Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১ ই-পেপার

Bengal Polls: ‘১০ বছরে দিদি যা করেছে, ৭০ বছরে কেউ পারেনি’, মেদিনীপুরে দাবি দেবের

নিজস্ব সংবাদদাতা
পশ্চিম মেদিনীপুর ১৭ মার্চ ২০২১ ২০:১৩
চন্দ্রকোনায় 'রোড শো'। তৃণমুল সাংসদ দেব এবং সৌগত রায়।

চন্দ্রকোনায় 'রোড শো'। তৃণমুল সাংসদ দেব এবং সৌগত রায়।
নিজস্ব চিত্র।

পশ্চিম মেদিনীপুরে ভোট প্রচারে এসে বিজেপি-কে নিশানা করলেন ঘাটালের তৃণমূল সাংসদ দেব। বুধবার দলের আরেক সাংসদ সৌগত রায়কে সঙ্গে নিয়ে চন্দ্রকোনা এবং দাঁতনে দলীয় প্রচার কর্মসূচিতে অংশ নেন তিনি।

অভিনেতা-সাংসদ বুধবার বলেন, ‘‘এ বারের ভোটে উন্নয়নের খেলা হবে। মানুষের বেঁচে থাকার খেলা হবে। যাঁরা ধর্ম নিয়ে রাজনীতি করছেন, তাঁদের খেলা শেষ হবে। যাঁরা হিন্দু-মুসলিমদের মধ্যে দেওয়াল তৈরি করছেন, তাঁদের খেলা শেষ হবে। মানুষ ভালো থাকবে, সুখে থাকবে। মেয়েরা সুরক্ষিত থাকবেন। তার খেলা শুরু হবে।’’

চন্দ্রকোনা জাড়া এলাকায় জনসভা ছাড়াও দাঁতন এলাকায় জনসভা এবং ‘রোড শো’ করেন দেব। ছিলেন, চন্দ্রকোনা বিধানসভার তৃণমূল প্রার্থী অরূপ ধাড়া এবং দাঁতনের বিক্রম প্রধান। চন্দ্রকোনার সভায় দেব বলেন, ‘‘১০ বছরে দিদি যা কাজ করেছেন, তা ৭০ বছরে কেউ করতে পারেনি।’’ দেবের কথায়, ‘‘লকডাউন যখন ঘোষণা হল, তখন অনেক রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী এবং প্রধানমন্ত্রকে টিভিতেই দেখেছি। একমাত্র ভারতবর্ষের একজন মুখ্যমন্ত্রী যিনি রাস্তায় বেরিয়েছিলেন। তিনি হলেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। শুধু কলকাতায় বসে নয় জেলায় জেলায় ঘুরেছেন, মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন। মানুষ খাবার পাচ্ছেন কি না, কাজ হারিয়েছেন কি না, সব কিছুই রাস্তায় ঘুরে দেখেছেন।’’

Advertisement

এর পরেই জনতার উদ্দেশে প্রশ্ন ছুড়েছেন অভিনেতা-সাংসদ— ‘‘তা হলে ভোটটা কাকে দেবো?’’

উত্তরও দিয়েছেন নিজেই— ‘‘যিনি মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন তাঁকে। আমপানের সময় মুখ্যমন্ত্রী একা নন, তৃণমূলের সব জনপ্রতিনিধি দলের কর্মী, পুলিশ-প্রশাসন রাস্তায় বেরিয়ে কাজ করেছে। তাঁকে তো ভোট দেওয়া উচিত।’’

বিজেপি-কে কটাক্ষ করে দেব বুধবার বলেন, ‘‘অনেকে বলছেন, সোনার বাংলা গড়বেন। আমি কারও নাম বলব না। আমিও চাই সোনার বাংলা হোক। প্রত্যেকের লাভ হবে। যারা এখন এ সব কথা বলছে, ২০১৪ সালে কেন্দ্রে ক্ষমতায় আসার আগে তারাই বলেছিল, ‘দেশটাকে সোনার চিড়িয়া করে দেব’। সাত বছর দেশের অর্থনৈতিক অবস্থা খারাপ হয়েছে। তারাই এখন বলছে, সোনার বাংলা গড়বে!’’

জনসভায় শ্রোতাদের উদ্দেশে দেব বলেন, ‘‘মাথা নিচু করে আপনাদের ধন্যবাদ জানাই। ২০১৪ থেকে দলের হয়ে আমি প্রচার করছি। আমি কখনই আপনাদের কাছে ভোট চাইতে আসিনি। দলের হয়ে আশীর্বাদ চাইতে এসেছি। ভোট আপনারা যাঁকে ইচ্ছা দিতে পারেন। এটা আপনাদের গণতান্ত্রিক অধিকার। কিন্তু ভোট দেওয়ার আগে আপনাদের ভাবতে হবে, কোন দল, কোন সরকার আপনাদের হয়ে কাজ করেছে। ২০২১ সবার হাতেই স্মার্ট ফোন আছে। সার্চ করে দেখে নেবেন আমি ভুল বলছি, না ঠিক বলছি। মেদিনীপুরের মানুষকে বোকা বানানো যায় না।’’

দু’বার লোকসভা ভোটে জেতা টালিগঞ্জ তারকা তাঁর কাজের খতিয়ান দিতে গিয়ে বলেন, ‘‘আমি সাংসদ হওয়ার সময় থেকেই বলে এসেছি, যতটা পারব ততটাই করব। ততটা করেছি। করোনা আমাদের চোখে আঙুল দিয়ে বুঝিয়ে দিয়েছে টাকাপয়সা জীবনে বড় নয়। বুধবার চন্দ্রকোনা হেলিপ্যাডে নামার পর মিত্রসেনপুর এলাকায় মামার বাড়িতেও যান দেব। সেখানে দুপুরে খাবারের পর জনসভা এবং ‘রোড শো’ করেন তিনি।

আরও পড়ুন

More from My Kolkata
Advertisement