• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

উইকডে-তেও হাউসফুল! বক্স অফিসে বাজিমাত ‘সাগরদ্বীপে যকের ধন’-এর

main
পরমব্রত এবং কোয়েল। নিজস্ব চিত্র।

Advertisement

বেশ কিছু বছর ধরেইদেশি-বিদেশি সিনেমায় কল্পবিজ্ঞান এবং সায়েন্স ফিকশন গল্পের ক্রেজ বেড়েই চলছে। টলিউডেরও স্বাদ বদলাচ্ছে। পরিচালকেরা ঝুঁকছেন নতুন কন্টেন্টের দিকে। গত সপ্তাহতেই বড় পর্দায় মুক্তি পেয়েছিল সায়ন্তন ঘোষাল পরিচালিত‘সাগর দ্বীপে যকের ধন’। এক সপ্তাহ পার করে কেমন ব্যবসা করল সেই ছবি? ছবি নিয়ে কী বলছেন কোয়েল-পরমব্রত-সায়ন্তন?

জানা গিয়েছে, মুক্তির দিন থেকেই ‘সাগরদ্বীপের যকের ধন’-এর বাজার বেশ ভাল। সব কটা প্রেক্ষাগৃহই প্রায় হাউজফুল। শনি-রবিবার তো বটেই, এমনকি সপ্তাহের কাজের দিনগুলোতেও হল ফাঁকা থাকছে না। পরমব্রত, কোয়েল, সায়ন্তনেরা দর্শকদের প্রতিক্রিয়া জানার জন্য ইতিমধ্যেই শহরের বিভিন্ন হলে উঁকি দিয়েছিলেন। সেখানেও মিলেছে বেশ ভাল প্রতিক্রিয়া।

এই ছবির প্রযোজক সংস্থা সুরিন্দর ফিল্মস। এক কথায় বলা যায়, এটা কোয়েলের ‘ঘরের ছবি’। ছবির সাফল্যে কোয়েল কী বললেন? কোয়েলের কথায়, “এ রকম ট্রেজার হান্ট ছবি বাংলায় খুবই কম বানানো হয়েছে। আসলে ‘সাগরদ্বীপের যকের ধন’ একটা ভিজুয়াল ট্রিট। কম্পিউটার গ্রাফিক্সের এমন ব্যবহার হালফিলে খুবই কম দেখা গিয়েছে বলে আমার মনে হয়। আট থেকে আশি সবার জন্য এই ছবি। সেই জন্যই মানুষের ভাল লাগছে।”

আরও পড়ুন-অভি-অ্যাশের বিয়েতে শত্রুঘ্ন, হেমা মালিনীকে আমন্ত্রণ জানাননি বচ্চন পরিবার, কেন জানেন?

দেখুন ছবির ট্রেলার 

 

কোয়েল যোগ করলেন, “যখন থেকে শুটিং শুরু হয়, আমি চেয়েছিলাম যেন বড়দিনের ছুটিতে ছবিটি মুক্তি পায়। কিন্তু সেটা হয়নি। ডিসেম্বরের ছয় তারিখ মুক্তি পেয়েছে ওই ছবি। এখনও অনেক বাচ্চাদের পরীক্ষা চলছে কিন্তু তা স্বত্ত্বেও এত ভাল রেসপন্স পেয়েছি...খুব ভাল লাগছে।”

ছবির আর এক কাস্ট পরমব্রত চট্টোপাধ্যায় বলছেন, “নন ফেস্টিভ রিলিজ, সেই জায়গা থেকেও প্রত্যেক দিন দু’তিনটি করে হলে হাউজফুল। নন্দন, পিভিআর হাউজফুল যাচ্ছে। লোকে এমন ভিএফএক্স দেখে খুবই খুশি। আসলে এটা তো একটা কমপ্লিট পারিবারিক ছবি। সেটা লোকজন দেখেছেনও। এই ছবিটা একদমই মাস অডিয়েন্সের জন্য। কিন্তু খুঁতুখুঁতে দর্শকও দেখছেন। তাঁদেরও বেশ ভালই প্রতিক্রিয়া।”

আরও পড়ুন-কালো ক্রপ টপে হিন্দি গানের সঙ্গে নুসরতের নাচ, দেখুন ভিডিয়ো

পরিচালক সায়ন্তনের গলাতেও শোনা গেল একই সুর। জানালেন, মূলত বাচ্চাদের কথা মাথায় রেখেই ছবিটা বানিয়েছিলেন তিনি। সায়ন্তনের কথায়, “গত কয়েকদিনে বেশ কিছু হলে গিয়েছি।নন্দনে গিয়েছি, স্টারে গিয়েছি। দেখতে ভাল লাগছে সত্তরোর্ধ্বরাও এসেছেন ছবি দেখতে, নাতি নাতনীদের নিয়ে। সবাই একটাই কথা বলছেন, গোটা ছবিটি সাইফাই হলেও তার মধ্যে একটা হিউম্যান কানেকশন রয়েছে, থ্রিল রয়েছে।”

এখনও পর্যন্ত সবচেয়ে ভাল কমেন্ট কী পেয়েছেন? সায়ন্তন বললেন, “স্টারে একজন বেশ বয়স্ক ভদ্রলোক যখন এগিয়ে এসে বললেন তাইল্যান্ডকে অন্যভাবে দেখিয়েছেন। সবচেয়ে যেটা ভাল লাগল হিউম্যান ইমোশনটা হারিয়ে যায়নি...এই কমেন্টটাই সবচেয়ে ভাল লেগেছে। কাঞ্চনদার অভিনয়ও খুব প্রশংসিত হয়েছে।”

খুশি গোটা টিম। বক্সঅফিসে বাজিমাত করেই চলেছে, ‘সাগরদ্বীপ...’।

(মুভি ট্রেলার থেকে টাটকা মুভি রিভিউ - রুপোলি পর্দার সব খবর জানতে পড়ুন আমাদের বিনোদন বিভাগ।)

 

সবাই যা পড়ছেন

Advertisement

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন