Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৩ মে ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

Bengal Election: বিনা পয়সার চাল পেয়ে ৯০০ টাকার গ্যাসে ফোটাব? কেন্দ্রকে প্রশ্ন মমতার

‘বহিরাগত গুণ্ডারা ঢুকলে মা বোনেরা হাতা-খুন্তি নিয়ে তাড়া করবেন। গুণ্ডাদের ঢুকতে দেবেন না’ পুরুলিয়ার সভা থেকে আক্রমণ মমতার।

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ২৩ মার্চ ২০২১ ১২:৩৯
Save
Something isn't right! Please refresh.
ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

Popup Close

সোমবার বাঁকুড়ায় জনসভা করেছেন, মঙ্গলবার করলেন পুরুলিয়ায়। তিন বিধানসভা কেন্দ্রে তিনটি সভা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের।

মঙ্গলবার মমতা প্রথম সভা করলেন পারা বিধানসভা কেন্দ্রের সগড়কা মাঠে। এরপর তিনি যান কাশীপুর বিধানসভা কেন্দ্রের এসবি গ্রাউন্ডে। শেষে বেলা ১ টায় তাঁর তৃতীয় সভা ছিল রঘুনাথপুর বিধানসভা এলাকার গোবাগে। পুরুলিয়ার সবকটি আসনেই নির্বাচন প্রথম দফায়। হাতে গোনা কয়েকটি দিন। তার আগে জনসভা থেকে মমতা কী বার্তা দেন, সকলের নজর থাকবে সেই দিকেই।

১.০৯ মা মাটি মানুষের পরিবারই আমাদের পরিবার। বাইরে যাঁরা আছেন, তাঁদের ভোট দিতে আসতে বলবেন। না হলে বিজেপি ভোটার তালিকা থেকে নাম কেটে দেবে। এখানে সবাইকে ফিরতে বলুন, চাকরির অভাব হবে না। আমি ব্যবস্থা করে দেব।

Advertisement

১.০০ বিজেপি বিদায় নেবে। আজকে গ্যাসের দাম ৯০০ টাকা। নরেন্দ্র মোদী সব খেয়ে নিয়েছে। ভোটের আগে ১০০ টাকা কমিয়ে দেবে, তারপর ভোট হলে আরও ৫০০ টাকা বাড়িয়ে দেবে। আমরা যদি বিনা পয়সায় চাল দিই, তাহলে গ্যাসও বিনা পয়সায় দিতে হবে। ব্যাঙ্ক বন্ধ করে দিচ্ছে, কোল ইন্ডিয়া, রেল, বিএসএনএল, এমটিএনএল বন্ধ করে দিচ্ছে। আগে একটা বিড়ি দিলে তিনবার টানতো, এখন বিজেপি-র নেতাদের দেখুন। একটাই কারখানা চলবে, মোদীর মিথ্যে কথা বলার কারখানা। বহিরাগত গুণ্ডারা ঢুকলে মা-বোনেরা হাতা খুন্তি নিয়ে তাড়া করবেন। মা-বোনেদের জন্য নিজের লেখা কবিতা পড়লেন মমতা।

১২.৫৯ ত্রিপুরা, অসমের ইস্তাহার নিয়ে আসুন বিজেপি-র। সেখানে সবাইকে স্থায়ী কর্মী করবে বলেছিল। কিছুই হয়নি। ইস্তাহারে বলবে, করবে না, মিথ্যে কথা বলে বেড়াচ্ছে। দানব, দৈত্য, রাবণ, থেকে সাবধান। আমরা মা দুর্গাকে ভালবাসিহিন্দু-মুসলমান করবেন না। হাতা-খুন্তি নিয়ে খেলা হবে।

১২.৫৬ বিজেপি ভেবেছিল, পায়ে মেরেছে, আমি বেরবো না। কিন্তু আমি এক পায়ে যে শট মারব, তাতে মাঠের বাইরে ফেলে দেব। এখানকার কর্মীদের বলছি, ভোটের মেশিন ভাল করে পরীক্ষা করবেন। তিরিশটা করে ভোট হলে মেশিন দু’বার অফ-অন করবেন। ভোটের মেশিন খারাপ হলে মেশিন ঠিক হলে ভোট দেবেন, তাড়াহুড়া করবেন না। ভোটের মেশিনকে পাহারা দিতে হবে। রাজ্য পুলিশ যদি নির্বাচন কমিশনের আওতায় হলে দিল্লির পুলিশকেও আওতায় আনতে হবে। ঘুমের ওষুধ মিলিয়ে দিতে পারে বিরিয়ানি, চা-য়ে, তাই বিজেপি-র হাতের খাবার খাবেন না।

