পঞ্জাব অ্যান্ড মহারাষ্ট্র কোঅপরেটিভ (পিএমসি) ব্যাঙ্কের গ্রাহকদের টাকা তোলার ঊর্ধ্বসীমা বাড়িয়ে ৪০,০০০ টাকা করল রিজার্ভ ব্যাঙ্ক। ফলে গ্রাহকদের ৭৭ শতাংশই নিজেদের পুরো আমানত তুলে ফেলতে পারবেন। 

সেপ্টেম্বরের শেষ দিকে পিএমসি ব্যাঙ্কের ঋণ নিয়ে অনিয়মের ছবি প্রকাশ্যে আসে। তার পরেই তাদের উপরে কিছু নিষেধাজ্ঞা চাপায় শীর্ষ ব্যাঙ্ক। বসানো হয় প্রশাসক। বলা হয়, ব্যাঙ্কটির হাতে যেটুকু তহবিল রয়েছে তার নয়ছয় আটকাতেই এই পদক্ষেপ। গ্রাহকদের টাকা তোলার ঊর্ধ্বসীমা বেঁধে দেওয়া হয় ১,০০০ টাকায়। পরে তা বাড়িয়ে করা হয় ২৫,০০০ টাকা। সম্প্রতি উদ্বিগ্ন গ্রাহকেরা কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামনের সঙ্গে বৈঠকে নিজেদের উদ্বেগের কথা জানান। তার পরেই সোমবার টাকা তোলার ঊর্ধ্বসীমা ফের বাড়ল। 

নির্মলা এ দিন বলেছেন, ‘‘রিজার্ভ ব্যাঙ্কের গভর্নরের সঙ্গে আমি কথা বলেছি। তিনি আমাকে বলেছেন সাধারণ গ্রাহকদের (পিএমসি ব্যাঙ্কের) সমস্যার দিকটি গুরুত্ব দিয়ে বিবেচনা করবেন। আমি নিজেও বিষয়টির দিকে নজর রাখছি।’’ 

তদন্তে নেমে ইতিমধ্যেই বেশ কয়েক জনকে গ্রেফতার করেছে মুম্বই পুলিশের আর্থিক অপরাধ দমন শাখা। এর মধ্যে ব্যাঙ্কটির ম্যানেজিং ডিরেক্টর জয় টমাস এবং চেয়ারম্যান ওয়ারাম সিংহ যেমন আছেন, তেমনই রয়েছেন এইচডিআইএলের দুই প্রোমোটার। যারা বেআইনি ভাবে ঋণ নিয়েছিল ওই ব্যাঙ্ক থেকে। পিএমসি ব্যাঙ্কের দুই কর্তার পুলিশি হেফাজতের মেয়াদ ১৬ অক্টোবর পর্যন্ত বাড়িয়েছে মুম্বইয়ের এক আদালত। ইডি জানিয়েছে, এই তদন্তে নেমে ইতিমধ্যেই ৩,৮৩০ কোটি টাকার সম্পত্তি চিহ্নিত ও বাজেয়াপ্ত করেছে তারা।