×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement
Powered By
Co-Powered by
Co-Sponsors

গভীর রাতে বিজেপি-র রথে ভাঙচুর, অভিযোগ তৃণমূলের বিরুদ্ধে, দায় এড়াল জোড়াফুল শিবির

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২১ ১১:৫৬
এ ভাবেই পিকআপ ভ্যানের আশেপাশে ঘুরতে দেখা গিয়েছে একদল লোককে।

এ ভাবেই পিকআপ ভ্যানের আশেপাশে ঘুরতে দেখা গিয়েছে একদল লোককে।
ছবি: ভিডিয়ো গ্র্যাব।

ভোটের নির্ঘণ্ট প্রকাশ হতেই অশান্তি শহরে। শুক্রবার গভীর রাতে কাদাপাড়ায় বিজেপি-র ‘পরিবর্তন যাত্রা’র রথে ভাঙচুর। তৃণমূল-এর লোকজনই ভাঙচুর চালিয়েছে বলে অভিযোগ গেরুয়া শিবিরের। তবে শাসকদল সেই অভিযোগ অস্বীকার করেছে। তাদের দাবি, এই ঘটনার সঙ্গে তৃণমূল-এর কেউ যুক্ত নন। তারা জানিয়েছে, আসল অপরাধী কে, তা তদন্ত হলেই বেরিয়ে আসবে।

শুক্রবার বিকেলে বাংলায় ভোটের নির্ঘণ্ট প্রকাশ করে কেন্দ্রীয় নির্বাচন কমিশন। তার পর গভীর রাতে মানিকতলার কাদাপাড়ায় বিজেপি-র ভাড়ায় নেওয়া গুদামে ঢুকে তৃণমূলের লোকজন হামলা চালায় বলে অভিযোগ গেরুয়া শিবিরের। তারা জানিয়েছে, গুদামে ঢুকে ‘পরিবর্তন যাত্রা’র ট্যাবলো ভাঙচুর করা হয়েছে। আছাড় মেরে ভেঙে ফেলা হয়েছে একাধিক এলইডি স্ক্রিন। অনেক এলইডি স্ক্রিন চুরিও করে নিয়ে যাওয়া হয়েছে বলেও অভিযোগ। বাধা দিতে গেলে গুদামের নিরাপত্তারক্ষী, রথ-চালক এবং খালাসি-সহ বেশ কয়েক জনকে মারধরও করা হয় বলে বিজেপি-র দাবি।

এ নিয়ে টুইটারে সরব হয়েছেন বিজেপি-র আইটি সেলের প্রধান অমিত মালব্য। গুদামের সিসিটিভি ফুটেজ পোস্ট করেছেন তিনি। তাতে গুদামে দাঁড়িয়ে থাকা সারি সারি পিকআপ ভ্যানের আশেপাশে ঘুরতে দেখা যায় একদল লোককে।

Advertisement

ওই ফুটেজে যদিও ভাঙচুরের দৃশ্য ধরা পড়েনি। তবে মালব্য লেখেন, ‘কাদাপাড়ার গুদামে ‘বিজেপি-র লক্ষ্য সোনার বাংলা’-র রথগুলি মজুত ছিল। গুদামে ঢুকে সেগুলি ভাঙচুর করে তৃণমূলের গুন্ডারা। রথগুলি মারাত্মক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। চুরি গিয়েছে বহু এলইডি স্ক্রিন’।

ভোটের দিন ক্ষণ ঘোষণার দিন যদি এই অবস্থা হয়, তাহলে নির্বাচনের আগে পরিস্থিতি আরও কঠিন হয়ে উঠবে বলেও লেখেন মালব্য। তাঁর বক্তব্য, ‘তৃণমূলের জমানায় বাংলায় নির্বাচন ঘিরে যে হিংসার প্রথা চলে আসছে, তাতে এ বারের নির্বাচন কমিশনের জন্য কঠিন হতে চলেছে। তবে বাংলার মানুষই জবাব দেবেন’।

রাজ্য বিজেপি-র সভাপতি দিলীপ ঘোষ বলেন, ‘‘পায়ের তলা থেকে মাটি সরে গিয়েছে বলেই তৃণমূল এ ভাবে আক্রমণ চালাচ্ছে। বলেছিল বদলা নয়, বদল চাই। মানুষ তার নমুনা দেখছেন। তাঁরাই হিসেব দেবেন। আর কয়েক মাস আয়ু এই সরকারের।’’

এ নিয়ে যোগাযোগ করা হলে তৃণমূল মুখপাত্র কুণাল ঘোষ কোনও মন্তব্য করতে চাননি। তবে দলের সাংসদ সৌগত রায় বলেন, ‘‘এই ধরনের ঘটনার সঙ্গে আমাদের কোনও যোগ নেই। এ সব কেন করতে যাব আমরা? ঘটনার তদন্ত হোক। তা হলেই আসল অপরাধী বেরিয়ে আসবে। তৃণমূলের কেউ এর সঙ্গে কোনও ভাবে যুক্ত নয়।’’

হামলার খবর পেয়ে শুক্রবার রাতেই ঘটনাস্থলে ছুটে যান বিজেপি নেতা সব্যসাচী দত্ত। ফুলবাগান থানায় এ নিয়ে অভিযোগও দায়ের হয়। তবে এখনও পর্যন্ত কাউকে গ্রেফতার করা হয়নি। গুদাম ও সংলগ্ন এলাকার সিসিটিভি ফুটেজ খতিয়ে দেখছে পুলিশ।

Advertisement