Advertisement
০৫ অক্টোবর ২০২২
vodafone

Vodafone: সুদের বদলে কেন্দ্রকে শেয়ার, রাজি ভোডাফোন

বকেয়া সুদ মেটানোর বদলে সরকারের হাতে সংস্থার শেয়ার তুলে দেওয়ার প্রস্তাব মেনে নিল ভিআই।

প্রতীকী ছবি।

প্রতীকী ছবি।

নিজস্ব সংবাদদাতা 
কলকাতা শেষ আপডেট: ১২ জানুয়ারি ২০২২ ০৭:১৩
Share: Save:

সরকারি সাহায্য না-পেলে আর্থিক দশা এমন বেহাল হবে যে, ব্যবসা গোটাবে ভোডাফোন আইডিয়া (ভিআই)— এমন হুঁশিয়ারি দিয়েই সংস্থাটির চেয়ারম্যান পদ ছেড়েছিলেন আদিত্য বিড়লা। তার পরেই আর্থিক সঙ্কটে থাকা টেলি শিল্পে অক্সিজেন জোগাতে (গত সেপ্টেম্বরে) ত্রাণ প্রকল্প এনেছিল কেন্দ্র। এ বার তারই অন্যতম একটি, চার বছর পরে বকেয়া সুদ মেটানোর বদলে সরকারের হাতে সংস্থার শেয়ার তুলে দেওয়ার প্রস্তাব মেনে নিল ভিআই। মঙ্গলবার পর্ষদ তাতে সায় দেওয়ার পরে সংস্থার ভবিষ্যৎ নিয়ে নতুন করে জল্পনা ছড়িয়েছে। শেয়ার দর নেমেছে অনেকখানি।

তবে এটা ভিআই বা তার গ্রাহকদের ভবিষ্যতের জন্য ভাল না খারাপ, এখনই সেই সিদ্ধান্তে আসতে নারাজ অধিকাংশ উপদেষ্টা সংস্থা। একাংশ বলছে, সংস্থায় সরকার জড়িয়ে থাকলে লগ্নিকারী টানতে সুবিধা হবে, পরিষেবার মান বাড়বে। তবে সেই প্রসঙ্গে এয়ার ইন্ডিয়ার বছরের পর বছর চেষ্টার পরে লগ্নিকারী হিসেবে টাটাদের পাওয়ার বিষয়টি টেনে আনছেন অনেকে। বিশেষজ্ঞদের মতে, বাজারে টিকে থাকতে ভিআইকে গ্রাহক পিছু আয় বাড়াতেই হবে।

সরকারি ত্রাণ হিসেবে স্পেকট্রাম এবং অন্যান্য খাতে বকেয়া মেটানোর প্রক্রিয়া চার বছর স্থগিত রাখার মতো সুবিধা নেওয়ার কথা আগেই জানিয়েছে ভিআই। রিলায়্যান্স জিয়ো বাদে ভারতী এয়ারটেল, ভিআই, টাটা টেলি সার্ভিসেস— সকলেই সুবিধাটি নেবে। সেই বকেয়ার সুদের বদলেই ভবিষ্যতে কেন্দ্রকে শেয়ার দিতে রাজি ভোডাফোন। ১৬,০০০ কোটি টাকা সুদের বদলে ১০ টাকা দরে শেয়ার দেবে তারা। একই পথে হাঁটবে টাটা টেলিও। তাদের অংশীদারির হিসাব হবে শেয়ারে ৪১.৫০ টাকা দরে।

তবে ভিআই-কে নিয়ে বাজারে জল্পনা কমেনি। অংশীদারি বেচার খবরে তাই বিএসএই-তে ১১.৮০ টাকায় নেমেছে শেয়ারের দাম। আর সংস্থা বা টেলি শিল্পে সিদ্ধান্তটির কী প্রভাব পড়তে পারে, তার উত্তরে ডয়েশ ব্যাঙ্ক রিসার্চের বক্তব্য, কেন্দ্রের শেয়ার থাকায় মাসুল যুদ্ধের তুলনায় (জিয়ো বাজারে আসার পরে যা টেলি শিল্পের ক্ষতি করেছে বলে অভিযোগ) প্রতিযোগী সংস্থাগুলি বরং জোর দেবে পরিষেবার মানে। ভিআইয়ের অবলুপ্তির আশঙ্কা ক্ষীণ হলেও মাসুল বৃদ্ধির সম্ভাবনা বাড়ছে। সিএলএসএ এবং এডেউইজ়ের দাবি, টিকে থাকতে ভিআইয়ের গ্রাহক পিছু মাসিক আয় চার বছর পরে কমপক্ষে ২৫০ টাকায় পৌঁছনো জরুরি। সরকারি অংশীদারি থাকায় বাইরে থেকে লগ্নি পেতে সুবিধা হবে, বলছে ইউবিএস। তবে তাদের মতে, সংস্থা পরিচালনা বা পুঁজির বরাদ্দ নিয়ে সরকারের ভূমিকা কী হবে স্পষ্ট না হওয়ায় উদ্বেগও থাকছে।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.