×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

০৯ মে ২০২১ ই-পেপার

Bengal Polls: ডোমজুড়ে রাজীব-ঘনিষ্ঠ তৃণমূল প্রধানের উপরে হামলায় অভিযুক্ত দলেরই কর্মীরা

নিজস্ব সংবাদদাতা
ডোমজুড় ০৩ মে ২০২১ ১৮:০৯
সোমবার জগদীশপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের তৃণমূলপ্রধান গোবিন্দর বাড়িতে তৃণমূলের কর্মীরা হামলা চালান বলে অভিযোগ

সোমবার জগদীশপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের তৃণমূলপ্রধান গোবিন্দর বাড়িতে তৃণমূলের কর্মীরা হামলা চালান বলে অভিযোগ
—নিজস্ব চিত্র।

তৃণমূলে থেকেও ভোটের সময় বিজেপি তথা দলের প্রাক্তন নেতা রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের হয়ে কাজ করেছিলেন। এই অভিযোগে তৃণমূলের কর্মীদেরই হামলার শিকার হলেন ডোমজুড়ের এক গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধান গোবিন্দ হাজরা। অভিযোগ, রাজীব-ঘনিষ্ঠ গোবিন্দর বাড়িতে সোমবার হামলা করেন তৃণমূল কর্মীরা। যদিও তাঁর বাড়িতে হামলার অভিযোগ মানতে নারাজ ওই কেন্দ্রে রাজীব-জয়ী তৃণমূল নেতা কল্যাণ ঘোষ।

ভোটের ঠিক আগে দলবদল করেছিলেন তৃণমূলের হেভিওয়েট নেতা রাজীব। তৃণমূল ছেড়ে বিজেপি-র টিকিটে ডোমজুড়ে লড়লেও পরাজিত হয়েছেন তিনি। ভোট মিটতেই রাজীবের প্রাক্তন দলের কর্মীদের রোষের মুখে পড়লেন তাঁর ঘনিষ্ঠ বলে পরিচিত গোবিন্দ। সোমবার জগদীশপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের তৃণমূল প্রধান গোবিন্দর বাড়িতে তৃণমূলের কর্মীরা হামলা চালান বলে অভিযোগ। বেশ কয়েক জন তৃণমূল কর্মী লাঠিসোঁটা-রড নিয়ে গোবিন্দের নির্মিত একটি বহুতলের দরজা, জানলা, আসবাবপত্র এবং এসি মেশিনে ভাঙচুর চালান বলে অভিযোগ বিজেপি-র। ঘটনার পর আতঙ্কে পালিয়ে যান গোবিন্দ। অন্য দিকে, সলপ ১ নম্বর গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান দীপালি পণ্ডিতের বাড়িতেও তৃণমূল কর্মীরা হামলা চালান বলে অভিযোগ। সোমবার দুপুরে সেখানে বোমাবাজির অভিযোগ উঠেছে।

গণনার ফলাফল বার হওয়ার পর ডোমজুড় বিধানসভা এলাকায় জগদীশপুর-সহ বিভিন্ন জায়গায় বিজেপি-র কর্মীদের বাড়িতে হামলা, মারধরের অভিযোগ উঠেছে। বিজেপি সদরের সভাপতি সুরজিৎ সাহার দাবি, তৃণমূল কর্মীদের হামলার ভয়ে দলের বহু কর্মী ঘরছাড়া। যদিও হামলার কথা অস্বীকার করেছেন ডোমজুড় কেন্দ্রে বিজয়ী তৃণমূলের কল্যাণ ঘোষ। তিনি বলেন, “জনরোষের কারণেই কিছু লোক ওই বাড়িতে ভাঙচুর চালায় বলে শুনেছি। এতে তৃণমূলের কোনও হাত নেই।”

Advertisement

প্রসঙ্গত, বিধানসভা নির্বাচনে হাওড়ায় সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ লড়াই ছিল ডোমজুড় কেন্দ্রে। বিজেপি-তে যোগ দেওয়ার পর এই কেন্দ্রে প্রার্থী হন তৃণমূলের এককালের হেভিওয়েট মন্ত্রী রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়। এলাকার বহু মানুষই তা মেনে নিতে পারেননি বলে রাজনীতির কারবারিদের মত। গেরুয়া শিবিরের হয়ে ভোটপ্রচারে রাজীবকে বার বার ‘গো ব্যাক’ স্লোগান শুনতে হয়েছে। এমনকি, স্থানীয়দের বিক্ষোভের মুখেও পড়েন তিনি। তৃণমূলের তরফ থেকে তাঁকে ‘গদ্দার’ তকমা দিয়ে প্রচারও চালানো হয়েছিল। এই আবহে ডোমজুড়ে জয়লাভ করাটাও বড় চ্যালেঞ্জ ছিল রাজীবের। কিন্তু, তৃণমূল প্রার্থী কল্যাণ ঘোষের কাছে বিপুল ভোটে পরাজিত হন তিনি। হাওড়া সদরের তৃণমূল চেয়ারম্যান অরূপ রায় বলেন, “ডোমজুড়ের মানুষ সুবিধাবাদী রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়কে উপযুক্ত জবাব দিয়েছেন।”

Advertisement