• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

ম্যানহোলের ঢাকনা খোলার কর্মী নিচ্ছে পুরসভা

Municipality
ফাইল চিত্র।

Advertisement

বেশি বৃষ্টি হলে শহরের অনেক এলাকাই জলমগ্ন হয়ে যায়। তখন সংশ্লিষ্ট এলাকার ম্যানহোলের ঢাকনা খুলে দিলে জল দ্রুত নেমে যায়। তাই এ বার ম্যানহোলের ঢাকনা খোলার জন্য কর্মী নিয়োগ করতে চলেছে কলকাতা পুরসভা। ওই কর্মীদের কাজই হবে ঢাকনা, গালিপিটের ঝাঁঝরি খুলে জল দ্রুত বার করে দেওয়া। পুরসভা সূত্রের খবর, প্রাথমিক ভাবে উল্টোডাঙা সাইফন পাম্পিং স্টেশনে ওই কর্মী নিয়োগ করা হচ্ছে। চলতি মাস থেকে আগামী নভেম্বর মাস পর্যন্ত তাঁদের চুক্তিভিত্তিতে নিয়োগ করা হবে।

পুর আধিকারিকদের একাংশ জানাচ্ছেন, সাফাই-নিকাশির কাজের জন্য পুরসভার নিজস্ব কর্মীদের একটি দল রয়েছে। সে দলে প্রায় ৩৫০ জন কর্মী রয়েছেন। অন্য সময়ে তাঁরা গালিপিট, নর্দমা পরিষ্কারের কাজ করেন। কিন্তু বর্ষার সময়ে তাঁদের ভূমিকা পাল্টে যায়। তখন তাঁদের ম্যানহোল, গালিপিট খুলে জল দ্রুত নামানোর কাজে ব্যবহার করা হয়। সেই মতোই উল্টোডাঙা সাইফন সেন্টারে ওই কর্মী নিয়োগ করা হচ্ছে।

পুরসভা সূত্রের খবর, শিফ‌্টের ভিত্তিতে সংশ্লিষ্ট কর্মীদের নিয়োগ করা হবে। প্রতি শিফ‌্টে ২০ জন কর্মী থাকবেন, যাঁরা জল জমলে ‘ওয়াটার লগিং পকেট’গুলিতে জল নামানোর কাজ করবেন। শিফ‌্ট শুরু হবে সকাল ১১টা থেকে। পরের শিফ‌্ট শুরু হবে সন্ধ্যা ৭টা থেকে। অর্থাৎ, রাতেও যাতে জল নামানোর কাজ করা যায়, সে ভাবেই কর্মী নিয়োগের পরিকল্পনা করা হয়েছে বলে জানাচ্ছেন পুরকর্তাদের একাংশ।

পুরসভা সূত্রের খবর, ‘ওয়াটার লগিং পয়েন্ট’ কোনগুলি, বরোভিত্তিক তার একটি তালিকা রয়েছে। সেই তালিকা দেখেই নির্দিষ্ট এলাকায় কর্মী নিয়োগের প্রস্তুতি চলে। শুধুমাত্র উল্টোডাঙা সাইফন সেন্টারে ওই কর্মী নিয়োগের জন্য প্রায় সাড়ে ১০ লক্ষ টাকা বরাদ্দ করেছেন কর্তৃপক্ষ। মেয়র পারিষদ (নিকাশি) তারক সিংহ জানান, প্রতি বছরই জলমগ্ন এলাকাগুলিতে কর্মী নিয়োগ করে পুরসভা। জমা জলের পরিস্থিতি বুঝে লোক নিয়োগ হয়। তারকবাবু বলেন, ‘‘নিচু এলাকা থেকে জল বার করতে ম্যানহোলের ঢাকনা বা গালিপিটগুলি খুলে দিলে দ্রুত তা নেমে যায়। সেটার জন্যই কর্মী নিয়োগ করি আমরা।’’

সবাই যা পড়ছেন

Advertisement

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন