Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২১ মে ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

Eid 2022: জোর টক্কর দেব-শুভশ্রী-জিতের! সলমন-হীন এ বারের ইদ কার দখলে?

২০২২-এর ইদ কি এত দিনের চেনা ছবি বদলে দিতে চলেছে? একচেটিয়া সলমনের বদলে জোর টক্করে দেব-শুভশ্রী-জিৎ?

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ২১ জানুয়ারি ২০২২ ১৮:৪২
Save
Something isn't right! Please refresh.
ভাগ্য খুলতে চলেছে বাংলা বিনোদন দুনিয়ার

ভাগ্য খুলতে চলেছে বাংলা বিনোদন দুনিয়ার

Popup Close


অতিমারি কি সব হিসেব ওলোটপালট করে দিতে চলেছে? এখনও পর্যন্ত বক্স অফিসের খবর, এ বছরের ইদে সলমন খানের কোনও ছবি-মুক্তি নেই। আর তাতেই সম্ভবত ভাগ্য খুলতে চলেছে বাংলা বিনোদন দুনিয়ার। ‘ভাইজান’ যুদ্ধক্ষেত্র থেকে দূরে। বাংলায় মুক্তি পাচ্ছে তিন সুপারস্টারের ছবি। দেব অধিকারীর ‘কিশমিশ’, শুভশ্রী গঙ্গোপাধ্যায়ের ‘ডা. বক্সী’ এবং জিতের ‘রাবণ’। মুক্তি পাবে দুই হিন্দি ছবিও। অজয় দেবগণের ‘হাইওয়ে ৩৪’। টাইগার শ্রফের ‘হিরোপন্তি ২’। তবে এই দু’টি ছবি তিনটি বাংলা ছবিকে ধরাশায়ী করে দেবে, এমন আশঙ্কা দেখছে না টলিউড।

বরং কৌতূহল, ২০২২-এর ইদ কি এত দিনের চেনা ছবি বদলে দিতে চলেছে? একচেটিয়া সলমনের বদলে জোর টক্করে দেব-শুভশ্রী-জিৎ?

আনন্দবাজার অনলাইন প্রশ্ন রেখেছিল যথাক্রমে রাহুল মুখোপাধ্যায়, সপ্তাশ্ব বসু এবং রাবণ-এর নায়িকা তনুশ্রী চক্রবর্তীর কাছে। রাহুল কিন্তু টক্করের ঘোর বিরোধী। বদলে তাঁর দাবি, ‘‘তিনটি ছবি যদি ভাল হয়, তিনটি ছবিই দর্শক দেখুক। আবার আগের মতো প্রেক্ষাগৃহে দর্শক ভিড় জমাক। তা হলে বাংলা বিনোদনে জোয়ার আসবে। আমরা তিন পরিচালকই প্রচুর খেটে ছবিগুলো বানিয়েছি।’’ আর যদি দর্শক ভাগাভাগি হয়ে যায়? রাহুলের মতে, সেটা তারকাদের ফ্যান ক্লাব ভাল বলতে পারবে। ব্যক্তিগত ভাবে সব ছবির সাফল্য কামনা করছেন তিনি নিজে।

Advertisement

সপ্তাশ্ব যদিও ছবি নিয়ে দারুণ আশাবাদী। এবং কিছুটা হলেও সমীহ করছেন ‘কিশমিশ’-কে। তাঁর যুক্তি, ‘‘ডা. বক্সী ভিন্ন ঘরানার। রহস্য-রোমাঞ্চে মোড়া। শুভশ্রীর সঙ্গে পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়, বনি সেনগুপ্ত-সহ অনেক তারকার ভিড়। সব বয়সের দর্শকের দেখার মতো ছবি। দেব-রুক্মিণীর ‘কিশমিশ’ও তাই। রাহুল তাঁর ছবিতে অনেক বাড়তি ট্রিটমেন্ট দিয়েছেন। দেবের একাধিক বিশেষ সাজ রয়েছে। যা দেখতে দর্শক ভিড় করবেই। তা ছাড়া, সদ্য ‘টনিক’ হিট করেছে। তাই টক্কর না হলেও দর্শক ভাগাভাগি বা সুস্থ প্রতিযোগিতার একটা সম্ভাবনা রয়েইছে।’’ সপ্তাশ্ব আরও জানিয়েছেন, ডা. বক্সী বাংলার পাশাপাশি মুক্তি পাবে মুম্বই, পুণে, বেঙ্গালুরু, অস্ট্রেলিয়া সহ গোটা বিশ্বে। ফলে, প্রতিযোগিতা হলে তিনি খুশিই হবেন। তাঁর ব্যাখ্যা, “বহু দিন পরে বাংলা ছবির দুনিয়ায় ‘টক্কর’ শব্দটি আবার ব্যবহৃত হচ্ছে। শুনে মন ভরে যাচ্ছে।” আর জিতের ‘রাবণ’ নিয়ে সপ্তাশ্বের দাবি, অভিনেতার অনুরাগীরা একটু আলাদা। তাঁরা জিতের অ্যাকশন অবতারের পূজারী। জিতও বহু দিন পরে সেই ধারার ছবিই বানাতে চলেছেন। তাই তিনি তাঁর মতো করে ব্যবসা করবেন। জিতের অনুরাগীরা সাধারণত দেব বা শুভশ্রীর ধাঁচের ছবি কমই দেখেন।

‘রাবণ’ নিয়ে আশাবাদী ছবির নায়িকা তনুশ্রী। অভিনেত্রী করোনা-আক্রান্ত। এখনও সম্পূর্ণ সুস্থ নন। শ্বাসকষ্ট রয়েছে। তার মধ্যেই জানালেন, তিনি তিনটি ছবিরই মঙ্গলকামনা করছেন। আন্তরিক ভাবে চাইছেন, তিনটি ছবিই সবাই দেখুক। ভাল ব্যবসা করুক। কারণ অনেক দিন বাংলা বিনোদনের বাজারে মন্দা চলছে। পাশাপাশি নায়িকা এ-ও বলেছেন, ‘‘ছবিতে আমি মুসলিম চরিত্রে অভিনয় করেছি। এই ধরনের চরিত্রে এর আগে অভিনয় করিনি। তার উপরে জিৎদার সঙ্গেও প্রথম জুটি। ওঁর আলাদা অনুরাগীর দল রয়েছেন। সব মিলিয়ে মনে হচ্ছে ‘রাবণ’ জমিয়ে দেবে।’’



Something isn't right! Please refresh.

আরও পড়ুন

Advertisement