১২.৫৩ এটা দিল্লির সরকার নয়। আগের বার পুরুলিয়ার সাংসদ জিতে পালিয়ে গেল। ঝাড়গ্রামের প্রার্থী বলছে, আগের দিন আসিস, ভোটের খরচ দিয়ে দেব। নির্বাচনের আগে টাকা দিয়ে বলবে, বিজেপি-কে ভোট দে। এটা সাধারণ মানুষের টাকা। বিজেপি-কে বলবেন, কোটি কোটি টাকা চুরি করেছিস। টাকা দিয়ে ভোট দেবেন না। ভোটের একমাস বাদে পগার পার, তারপর আর পাত্তা পাওয়া যাবে না।

১২.৫০ শিক্ষার জন্য ক্রেডিট কার্ড, জামিন ছাড়াই। মহিলাদের হাতে টাকা। আরও মেডিক্যাল কলেজ তৈরি হবে। ১০০ দিনের কাজকে আরও বাড়িয়ে দেওয়া হবে। বিনা পয়সায় খাদ্য দেওয়া হবে। অগাস্ট সেপ্টেম্বরে দুয়ারে সরকার হবে। স্বাস্থ্যসাথী কার্ড করে নেবেন। ৫ লক্ষ টাকা পাওয়া যাবে স্বাস্থ্যসাথী কার্ডে। তফশিলিদের জন্য ৬০ বছরের উপরের মানুষরা পাচ্ছেন ১ হাজার টাকা করে। ১৮ বছর বয়সেও বিধবা হলে বিধবা ভাতা পাবেন।

১২.৪২ বিজেপি এসে বিরসা মুন্ডার মূর্তি বলে অন্যের মূর্তিতে মালা দিয়ে চলে যায় বিজেপি। বিজেপি-তে মেয়েদের কোনও সন্মান নেই। বিজেপি মিথ্যে স্বপ্ন দেখাচ্ছে। ১৫ লক্ষ টাকা দিয়েছ? বিজেপিকে বিশ্বাস করবেন না। ওরা বিশ্বাসঘাতকের দল। আমাকে জব্দ করতে পায়ে আঘাত করা হয়েছে। আমরা কৃষকদের জন্য কাজ করেছি।

১২.৪১ ধীরে ধীরে পুরুলিয়া ও বাঁকুড়ার অংশ ও পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার অংশ নিয়ে মাটি সৃষ্টি প্রকল্প করছে রাজ্য সরকার। এতে ১০০ দিনের কাজ ২০০ দিনের হয়ে যাবে। আগে ভয় ছিল, এখন সেই পুরুলিয়ায় মানুষ শান্তিতে আছে।

১২.৩৮ দীর্ঘদিনের সমস্যা ছিল পানীয় জলের। তিনটি পানীয় জল প্রকল্প তৈরি হয়েছে। এই জেলায় আগে ১৯ শতাংশ লোক জল পেতেন। পুরুলিয়া আর এক বছরের মধ্যে ৮ লক্ষ মানুষ জল পাবে। জল প্রকল্প হয়ে গেলে পুরুলিয়ার ৫০ শতাংশ মানুষের কাছে জল পৌঁছে দেওয়া হবে। জল স্বপ্ন প্রকল্প করছে রাজ্য সরকার। ৫৮ হাজার কোটি টাকা খরচ করে প্রকল্প। মাটি সৃষ্টি প্রকল্পের মাধ্যমে কাজ হবে।

১২.৩৩ প্রচণ্ড গরমের মধ্যে যাঁরা এসেছেন, তাঁদের প্রণাম। গত ১০ বছরে এই অঞ্চলে এসেছে উন্নয়নের জোয়ার। এলাকার কাঠামো পাল্টে গিয়েছে। যোগাযোগ ব্যবস্থায় উন্নতি হয়েছে। অনেক রাস্তা তৈরি হয়েছে। ২৫ হাজার একর জমির উপরে শিল্পনগরী তৈরি হচ্ছে, বিনিয়োগ হচ্ছে ৭২ হাজার কোটি টাকা। লক্ষ লক্ষ মানুষের কর্মসংস্থান তৈরি হবে। রঘুনাথপুর শিল্প শহর তৈরি হচ্ছে। জঙ্গলমহল শিল্প সুন্দরী তৈরি হচ্ছে।

১২.৩২ পুরুলিয়ার সভায় পৌঁছে গেলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়



Something isn't right! Please refresh.

আরও পড়ুন

Advertisement