×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement
Powered By
Co-Powered by
Co-Sponsors

WB Election: বাড়ছে পুলিশি নজর, চলছে তল্লাশি

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ০৮ এপ্রিল ২০২১ ০৬:৪০
নজর: আগামী শনিবার চতুর্থ দফার ভোট। তার আগে কেন্দ্রীয় বাহিনীর টহল। বুধবার, শোভাবাজার এলাকায়।

নজর: আগামী শনিবার চতুর্থ দফার ভোট। তার আগে কেন্দ্রীয় বাহিনীর টহল। বুধবার, শোভাবাজার এলাকায়।
ছবি: বিশ্বনাথ বণিক

আগামী শনিবার চতুর্থ দফার ভোটগ্রহণ হবে কলকাতার একটি অংশে। সেই ভোট-পর্ব শান্তিপূর্ণ ভাবে সম্পন্ন করার জন্য বাহিনীকে নির্দেশ দিল লালবাজার। লালবাজার সূত্রের খবর, ভোটে গোলমালের আশঙ্কা রয়েছে এমন জায়গায় আজ, বৃহস্পতিবার থেকেই পুলিশি নজরদারি বাড়ানো হচ্ছে। একই সঙ্গে বিভিন্ন এলাকায় নজরদারি চালাতে ডিভিশনের ডিসি ছাড়াও অন্য ডিসিদের দায়িত্ব ভাগ করে দেওয়া হয়েছে। ভোটের দু’দিন আগে থেকেই পুলিশ পিকেট বসানো হচ্ছে।

জেলা পুলিশ লাগোয়া এলাকায় ওই দিন ভোট বলে সন্দেহজনক গাড়ি দেখলেই তল্লাশি চালানো হচ্ছে। শহরের ৪০টি জায়গায় কড়া ভাবে নাকা-তল্লাশি চালাতে বাহিনীর কর্তাদের নির্দেশ দিয়েছে লালবাজার।

চতুর্থ দফায় কলকাতা পুলিশ এলাকার পাঁচটি বিধানসভা কেন্দ্র— যাদবপুর, টালিগঞ্জ, কসবা, বেহালা পূর্ব এবং বেহাল পশ্চিমের ভোট রয়েছে শনিবার। মেটিয়াবুরুজ ও ভাঙড় বিধানসভা কেন্দ্রের যে অংশ কলকাতা পুলিশ এলাকার অন্তর্গত, সেখানেই ওই দিন ভোটগ্রহণ হবে। লালবাজার জানিয়েছে, চতুর্থ দফায় কলকাতা পুলিশ এলাকায় মোট ভোটগ্রহণ কেন্দ্র ২৩৪৩টি এবং বুথের সংখ্যা ৭২১টি। এর মধ্যে মহিলা পরিচালিত ভোটগ্রহণ কেন্দ্র ৫৩ এবং বুথের সংখ্যা ২৪৪।

Advertisement

এক পুলিশকর্তা জানান, কসবা, তিলজলা, আনন্দপুর, প্রগতি ময়দান, বেহালা, রিজেন্ট পার্ক, পাটুলি, যাদবপুর, নেতাজিনগর, ঠাকুরপুকুর, সরশুনার মতো এলাকায় চতুর্থ দফার ভোট অবাধ ও শান্তিপূর্ণ করতে আগেই নির্দেশ দিয়েছেন পুলিশ কমিশনার। এ জন্য ওই সব এলাকায় শুক্রবার থেকেই ৪৬টি পুলিশ পিকেট বসানো হচ্ছে। গোলমাল হলে দ্রুত পৌঁছতে মোটরবাইক বাহিনীর সংখ্যা বাড়ানো হয়েছে।

শহরের একাংশে চতুর্থ দফার ভোটের দায়িত্ব সামলাতে ৯০ কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী শহরে পৌঁছে বুধবারই রুট মার্চ করেছে। ভোটের দিন প্রতি বুথের দায়িত্ব থাকছে কেন্দ্রীয় বাহিনীর হাতেই। এক পুলিশকর্তা জানান, একটি বুথ রয়েছে এমন ভোটগ্রহণ কেন্দ্রে হাফ সেকশন বা চার জন কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ান থাকবেন। আর এক সেকশন বা আট জন কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ান দুই থেকে চারটি বুথ রয়েছে, এমন ভোটকেন্দ্রের দায়িত্বে থাকবেন। পাঁচ থেকে আটটি বুথ আছে এমন ভোটকেন্দ্রে থাকবে দেড় সেকশন কেন্দ্রীয় বাহিনী। একই ভাবে ন’টির বেশি বুথ রয়েছে এমন ভোটকেন্দ্রে থাকবে দুই সেকশন কেন্দ্রীয় বাহিনী।

লালবাজার জানিয়েছে, ওই দিনের ভোটে কেন্দ্রীয় বাহিনীর ৯৪টি কুইক রেসপন্স টিম থাকছে। এ ছাড়া ডিভিশনাল স্ট্রাইকিং ফোর্সেও থাকবেন কেন্দ্রীয় বাহিনী জওয়ানেরা। তবে কেন্দ্রীয় বাহিনী ছাড়াও গোটা এলাকার নিরাপত্তার জন্য থাকছে কলকাতা পুলিশের বিশাল বাহিনী। ওই দিনের ভোটের জন্য আগামী শুক্রবার থেকেই ১২৩টি সেক্টর মোবাইল এবং ৭৫টি আরটি ভ্যান রাস্তায় টহল দেবে। দিনে এবং রাতে ভোট রয়েছে এমন ৩৭টি জায়গায় গোলমাল থামাতে হেভি রেডিয়ো ফ্লাইং স্কোয়াডকেও রাখা হচ্ছে।

Advertisement