Advertisement
৩০ জানুয়ারি ২০২৩
Entertainment News

বন্ধ হয়ে যেতে পারে ধারাবাহিকের সম্প্রচার? ধর্মঘটে উঠছে প্রশ্ন

আর্টিস্ট ফোরামের মূল অভিযোগ, বেশ কিছু ধারাবাহিকের অভিনেতা এবং টেকনিশিয়ানদের পারিশ্রমিক বকেয়া রয়েছে। তা না মেটানো পর্যন্ত শুটিংয়ে অংশ নিতে চাননি তাঁরা।

দিতিপ্রিয়া, বিক্রম এবং কনীনিকা।

দিতিপ্রিয়া, বিক্রম এবং কনীনিকা।

নিজস্ব সংবাদদাতা
শেষ আপডেট: ২০ অগস্ট ২০১৮ ১৭:০০
Share: Save:

বকেয়া পারিশ্রমিকের দাবিতে গত শনিবার থেকেই টালিগঞ্জে বহু জনপ্রিয় বাংলা ধারাবাহিকের শুটিং বন্ধ হয়ে রয়েছে। অনির্দিষ্টকালীন এই ধর্মঘটের সমাধান সূত্রের খোঁজে রবিবার আর্টিস্ট ফোরামের সদস্যরা এবং প্রযোজকদের একাংশ বৈঠকও করেন। তাতেও কোনও সমাধানসূত্র মেলেনি। এতদিন আলোচনা চলছিল নিজেদের মধ্যে। এ বার টলি পাড়ার ধর্মঘট নিয়ে সাংবাদিক বৈঠক করতে বাধ্য হলেন ফেডারেশন এবং আর্টিস্ট ফোরামের সদস্যরা।

Advertisement

তবে এই ঘটনা প্রথম নয়,গত মাসেও বাংলা ধারাবাহিকের শিল্পী সংগঠন বা আর্টিস্ট ফোরামের সদস্যদের প্রতিবাদের জেরে বন্ধ ছিল সিরিয়ালের শুটিং৷ সে সময় অভিযোগ উঠেছিল, কাজের কোনও নির্দিষ্ট সময়সীমা নেই। কাজের সময় বেঁধে দেওয়ার দাবি উঠেছিল।

সোমবার বিকেলে টেকনিশিয়ান স্টুডিওতে সাংবাদিক বৈঠক করেন প্রসেনজিত্ চট্টোপাধ্যায়। সেখানেই তিনি বলেন, ‘‘টেকনিশিয়ানদের অনেক টাকা বকেয়া রয়েছে। ফেডারেশন এবং আর্টিস্ট ফোরামের তরফে গত ৭ জুলাই একটা চুক্তিপত্রে আমরা সই করেছিলাম। যেখানে বকেয়া টাকা মিটিয়ে দেওয়ার কথা ছিল। আর্টিস্ট ফোরামের তরফে আমরা অনুরোধ করেছিলাম কাজটা শুরু হোক। কিন্তু পরে অনেকে বলেছেন আমরা ওই চুক্তি মানি না। সেই সময় তো তাঁরা বলতে পারতেন।’’

এ ছাড়াও এ দিনের সাংবাদিক বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়, অরিন্দম গঙ্গোপাধ্যায়, শঙ্কর চক্রবর্তী প্রমুখ। ছিলেন তৃণমূল নেতা স্বরূপ বিশ্বাসও। আর্টিস্ট ফোরামের তরফে অরিন্দম গঙ্গোপাধ্যায় বলেন, ‘‘বেশ কিছু প্রযোজক শিল্পীর ন্যায্য পাওনা কেটে সেটা পরে জমা করছেন না।’’

Advertisement

আরও পড়ুন, শুটিং বন্ধ, ব্যাঙ্কিং রয়েছে কিনা জানি না, বলছেন মধুমিতা

অন্য দিকে স্বরূপ বিশ্বাস বলেন, ‘‘ফেডারেশন এবং আর্টিস্ট ফোরামের তরফে অনুরোধ করছি, কাজটা শুরু হোক। কোটি কোটি দর্শক বঞ্চিত হচ্ছেন।’’ সোমবারের সাংবাদিক বৈঠকের পরে রাত পর্যন্ত অচলবস্থা কাটেনি। ফলে ধারাবাহিকের সম্প্রচার এখন প্রশ্নের মুখে।

আর্টিস্ট ফোরামের মূল অভিযোগ, বেশ কিছু ধারাবাহিকের অভিনেতা এবং টেকনিশিয়ানদের পারিশ্রমিক বকেয়া রয়েছে। তা না মেটানো পর্যন্ত শুটিংয়ে অংশ নিতে চাননি তাঁরা। অভিযোগ, মাসের ১৫ তারিখের মধ্যে পারিশ্রমিক দেওয়ার কথা প্রযোজক সংস্থার। কিন্তু বেশ কিছু হাউস নাকি সেই নিয়ম মানছে না।

এ দিন এই গোলযোগের মধ্যেই মুখ খুলেছেন প্রযোজকেরাও। সোমবার সন্ধ্যায় প্রযোজকদের তরফে এক প্রেস বিবৃতি দেওয়া হয়। সেখানে তাঁরা আর্টিস্ট ফোরামের দাবিকে সম্পূর্ণ অন্যায্য বলেছেন। প্রযোজকদের দাবি, ১৫ অগস্ট ব্যাঙ্ক বন্ধ থাকায় কলাকুশলীদের বকেয়া বেতন দেওয়া সম্ভব হয়নি। কিন্তু তা যে মিটিয়ে দেওয়া হবে এ কথা ই-মেল মারফত প্রত্যেককে জানানো হয়েছে। তার পরও শনিবার থেকে শুটিং বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে আর্টিস্ট ফোরাম। এতে তাদের বিপুল আর্থিক ক্ষতি হচ্ছে বলে দাবি।

তবে শুটিং বন্ধ থাকাটা ভাল চোখে দেখছেন না বর্ষীয়ান অভিনেত্রী মাধবী মুখোপাধ্যায়। বরং গোটা ঘটনায় তিনি ইন্ডাস্ট্রির ভবিষ্যতের জন্য আশঙ্কার কালো মেঘ দেখছেন। তিনি বলেন, ‘‘আর্টিস্ট ফোরামের যে দাবি, টাকা সময়মতো দেওয়া বা নির্দিষ্ট সময়ে কাজ করানো, সবটাই যুক্তিসঙ্গত। কিন্তু এই প্রোডাকশন হাউজ টাকা ঢালে বলেই আমরা সবাই কাজ করতে পারি। টেকনিশিয়ানরা প্রোডাকশন হাউজ তৈরি করে কাজ করছে, সেটা তো কখনও হয়নি, হবেও না। স্ট্রাইক করে অনেক ইন্ডাস্ট্রি নষ্ট হয়েছে আগে। এটাও তেমন হবে না তো?’’

আরও পড়ুন, ‘ব্যাঙ্কিং না থাকলে কী হবে? খুব ভয় লাগছে’

আবার পারিশ্রমিক বা কাজ পাওয়া নিয়ে ইন্ডাস্ট্রির অন্য সমস্যার কথা তুলে ধরলেন অভিনেত্রী কনীনিকা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি শেয়ার করলেন,‘‘যে ভাবে সিরিয়াল পাড়ায় কাজ হয় সেটা একেবারেই ঠিক নয়। প্রযোজক, আর্টিস্ট কারও দিক থেকেই নয়। দেখুন, মূল চরিত্র যিনি করেনতিনি অন্য সিরিয়াল করতে পারেন না। আবার একদল আছেনযাঁরামূল চরিত্র করেন না, তাঁরা কিন্তু তিনটে সিরিয়াল করতে পারছেন। কে একটা করবে আর কে তিনটে, সেটা প্রযোজকের সঙ্গে ব্যক্তিগত সম্পর্কের নিরিখে তৈরি হয়। সবার ক্ষেত্রে যাতে একটা নিয়ম হয় সেটার জন্যই এই স্ট্রাইক। এর সমাধান হওয়া দরকার। মধ্যস্থতা করে সবটা পেশাদার করা দরকার।’’


‘সাত ভাই চম্পা’র মতো ধারাবাহিকের শুটিংও বন্ধ।

অভিনেতা ভরত কলের দাবি, ‘‘ধর্মঘট এখনই উঠবে না। শুটিং শুরু হচ্ছে না। আমরা ওভারটাইমের পেমেন্ট দাবি করেছিলাম। প্রসেনজিত্ চট্টোপাধ্যায়, সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের মতো ব্যক্তিত্বরা আমাদের সঙ্গে রয়েছেন।’’ কিন্তু অনেক অভিনেতাই কল টাইমের অনেক পরে ফ্লোরে আসেন। তাঁদের ক্ষেত্রে ওভারটাইমের কী ব্যখ্যা? পাল্টা এ প্রশ্ন করা হলে ভরত বলেন, ‘‘অনেক প্রযোজক তো ছ’মাস টাকাই দেননি...।’’

আরও পড়ুন, মানিয়া এখন বলিউডি নায়িকা মৌনী, মনে তাঁর তবু কোচবিহার

সোমবার দু তরফের সাংবাদিক বৈঠকের পর জানা গিয়েছে, কাল, মঙ্গলবার বিভিন্ন চ্যানেল কর্তৃপক্ষের সঙ্গে বৈঠক করবেন স্বরূপ বিশ্বাস। অন্য দিকে, শিল্পীদের সঙ্গে নাকি দেখা করবেন প্রসেনজিত্ চট্টোপাধ্যায়। যে হেতু আর্টিস্ট ফোরামের সাংবাদিক বৈঠকে আজ স্বরূপ বিশ্বাস হাজির ছিলেন, তাই কোনও কোনও মহলে প্রশ্ন উঠছে, তিনি কি শেষমেশ প্রযোজকদের বিরুদ্ধেই মাঠে নামলেন? যদিও রাত পর্যন্ত এ নিয়েও নানা মহলে বিভিন্ন প্রশ্ন আছে।

কখনও বকেয়া পারিশ্রমিকের দাবি, কখনও বা কাজের নির্দিষ্ট সময়সীমা— এ সব নিয়ে ধর্মঘটের জেরে শুটিং আদৌ কবে থেকে ফের শুরু হবে, তারই উত্তর খুঁজছেএই ইন্ডাস্ট্রির সঙ্গে জড়িত সব মহলই।

(টলিউডের প্রেম, টলিউডের বক্ল অফিস, বাংলা সিরিয়ালের মা-বউমার তরজা - বিনোদনের সব খবর আমাদের বিনোদন বিভাগে। )

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.