কর্ণ জোহরের বাড়ির পার্টি নিয়ে তর্ক-বিতর্ক চলছেই। গত শনিবার রাতে কর্ণের পার্টিতে উপস্থিত ছিলেন দীপিকা পাড়ুকোন, রণবীর কপূর, বরুণ ধওয়ন, ভিকি কৌশলের মতো বলিউড সেলেবরা। কর্ণ নিজের সোশ্যাল মিডিয়ায় পার্টির একটি ভিডিয়ো পোস্ট করেছিলেন। সেখান থেকেই বিতর্ক দানা বাঁধে। 

শিরোমণি আকালি দলের নেতা মজিন্দর সিরসা টুইট করেন, #উড়তা বলিউড ফিকশন বনাম রিয়্যালিটি লিখে। তাঁর বক্তব্য, পার্টিতে তারকারা সকলেই ড্রাগ নিয়েছিলেন। সেই পোস্টের বিরুদ্ধে মুখ খোলেন জাতীয় কংগ্রেসের নেতা মিলিন্দ দেওরা। তাঁর বক্তব্য, ‘‘ইচ্ছে করে ভুল খবর ছড়ানো হচ্ছে। আমার স্ত্রী ওই পার্টিতে উপস্থিতি ছিলেন। সেখানে কেউ নেশাগ্রস্ত ছিলেন না।’’ মিলিন্দ দাবি করেন, মজিন্দর সিরসার ক্ষমা চাওয়া উচিত। তবে মজিন্দর পাল্টা জানিয়ে দেন, তিনি ক্ষমা চাইবেন না। একটি ভিডিয়ো পোস্ট করে বলেন, ‘‘আমি মিলিন্দ দেওরার পরিবারের কাউকে চিনি না। তবে হলফ করে বলতে পারি ওই পার্টিতে ড্রাগ নেওয়া হচ্ছিল। বলিউড সেলেবদের এই দিকটা মানুষের সামনে আনা উচিত। যারা মাদক নেয়, তাদের স্থান সমাজে নয়, জেলে।’’

কর্ণ জোহরের বাড়ির পার্টি নিয়ে অনেক রকম গুঞ্জনই রয়েছে। এর আগেও শোনা গিয়েছে ওই পার্টিতে উপস্থিতদের মাদক ব্যবহারের কাহিনি। দুই রাজনীতিকের বক্তব্যকে ঘিরে টুইটারে তরজা শুরু হয়ে গিয়েছে। এক নেটিজ়েন আবার একটি ছবি দিয়ে প্রমাণ করার চেষ্টা করেছেন, সেখানে সেলেবরা মাদক নিচ্ছিলেন। 

বিতর্ক এখন বলিউডের গণ্ডি ছাড়িয়ে রাজনীতির আঙিনায়। মিলিন্দ কংগ্রেসের নেতা আর মজিন্দর এনডিএ জোটভুক্ত শিরোমণি আকালি দলের। তার উপরে ওই পার্টিতে উপস্থিতরা প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর ঘনিষ্ঠ বলেই সকলে জানেন। সুতরাং এই বিতর্ক সহজে থামার নয়। 

সে দিন ওই পার্টিতে ছিলেন মালাইকা অরোরা, অর্জুন কপূর, শাহিদ কপূর, মীরা রাজপুত, জ়োয়া আখতার এবং শাহরুখ খানও। সেই ভিডিয়োয় শাহরুখকে দেখা যায়নি। তবে পার্টিতে উপস্থিত সেলেব বা কর্ণ... কেউই এ নিয়ে কোনও মন্তব্য করেননি।