×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

২৪ জুলাই ২০২১ ই-পেপার

দীর্ঘ দিন পরে জুটি বাঁধছেন দেব এবং শ্রাবন্তী

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ১৭ এপ্রিল ২০২১ ০৬:৩০
দেব ও শ্রাবন্তী

দেব ও শ্রাবন্তী

কিশোরকুমারের কণ্ঠে ‘অমানুষ’ ছবির জনপ্রিয় গান ‘কী আশায় বাঁধি খেলাঘর...’ লীনা গঙ্গোপাধ্যায় ও শৈবাল বন্দ্যোপাধ্যায় পরিচালিত ‘খেলাঘর’ ছবির নির্যাস যেন গানের ওই লাইনটার মধ্যেই রয়েছে। আধুনিক সমাজে নারী-পুরুষের সম্পর্কের ক্রাইসিসের গল্প বলবে ‘খেলাঘর’। ছবির কাস্টিংয়েও বড় চমক। প্রথম বার দেব, শ্রাবন্তী এবং পাওলি দাম একসঙ্গে কাজ করবেন।

লীনা-শৈবালের আগের দু’টি ছবি ‘মাটি’, ‘সাঁঝবাতি’ সম্পর্কের গল্প বলে। ‘খেলাঘর’ও তাই। ছবির কনসেপ্ট প্রসঙ্গে লীনার বক্তব্য, ‘‘আমি সম্পর্কের গল্প বলতে ভালবাসি। নারী-পুরুষের সম্পর্কে অনেক পরত থাকে। তাই সম্পর্কের কাহিনি পুরনো হয় না।’’ মূলত তিনটি চরিত্রের মধ্যেই গল্প ঘুরবে। একটি পুরুষ এবং দুই মহিলা চরিত্র থাকলে, ত্রিকোণ প্রেমের ধারণা আসাই স্বাভাবিক। দেব, শ্রাবন্তী, পাওলির সম্পর্কের সমীকরণ ঠিক কেমন, তা এখনই ভাঙতে চাইলেন না পরিচালক। ‘সাঁঝবাতি’তে দেবের পারফরম্যান্স নির্মাতাদের ভরসা দিয়েছে। তাই ‘খেলাঘর’-এ ফের তাঁকে চ্যালেঞ্জিং চরিত্র দিয়েছেন লীনা। ছবির প্রযোজক অতনু রায়চৌধুরীও আস্থা রাখেন, সম্পর্কের কাহিনিতে, ‘‘সব ধরনের দর্শককে বিনোদন দিতে হলে ফ্যামিলি ড্রামার বিকল্প নেই।’’

চরিত্রটি ফুটিয়ে তোলার চ্যালেঞ্জ নিয়েছেন দেবও। ‘‘এত বছরের কেরিয়ারে এ রকম চরিত্র আগে কোনও দিন পাইনি। লীনাদি, শৈবালদার একটা ধারা তো আছেই। ওরা যে চরিত্রগুলো লেখে, তাতে অভিনয়ের সুযোগ থাকে,’’ চরিত্রটি নিয়ে এর বেশি কিছু বলতে চাইলেন না তিনি।

Advertisement

শ্রাবন্তীর সঙ্গে এই প্রথম বার কাজ করবেন লীনা। বলছিলেন, ‘‘অন্য ধারার দু’-একটি ছবিতে শ্রাবন্তীর অভিনয় দেখে মনে হয়েছিল, ও পারবে।’’ ছবিটি নিয়ে উচ্ছ্বসিত শ্রাবন্তীও। দীর্ঘ দিন বাদে আবার দেবের সঙ্গে জুটি বাঁধছেন তিনি। ‘‘খুব বলিষ্ঠ চরিত্র। ছবিতে আমি একটি বাচ্চার মা। এক দিকে মা ও অন্য দিকে স্ত্রী হিসেবে চরিত্রটির টানাপড়েন খুব সুন্দর ভাবে গল্পে বোনা হয়েছে। দেবের সঙ্গেও এত দিন পরে কাজ করব বলে দারুণ লাগছে।’’

