• স্রবন্তী বন্দ্যোপাধ্যায়
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

শর্বরীদি যেখানেই থাকুন আমার বিয়ের সময় ওঁর তৈরি ধুতি-পাঞ্জাবি হাজির হয়ে যাবে নিশ্চয়: বিক্রম

আনন্দবাজার ডিজিটালে প্রথম প্রকাশ পেল মৃত্যুর পর শর্বরী দত্তের উইন্টার কালেকশন

Bikram Chatterjee and Sharbari Dutta
শর্বরী দত্তের ভাবনাতে সেজে উঠতে বরাবরই ভালবাসেন বিক্রম।

ওই তো তাঁর নিজে হাতে আঁকা গোন্দা আর্টের মোটিফ। পাশেই গরদের উপর সুন্দর মোটিফের শাড়ি। কলকাতার শীতে বাংলার তসরে মঙ্গোলিয়ান আর মিশরীয় ভারী কাজের পাঞ্জাবি, অন্য দিকে পার্টির জন্য নেট মঙ্গোলিয়ান মোটিভের শাড়ি।

সব আছে!

পছন্দের বিক্রম চট্টোপাধ্যায় হাজির তাঁর প্রিয় বন্ধ গলা বা আচকান পরে ছবির জন্য।

নেই শুধু তিনি। শর্বরী দত্ত। মৃত্যুর ঠিক আগেই কথা ছিল বিক্রমের সঙ্গে শ্যুট করার। সেই ইচ্ছেপূরণ হল এমন সময় যখন কলকাতায় শীত আসছে আসছে।

বাঙালিয়ানার মধ্যে একটা এক্স ফ্যাক্টর কাজ করে। সেই এক্স ফ্যাক্টরকে বার বার প্রাচ্য আর পাশ্চাত্যের মিশেলে নতুন বুনোটে হাজির করেছেন শর্বরী দত্ত। ঈর্ষণীয় তাঁর ক্লায়েন্টেল। কপিল দেব থেকে ঐশ্বর্যা রাই বচ্চন।

তিনি চলে গেলেও আছে তাঁর প্রচুর কাজ। তাঁরই ভাবনায় এ বার শর্বরী দত্তের ‘শূন্য’-র নতুন উইন্টার কালেকশন ‘ব্ল্যাক থান্ডার’ লঞ্চ করল। এই কালেকশন প্রথম এল আনন্দবাজার ডিজিটালের কাছে। ‘শূন্য’-র পক্ষ থেকে রেশমী বাগচী বললেন, ‘‘শর্বরীদি মানেই নানা রং। এ বার কালো নিয়ে কাজ করছিলেন। মঙ্গোলিয়ান জীবনযাত্রার ছবি আনতে চেয়েছিলেন বাংলার ফ্যাব্রিকে। বলেছিলেন মঙ্গোলিয়ানরা কী ভয়ঙ্কর ভাবে জীবন কাটাচ্ছে। খানিকটা এখন যেমন কোভিডের সময় আমরা।’’

শর্বরীদির পোশাক পরে যেমন খুশি, তেমনই মনখারাপ বিক্রমের।

পুরুষের ধুতি পাঞ্জাবি থেকে মেয়েদের কুর্তা শাড়ি নতুন মোড়কে শীতের কলকাতার ছোট ছোট পার্টি জমিয়ে দেবে। শ্যুটের মধ্যেই বিক্রম যেমন বলছিলেন, ‘‘শর্বরীদি বলেছিলেন আমি বিয়ে করলে আমার সব পোশাকের দায়িত্ব ওঁর। সেই ‘এলার চার অধ্যায়’ থেকে ওঁর সঙ্গে আলাপ। পুরুষের ভিন্ন পোশাকে কেমন করে আত্মবিশ্বাসী হতে হয় তা উনিই কত আগে শিখিয়ে দিয়ে গিয়েছেন।’’

এথনিক পোশাকের শ্যুটের কথা হলেই শর্বরী দত্ত বিক্রমের কথা বলতেন বলে জানালেন রেশমী। শীতে বিয়েবাড়ির কথা মাথায় রেখে তৈরি হয়েছে নেট আর মঙ্গোলিয়ান আর্টের মিশেলে সেনসুয়াস শাড়ি। আছে কাঁথার কুর্তা। কালো ছাড়া মেয়েদের পোশাকে ফিরোজা আর পার্পলের ছোঁয়া আছে।

বিয়ে বদলেছে। অনেক ভিড়। ভীষণ ব্রাইট পোশাক নয়। ছোট জমায়েতে নজরকাড়া পোশাক। রেশমী বললেন, ‘‘লাল পেড়ে গরদে সুন্দর কারুকাজ। বিক্রমের আচকানের সঙ্গে মধ্যপ্রদেশের গোন্দ আর্টের আদলে কাজ করা ধুতি হতেই পারে বিয়েবাড়ির নতুন চমক। ইন্ডিয়ান কস্টিউমকে ক্যারি করার মধ্যে যে স্মার্টনেস লাগে সেটা দিদি বার বার বলতেন। শ্যুটের মধ্যে বার বার তাঁকে দেখতে পাচ্ছি।’’

আরও পড়ুন: অনির্বাণ-মধুরিমার বিয়েতে টলি সেলেবদের চাঁদের হাট, দেখুন ফোটো অ্যালবাম

এথনিক পোশাকের শ্যুটের কথা হলেই শর্বরী দত্ত বিক্রমের কথা বলতেন।

শর্বরীদির পোশাক পরে যেমন খুশি, তেমনই মনখারাপ বিক্রমের। বিয়ে হলে কী রং বাছবেন নিজের জন্য? বিক্রম বললেন, ‘‘আমার বিয়ে হলে শর্বরীদির ডিজাইনে সাদা বা অফহোয়াইট কিছু পরব। শর্বরীদি যেখানেই থাকুন আমার বিয়ের ধুতি পাঞ্জাবি হাজির হয়ে যাবে নিশ্চয়।’’

আরও পড়ুন: নুসরতকে হুমকি নিখিলের, ‘দরজা খুলে না বেরোলে পা ভেঙে রেখে দেব’!

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন