলেন প্রাক্তন গভর্নর উর্জিত পটেল। রিজার্ভ ব্যাঙ্ক থেকে সরার পরে প্রথম বার মুখ খুলেই। এ দিকে রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কগুলিকে ভাল ফল করতে হলে সেগুলির পরিচালনায় কেন্দ্রের হস্তক্ষেপ কমানো জরুরি বলে আজ জানিয়েছেন আর এক প্রাক্তন গভর্নর রঘুরাম রাজনও।

গত ডিসেম্বরে গভর্নরের পদ ছেড়েছেন উর্জিত। সে জন্য নানা বিষয়ে কেন্দ্রের সঙ্গে বিরোধই দায়ী বলে মনে করা হয়। তার পর থেকে কোনও কিছু নিয়েই মন্তব্য করতে শোনা যায়নি তাঁকে। সম্প্রতি স্ট্যান্ডফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের অনুষ্ঠানে পটেল বলেন, ২০১৪ সালের আগে ব্যাঙ্কগুলি ইচ্ছেমতো ঋণ দিয়েছে। কেন্দ্র নিজের ভূমিকা পুরোপুরি পালন করেনি। দ্রুত ব্যবস্থা নেয়নি নিয়ন্ত্রকও।  সব মিলিয়ে এই অবস্থা তৈরি হয়েছে। আগামী দিনে যাতে এই পরিস্থিতি ফের তৈরি না হয়, তা নিয়ে সতর্ক করেছেন প্রাক্তন গভর্নর। পাশাপাশি, ঋণনীতির উপরে সরকারি আর্থিক নীতির ছড়ি ঘোরানোর পরে এ বার ব্যাঙ্কে নিয়ন্ত্রণে তাদের ছড়ি ঘোরানোর পালা কি না, প্রশ্ন তুলেছেন তা নিয়েও।

উল্লেখ্য, রাজন গভর্নর হওয়ার পরেই ব্যাঙ্কের হিসেবের খাতায় অনুৎপাদক সম্পদের আসল ছবি তুলে ধরার প্রক্রিয়া শুরু হয়। রাজনের সঙ্গে প্রথমে ডেপুটি গভর্নর ও তিনি চলে যাওয়ার পরে গভর্নরের পদ সামলেছেন উর্জিত। আজ রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্ক পরিচালনা নিয়ে সতর্ক করেছেন রাজনও। তাঁর মতে, ব্যাঙ্কগুলিতে কড়াকড়ি ও কেন্দ্রের হস্তক্ষেপ কমলে তাদের পারফরম্যান্সও ভাল হবে।