Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৫ জানুয়ারি ২০২২ ই-পেপার

লকেটের পরে অধীর, কেষ্ট আছেন কেষ্টতেই

বিরোধীদের নালিশ, নির্বাচন কমিশনের বাঁকা ভুরু (‌শো-কজ নোটিসও)—কোনও কিছুরই পরোয়া যে করেন না, ফের বুঝিয়ে দিলেন অনুব্রত। তৃণমূল নেত্রীর স্নেহধন্

নিজস্ব প্রতিবেদন
২৩ মার্চ ২০১৬ ০৩:৫৩

বিরোধীদের নালিশ, নির্বাচন কমিশনের বাঁকা ভুরু (‌শো-কজ নোটিসও)—কোনও কিছুরই পরোয়া যে করেন না, ফের বুঝিয়ে দিলেন অনুব্রত। তৃণমূল নেত্রীর স্নেহধন্য দলের বীরভূম জেলা সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল।

বিজেপি প্রার্থী লকেট চট্টোপাধ্যায়ের প্রতি অনুব্রতর আপত্তিকর মন্তব্য করার অভিযোগ মঙ্গলবারই দায়ের হয়েছে কমিশনে। আর এ দিনই সন্ধ্যায় রামপুরহাটে ‘কেষ্ট’দা (অনুব্রতরই ডাক-নাম) প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরী সম্পর্কে আপত্তিকর মন্তব্য করেছেন অভিযোগে সরব বিরোধীরা।

গত পঞ্চায়েত ভোটের আগে ‘পুলিশকে বোম মারা’র কথা বলে সংবাদ শিরোনামে আসা অনুব্রত চলতি ভোট মরসুমে ‘খাতা খোলেন’ গত ১৫ মার্চ, বোলপুরে। সে দিন বিরোধী ভোটারদের এলাকায় ভোট করানোর যে দাওয়াই তিনি দলীয় বৈঠকে দিয়েছিলেন, তা জেনে কমিশনের দ্বারস্থ হন বিরোধীরা। আসে প্রথম শো-কজ। কিন্তু অনুব্রতর জবাবে কমিশন সন্তুষ্ট হয়নি। ঘটনাচক্রে এ দিনই বীরভূমের জেলা নির্বাচনী আধিকারিককে অনুব্রতর বিরুদ্ধে ওঠা সেই অভিযোগের তদন্ত-রিপোর্ট দিতে বলেছে কমিশন। কমিশনের পক্ষে অভিযোগের তদন্ত করেছেন জেলাশাসক পি মোহন গাঁধী। তবে যোগাযোগ করা হলেও এ দিন ফোন ধরেননি জেলাশাসক। জবাব দেননি এসএমএস-এর।

Advertisement

দ্বিতীয়টি লকেট-পর্ব। গত শনিবার বীরভূমের ময়ূরেশ্বর কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী লকেট চট্টোপাধ্যায় সম্পর্কে অনুব্রত আপত্তিকর বিশেষণ প্রয়োগ করেছেন বলে অভিযোগ ওঠে। এ দিন সে অভিযোগ দায়ের হয় কমিশনে। লকেট বলেন, ‘‘অনুব্রতকে বাইরে (‌জেলের) রেখে ভোট করা যাবে না। এই দাবি আমরা কমিশনের কাছে জানিয়েছি।’’ তাঁর অভিযোগ, তাঁকে অনুব্রত এখনও হুমকি দিচ্ছেন। বলছেন— ‘আমি বটগাছ। আমার ছায়ায় থাকলে কোনও অসুবিধা হবে না। উপরে উঠলে মাথা কেটে দেব’।

এমনই যেখানে প্রেক্ষিত, সেখানে এ দিন রামপুরহাট পুরসভার মাঠে দলের মহিলা সংগঠনের সমাবেশে জেলা কংগ্রেস সভাপতি তথা ওই কেন্দ্রের প্রার্থী সৈয়দ সিরাজ জিম্মিকে অনুব্রত ফের আপত্তিকর ভাষায় সম্বোধন করেন বলে অভিযোগ। আর অধীর চৌধুরী সম্পর্কে তাঁর মন্তব্য, ‘‘আপনি আরএসপি-র মাল। তাই আপনি সিপিএমের সঙ্গে জোট করলেন। আপনার লজ্জা নেই!’’

পরে ওই মন্তব্য এবং শো-কজ নিয়ে জানতে চাওয়া হলে অনুব্রতর মন্তব্য, ‘‘আপত্তিকর কিছু বলিনি!’’ লকেটকে কোনও রকম হুমকি দেননি বলেও দাবি তাঁর।

অধীরের সংক্ষিপ্ত প্রতিক্রিয়া, ‘‘এমন লোকের এমন কথার কী জবাব দেব?’’ তবে অন্য বিরোধীরা এক বাক্যে বলছেন, ‘‘লোকটার মুখে লাগাম তো পরানো যাচ্ছে না। অন্তত জিভে মা সরস্বতী বাস করুন—এটুকুই চাওয়ার।’’

আরও পড়ুন

Advertisement