×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

১২ জুন ২০২১ ই-পেপার

ভিন্ রাজ্যে আটকে শ্রমিক-পর্যটক, বাড়ছে বাড়ি ফেরার আকুতি

০৬ মে ২০২০ ১৭:৫৩
—ফাইল চিত্র

—ফাইল চিত্র

ভেলোরে বহু দিন ধরে আটকে, বাড়ি ফেরান

আমি বিদ্যুৎ কুমার দত্ত এবং আমার স্ত্রী মায়া দত্ত দু’জনেই প্রবীণ নাগরিক। আমরা গত ১৭ মার্চ ভেলোরে চিকিৎসার জন্য এসেছিলাম। লকডাউনের জেরে এখানে আটকে পড়েছি। আমাদের যত দ্রুত সম্ভব বাড়ি ফিরতে সাহায্য করুন।

বিদ্যুৎ দত্ত
ইমেল-
bidyutmaya1981@gmail.com

Advertisement


ঝাঁসিতে আটকে পড়েছি, বাড়ি ফেরানোর ব্যবস্থা করুন

আমি উত্তরপ্রদেশের ঝাঁসির প্রীতমপুরে আটকে পড়েছি। দয়া করে আমাদের বাড়ি ফেরানোর ব্যবস্থা করুন। আমাদের বাড়ি পশ্চিমবঙ্গের পূর্ব বর্ধমান জেলার, রায়নার কোণকৃষ্ণপুরে।

শচীন পোড়েল
ইমেল-
sachinporel86@gmail.com


বেঙ্গালুরুতে কাজ করতে এসে বিপদে পড়েছি, উদ্ধার করুন

অমি পশ্চিমবঙ্গের নদিয়ার করিমপুর দুই ব্লকের বাসিন্দা। আমি এখন বেঙ্গালুরুর বোভিপ্লিয়া নামে একটি জায়গায় আটকে পড়েছি। এখানে আমি ছাড়াও ৩৬ জন বাঙালি শ্রমিক কাজ করি। আমরা সরকারি ভাবে কোনও সাহায্য পাচ্ছি না। খুব বিপদে আছি। আমাদের বাড়ি ফেরানোর জন্য মুখ্যমন্ত্রীর কাছে আবেদন করছি।

রাকেশ মিয়াঁ
ইমেল-
9800766549rm@gmail.com


চেন্নাইয়ের গেস্ট হাউসে গৃহবন্দি, অসহায় বোধ করছি, বাড়ি ফেরান

আমার বাড়ি বীরভূমের নলহাটিতে। আমি আমার মায়ের হিপ জয়েন্ট অস্ত্রোপচারের জন্য গত ১৬ই মার্চ চেন্নাইয়ে আসি। আমি, আমার মা (৬৩), বাবা (৬৬), ও আমার এক বন্ধু নলহাটি থেকে চেন্নাইয়ে এসেছিলাম। ২০ মার্চ অস্ত্রোপচার হয়েছে। কিন্তু চিকিৎসা চলাকালীন হঠাৎ করে লকডাউন ঘোষণা হয়। আমরা সেই দিন থেকে একটি গেস্ট হাউসে আজ পর্যন্ত গৃহবন্দি। প্রতি দিনের খরচ চালানো প্রায় অসম্ভব হয়ে পড়েছে। উপরন্তু গেস্ট হাউসের দৈনিক ভাড়ার জেরে আমরা জর্জরিত। দুই রাজ্যের প্রশাসনের কাছে অনেক আবেদন নিবেদন জানিয়েও কোনও সাহায্য বা আশ্বাস পাইনি। আমরা খুবই অসহায় বোধ করছি। করজোড়ে অনুরোধ করছি, আমাদের রাজ্যে ফেরানোর ব্যবস্থা করুন।

সৌমেন্দু চট্টোপাধ্যায়
মোবাইল - ৯৪৩৪৪৫৩৫৩৭
আয়ানামবক্কম, চেন্নাই - ৬০০০৯৫, তামিলনাড়ু
ইমেল -
soumenduchattopadhyay@gmail.com

(অভূতপূর্ব পরিস্থিতি। স্বভাবতই আপনি নানান ঘটনার সাক্ষী। শেয়ার করুন আমাদের। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিয়ো আমাদের ইমেলে পাঠিয়ে দিন, feedback@abpdigital.in ঠিকানায়। কোন এলাকা, কোন দিন, কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই দেবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।)

Advertisement