Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

০৮ ডিসেম্বর ২০২১ ই-পেপার

চুক্তি করে নিক্তি মেপে

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ২৩ জানুয়ারি ২০২১ ০৫:০৪
দীপিকা

দীপিকা

আমেরিকার এক ট্যালেন্ট এজেন্সির সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হলেন দীপিকা পাড়ুকোন। অলিভিয়া কোলম্যান, ইউজিন লেভির মতো বহু হলিউড তারকা চুক্তিবদ্ধ আমেরিকান এই ট্যালেন্ট এজেন্সি আইসিএমের সঙ্গে। আইসিএমের ওয়েবসাইটে লেখা, ‘‘আমরা অস্কার, এমি, গোল্ডেন গ্লোব সম্মানে সম্মানিত অভিনেতাদের রিপ্রেজ়েন্ট করি। হলিউডের কিছু সম্মানজনক বিখ্যাত নামও আছে সেই তালিকায়। এই প্রজন্মের নতুন মুখেরাও রয়েছে আমাদের ক্লায়েন্টের তালিকায়।’’ এই আইসিএমের সঙ্গেই চুক্তি হয়েছে দীপিকার। ফলে আন্তর্জাতিক স্তরের ছবিতে সুযোগ পাওয়ার সম্ভাবনাও বেড়ে গিয়েছে। এর আগে হলিউডে ‘এক্স এক্স এক্স: রিটার্ন অব জ়্যান্ডার কেজ’-এ অভিনয় করেছেন তিনি। তবে দীপিকার বক্তব্য, ‘‘ভারতীয় নাকি আন্তর্জাতিক, তার ভিত্তিতে আমি ছবির ভাগ করি না। যে ছবির মাধ্যমে নিজেকে প্রকাশ করতে পারব, সে দিকে আমার আগ্রহ। সেটা আমেরিকা বা তার বাইরে পৃথিবীর যে কোনও প্রান্তে হলেও আমি খুশি।’’

তবে এই প্রথম নয়। এর আগেও প্রিয়ঙ্কা চোপড়া, হৃতিক রোশন, রণদীপ হুডা-সহ বহু ভারতীয় অভিনেতা চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন এমন এজেন্সির সঙ্গে। এতে বলিউডের অভিনেতাদের কাছে হলিউডের দরজা খুলে যাচ্ছে। ‘রমন রাঘব ২.০’ মুক্তির সময়ে এক সাক্ষাৎকারে নওয়াজ়উদ্দিন সিদ্দিকি বলেছিলেন, ‘‘বলিউডের অভিনেতারা ট্যালেন্টের জন্য নয়, বরং তাঁদের বিদেশি এজেন্টদের জন্যই হলিউডে সুযোগ পাচ্ছেন। অনেকে দশ বছরের বেশি সময় ধরে এমন সব সংস্থার সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ।’’ আগেও বলিউড তারকাদের চুক্তিবদ্ধ হতে দেখা গিয়েছে। তবে অতিমারি পরবর্তী সময়ে তা যেন ট্রেন্ড তৈরি করছে। হলিউডে ছবি পাওয়ার সঙ্গে-সঙ্গেই তারকাদের আন্তর্জাতিক ফ্যানবেসও তৈরি হয়ে যাচ্ছে। হলিউডের কয়েকটি প্রজেক্ট পাওয়া মানে পারিশ্রমিকের অঙ্কও বৃদ্ধি।

কিন্তু ভারতীয় তারকাদের সঙ্গে এই চুক্তির পিছনে কারণ কী? অনেকের মতে, ভারতের বাজার ধরতেই হলিউড এজেন্সিগুলির এই পদক্ষেপ। অতিমারির সময়ে ওটিটির ব্যবসায় সিংহভাগ অবদান রয়েছে ভারতীয় দর্শকের। সেখানে আন্তর্জাতিক স্তরের ছবিতে একজন বলিউড তারকার উপস্থিতি ছবির বাজার প্রসারের সম্ভাবনা বাড়িয়ে দেবে প্রায় দ্বিগুণ। সাধারণত বিদেশি এই এজেন্সিগুলি এমন তারকাদের সঙ্গেই চুক্তিবদ্ধ হন, যাঁদের সোশ্যাল ইনফ্লুয়েন্সার হিসেবে ভূমিকা রয়েছে। ফলে লাভবান দুই পক্ষই।

Advertisement

আরও পড়ুন

Advertisement