×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

২১ জুন ২০২১ ই-পেপার

‘সহবাসে’-র পোস্টারে অচেনা মেজাজে ইশা, মন্তব্যের ঝড় উঠল নেট-রাজ্যে

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ২৮ জানুয়ারি ২০২১ ১৪:২৪
নতুন ছবির পোস্টার প্রকাশ্যে আসতেই কমেন্টের ঝড়।

নতুন ছবির পোস্টার প্রকাশ্যে আসতেই কমেন্টের ঝড়।

সামাজিক মাধ্যমে কদর্য মন্তব্য, মিম, ট্রোল এখন তারকাদের জীবনে নিত্যদিনের ঘটনা। তবে এ বার আরও এক ধাপ এগিয়ে অধিকারবোধ জাহির করতেও পিছপা নয় নেটাগরিকদের একাংশ। অভিনেত্রী ইশা সাহার সাম্প্রতিক ফেসবুক পোস্টে ধরা পড়ল সেই ছবি।

গত বুধবার নতুন ছবি ‘সহবাসে’-র একটি পোস্টার শেয়ার করেন ইশা। সেখানে নায়ক অনুভব কাঞ্জিলালের বুকে হেলান দিয়ে হাসিমুখে বসে থাকতে দেখা যায় নায়িকাকে। ইশার কাঁধ ছুঁয়ে রয়েছে অনুভবের হাত। ছবির নামের নীচে ছোট্ট করে লেখা ‘দ্য লিভ-ইন রুমিজ’ কথাটি বুঝিয়ে দিচ্ছে, লিভ-ইন সম্পর্ক ঘিরেই এগোবে গল্প।

অনেক দিন পরে ইশার নতুন ছবির খবরে উচ্ছ্বসিত অনুরাগীরা। তবে পোস্টারে নায়ক-নায়িকার এই ঘনিষ্ঠ ছবি মেনে নিতে খানিক অসুবিধাই হচ্ছে অনেকের। পোস্টেরর নীচে করা মন্তব্য মাঝেমাঝেই হিংসের ইঙ্গিতও দিচ্ছে! একাধিক জন প্রশ্ন তুলেছেন, ‘ইশার কাঁধে হাত রাখার সাহস কে দিল?’ এক নেটাগরিক আবার অভিনেত্রীকে নিজের স্ত্রী বলেও দাবি করে বসেছেন। ছবির নাম নিয়েও আপত্তি জানিয়েছেন অনেকে। তাঁদের অভিমত, এ ধরনের নাম মোটেই গ্রহণযোগ্য নয়।

Advertisement

কিন্তু যাঁর পোস্ট ঘিরে এত বিতর্ক, কী বলছেন তিনি?

বিষয়টিকে ইতিবাচক দৃষ্টিতেই দেখতে চাইছেন ইশা। তাঁর কথায়, “দর্শকেরা ভালবাসেন বলেই, আমাকে নিয়ে তাঁরা এতটা পজেসিভ। ছোটবেলায় আমরাও শাহরুখ খানকে ওঁর স্ত্রীর সঙ্গে দেখলে এ রকম করতাম।”

২০১৭ সালে অনিন্দ্য চট্টোপাধ্যায়ের ‘প্রজাপতি বিস্কুট’ ছবির মাধ্যমে টলিউডে আত্মপ্রকাশ ইশার। অভিনেত্রীর চার বছরের কাজের তালিকায় চোখ বুলিয়ে দেখা যায়, বেশির ভাগ ছবিতে ‘পাশের বাড়ির মেয়ে’-র মতো সহজ স্বভাবের চরিত্রে দর্শকদের কাছে ধরা দিয়েছেন তিনি। তবে খোলা চুল, শাড়ি আর সালোয়ারের সেই চেনা ছক ভাঙতে চেয়েই কি এই সব মন্তব্যের মুখে পড়তে হল তাঁকে? ইশা বললেন, “পর্দায় আমি বাড়ির মেয়ে হয়ে উঠি। কিন্তু বাস্তবে তো আমি এক জন অভিনেতা। সব রকমের চরিত্রেই অভিনয় করতে চাইব। দর্শক সেটা মেনে নিলে ভাল। না মেনে নিলে আমার কিছু বলার নেই।”

ইশা-অভিনবের সঙ্গে এই ছবিতে অভিনয় করেছেন রাহুল বন্দ্যোপাধ্যায় এবং এই মুহূর্তে বিতর্কের কেন্দ্রে থাকা সায়নী ঘোষ। পোস্টারে সায়নীর ছবি দেখে এক জন লিখেছেন, ‘সায়নী ঘোষ অভিনীত আর একটি সিনেমাও দেখব না।’ তাঁকে ‘বাঙালির কলঙ্ক’ বলেও মন্তব্য করা হয়। নিজের পোস্টে সহ-অভিনেত্রীকে নিয়ে এ ধরনের একাধিক কুমন্তব্য চোখ এড়িয়ে যায়নি ইশার। টলিউডের অনেকের মতো তিনিও মনে করেন, অভিনেতাদের সাধারণ মানুষ জনগণের সম্পত্তি ভাবায় কোনও রকম কুরুচিকর মন্তব্য করতেও দ্বিধাবোধ করেন না। কিছুটা প্রতিরোধ ইশার গলায়, “আমাদের কাজগুলো অবশ্যই মানুষের সম্পত্তি। তবে আমাদের ব্যক্তিগত জীবন নয়। তাই সায়নী বা অন্য কাউকে নিয়েই কোনও খারাপ কথা বলার অধিকার নেই কারও।”

আগামী ১২ মার্চ মুক্তি পাচ্ছে ‘সহবাসে’। নতুন ছবি নিয়ে খুবই আশাবাদী ইশা। তার সঙ্গে অভিনেত্রীর আশা, তারকাদের ব্যক্তিগত জীবনের পরিসরে না এসে শুধু তাঁদের কাজকেই গুরুত্ব দেবেন দর্শক!

Advertisement