Advertisement
০৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৩
dev

Dev and Paran Bandopadhyay: প্রথমে জানলাম দেবের বিয়ে! এখন শুনছি, ২৪ ডিসেম্বর আমি বিয়ে করব শকুন্তলাকে: পরাণ 

প্রেক্ষাগৃহ কি আপাতত দেব অধিকারীর দখলে? তারকার পরপর ছবি যে সে দিকেই ইঙ্গিত করছে!

দেব-পরাণের জুটি

দেব-পরাণের জুটি

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা শেষ আপডেট: ১৫ নভেম্বর ২০২১ ১৮:৩৯
Share: Save:

প্রেক্ষাগৃহ কি আপাতত দেব অধিকারীর দখলে? তারকার পরপর ছবি যে সে দিকেই ইঙ্গিত করছে!

Advertisement

পুজো-মুক্তি ‘গোলন্দাজ’ বাণিজ্যে সফল। সম্প্রতি তার হিন্দি ভাষান্তরও দেখা যাচ্ছে প্রেক্ষাগৃহে। সেই রেশ থাকতে থাকতেই ২৪ ডিসেম্বর মুক্তি পাচ্ছে সাংসদ-তারকার বহু প্রতীক্ষিত ছবি ‘টনিক’। এই ছবি দিয়েই বড় পর্দায় প্রথম পরিচালনা অভিজিৎ সেনের। প্রযোজনায় অতনু রায়চৌধুরী এবং প্রণব কুমার গুহ।

দেবের পরেই এ ছবির আকর্ষণ পরাণ বন্দ্যোপাধ্যায়-শকুন্তলা বড়ুয়া। তাঁদের ঘিরেই এগিয়েছে ছবির গল্প। বিয়ের কার্ডে অভিনব প্রচারের জোয়ারে একটা সময়ে দেব-অনুরাগীরা গুলিয়ে ফেলেছিলেন কার বিয়ে হতে চলেছে? দেব, না পরাণ-শকুন্তলার!

ছবি মুক্তির মুখে দাঁড়িয়ে ফিরে দেখা যাক তার খুঁটিনাটি। কেমন ছিল শ্যুটিংয়ের দিনগুলো? জানতে আনন্দবাজার অনলাইন যোগাযোগ করেছিল পরাণ বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে। প্রশ্ন শুনেই আবেগে ভাসলেন প্রবীণ অভিনেতা। বললেন, ‘‘যেমন দুষ্টু, তেমনই মিষ্টি ছেলে দেব। বাণিজ্যিক ধারার ছবিতে যথেষ্ট জনপ্রিয়। তবু অহঙ্কার নেই। চেনা ছক থেকে একটু সরে অন্য ধারার গল্প বলবে টনিক। ফলে, ‘টনিক’ হয়ে ওঠার আগে দেব নিজেকে অদ্ভুত ভাবে ভেঙেছে। যেখানে পারত না, সোজা বলত, ‘‘পরাণদা একটু দেখিয়ে দেবে, কী ভাবে অভিনয় করব?’’’

স্মৃতি হাতড়াতে হাতড়াতে পরাণ নিজেই মনে করালেন বিয়ের কার্ডের গল্পও। ‘‘শ্যুটের অবসরে বসে আছি। দেব পাশে বসে বলল, ‘‘দেখো, এ ভাবে প্রচার করছি।’’ বিয়ের কার্ড দেখে আমার চোখ কপালে! বললাম, ‘‘এ কী রে! এ যে তোর বিয়ের কার্ড!’’, বক্তব্য পর্দার ‘জলধর সেন’-এর। তত ক্ষণে নাকি দেবের ‘দেবী’র বাড়ি থেকেও ফোন এসেছে। ‘‘এ ভাবে কাউকে কিছু না জানিয়ে বিয়ের ঘোষণা করে কেউ?’’, অস্বস্তি তাঁদের! সংবাদমাধ্যমে ঢি ঢি পড়ে গিয়েছে। এর কিছু দিন পরে দেব আবারও কার্ড ছাপালেন। এ বার পরাণ বন্দ্যোপাধ্যায় বিয়ে করছেন শকুন্তলা বড়ুয়াকে! ফের এক দফা শোরগোল।

Advertisement

শেষ পর্যন্ত কে, কাকে বিয়ে করছেন? ‘‘এখনও পর্যন্ত ঠিক, ২৪ নভেম্বর বড় পর্দায় আমি শকুন্তলাকে বিয়ে করছি’’, হাসতে হাসতেই বললেন পরাণ।

ছবিতে প্রথমে ছিলেন স্বাতীলেখা সেনগুপ্ত। পরে সেই জায়গায় আসেন শকুন্তলা। ছবির গল্প নাকি উইনডোজ প্রোডাকশনের ‘বেলা শুরু’র গল্পের ছায়ায় তৈরি। একেবারে শুরুতেই এই বিতর্কে বিদ্ধ হয়েছিল ‘টনিক’। দেবের সঙ্গে অতনুর প্রথম ছবি ‘সাঁঝবাতি’ মুক্তির আগেও যেমন শোনা গিয়েছিল, ‘গোত্র’ ছবির সঙ্গে তার প্রচণ্ড সাদৃশ্য রয়েছে। ছবি মুক্তির আগে সে সব নিয়ে কী বলছেন প্রযোজক? অতনুর কথায়, ‘‘এ রকম বিতর্ক অনেক তৈরি হয়। ছবি না দেখলে দর্শক বুঝবেন কী করে, অন্য ছবি দেখে অনুপ্রাণিত নাকি নতুন গল্প বলতে চলেছে ‘টনিক’?’’ তাঁর আশা, এই ধরনের ঘরোয়া ছবি ভাল লাগবে সকলের।

ছবিতে দেব, পরাণ বন্দ্যোপাধ্যায়, শকুন্তলা বড়ুয়া ছাড়াও রয়েছেন সুজন মুখোপাধ্যায়, কণীনিকা বন্দ্যোপাধ্যায়, বিশ্বজিৎ চক্রবর্তী, রজতাভ দত্ত, বিশ্বনাথ বসু প্রমুখ। প্রথম ছবিতেই এত জন তারকা, অভিনেতা। সামলাতে নাকি একটুও কষ্ট হয়নি পরিচালক অভিজিৎ সেনের। তাঁর দাবি, প্রত্যেকে তাঁকে প্রচণ্ড সাহায্য করেছেন। ফলে, সকলের সদিচ্ছায় কাজটি মসৃণ ভাবে হয়ে গিয়েছে। অতিমারি তুলনায় নিয়ন্ত্রণে এসেছে। প্রেক্ষাগৃহে দর্শকও ফিরছেন। প্রথম ছবি নিয়ে কতটা আশাবাদী অভিজিৎ? পরিচালকের দাবি, ‘‘সকলেই ঘরোয়া ছবি দেখতেই ভালবাসেন। ‘টনিক’ সেই জায়গায় দাঁড়িয়ে সম্পর্কের নতুন স্তর তুলে ধরবে। যা হলমুখী করবে দর্শককে।’’

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.