রাজনীতির ময়দানে যদিও দুই অভিনেতা যুযুধান শিবিরের মুখ। ছবির শুটিং শুরুর সময়ে নির্বাচনের ফল বেরিয়ে যাবে এবং স্বাভাবিক ভাবেই এক পক্ষ জয়ী হবে। তখন কি কোথাও অভিনেতা সত্তাকে ছুঁয়ে যাবে না আপনাদের রাজনৈতিক সত্তা? উত্তরে দেব এবং শ্রাবন্তী দু’জনেই জোরের সঙ্গে বললেন, সেটা কোনও ভাবেই হবে না। শ্রাবন্তীর কথায়, ‘‘আমরা পরস্পরকে চিনেছি অভিনয়ের সূত্রে। বহু হিট ছবি দিয়েছি। আর দুটো জায়গা আলাদা, তাকে মেলানো যায় না। ইনফ্যাক্ট আমার সঙ্গে দেবের কথাও হয়েছে।’’ এ প্রসঙ্গে দেব মজা করে বললেন, ‘‘শ্রাবন্তীর নামটা আমিই সাজেস্ট করেছিলাম অতনুদাকে।’’ দেব অবশ্য বরাবরই তাঁর রাজনীতিকে অভিনয় জগতের থেকে আলাদা রাখতে চেষ্টা করেছেন, ‘‘পলিটিক্যাল আইডিয়োলজি যেন কাজে প্রভাব না ফেলে, সেটা দেখা শিল্পীদেরও দায়িত্ব। তাই তারা কোথায় কী বলছে, সেটা খুব ভেবেচিন্তে বলা উচিত। আমি নেগেটিভ কথা বলি না, কারণ মানুষ সেটা শুনতে পছন্দ করে না। আর এখন তো ভাগাভাগিটা খুব স্পষ্ট। তাই অন্য দলের লোকের সঙ্গে কাজ করতেই হবে। ইলেকশনটা মিটে গেলে এটাই দেখার যে, কে কতটা ‘রং’ নিয়ে ঘুরছে। তবে আশা রাখব, যে অভিনেতারা নতুন রাজনীতিতে এসেছে, তারাও যেন ইন্ডাস্ট্রিতে রাজনৈতিক রং না ঢোকায়।’’ দেব কারও সম্পর্কে নেতিবাচক কথা না বললেও, শ্রাবন্তী সে পথে হাঁটেননি। সেই প্রসঙ্গে তৃণমূলের তারকা সাংসদের জবাব, ‘‘ওরা নতুন, তাই দল যা বলছে, সেটাই করছে। আমাকেও দল নির্দেশ দিয়েছে। কিন্তু পরে আমাকে আমার মতো কাজও করতে দিয়েছে। কাউকে দোষ দিয়ে বড় হওয়া যায় না।’’

এই ছবিটিতে দেব শুধু মুখ্য চরিত্রে নন, অন্যতম প্রযোজকও। অতনুর বেঙ্গল টকিজ়ের সঙ্গে দেব এন্টারটেনমেন্টের এটি দ্বিতীয় প্রজেক্ট, ‘টনিক’-এর পরে। করোনা পরিস্থিতিতে ছবি তৈরি করা কতটা সমস্যার হয়ে দাঁড়াচ্ছে? অতনুর কথায়, ‘‘এক রকম পরিকল্পনা করছি। তার পর সেটা বদলে ফেলতে হচ্ছে। এতে বাজেটেও প্রভাব পড়ছে।’’ আগামী অগস্ট-সেপ্টেম্বর থেকে শুটিংয়ের পরিকল্পনা রয়েছে তাঁদের। দেবের ‘কিশমিশ’ আগামী শীতের ছুটিতে আসার কথা। ‘খেলাঘর’ ২০২২-এর জানুয়ারিতে রিলিজ়ের ইচ্ছে রয়েছে নির্মাতাদের।

Advertisement