Advertisement
১৩ জুলাই ২০২৪
Samantha Prabhu

‘আমায় কে আর ভালবাসবে!’ বিবাহবিচ্ছেদের পর কার কাছে হতাশার কথা বলছেন সামান্থা?

২০২১ সালে সামান্থা এবং নাগা চৈতন্য সমাজমাধ্যমে তাঁদের বিবাহবিচ্ছেদের কথা ঘোষণা করেন। যদিও বৈবাহিক জীবনের সমস্যা নিয়ে মুখ খোলেননি তাঁরা। এর পর কি নতুন প্রেমের কথা ভাবছেন সামান্থা?

Fan suggests Samantha Prabhu should date someone, actor responds

অসুখে ভোগার পর সামান্থাকে হতাশা গ্রাস করছে দেখে এক ভক্ত অভিনেত্রীকে নতুন প্রেম করার পরামর্শ দিলেন।  — ফাইল চিত্র।

সংবাদ সংস্থা
মুম্বই শেষ আপডেট: ২৭ মার্চ ২০২৩ ১৮:২৩
Share: Save:

তারকাদের কাছে অনুরাগীদের ভালবাসার দাম রয়েছে। অনেক ক্ষেত্রে সাধারণের মতামতকেও গুরুত্ব দিয়ে বিবেচনা করেন তারকারা। অভিনেত্রী সামান্থা রুথ প্রভুর সঙ্গে টুইটারে তাঁর অনুরাগীদের নিয়মিত কথোপকথন হয়। অসুখে ভোগার পর সামান্থাকে হতাশা গ্রাস করছে দেখে এক ভক্ত অভিনেত্রীকে নতুন প্রেম করার পরামর্শ দিলেন।

অনেকেই এমন অযাচিত পরামর্শে বিরক্ত হন, অন্য রকম প্রতিক্রিয়া জানান। ‘দ্য ফ্যামিলি ম্যান ২’ অভিনেত্রী কিন্তু সহজ ভাবেই নিলেন বিষয়টা, উত্তরও দিলেন সুন্দর ভাবে। সামান্থাকে ট্যাগ করে একটি পুরনো ভিডিয়ো শেয়ার করে অনুরাগী লেখেন, “জানি, আমার বলা উচিত নয়, কিন্তু প্লিজ, কারও সঙ্গে ডেট করো তুমি।” ভিডিয়োটি দেখেন সামান্থা। রিটুইট করে লেখেন, “তুমি আমায় যেমন ভালবাসো, এমন কে বাসবে আর? ” এই উত্তর পেয়ে সেই অনুরাগী মুগ্ধ হয়ে যান।

এই সুযোগে সামান্থার প্রতি ভালবাসার কথা কবুল করেন অনুরাগী। লেখেন, “আমি? এত জনের ভিড়ে তুমি কি আর আমার আবেদন গ্রহণ করবে? ” সামান্থা অবশ্য এর জবাব দেননি। তবে অনুরাগীরা সমস্বরে বলেন, “আমরা সব সময় তোমার পাশে আছি। খুব ভালবাসি তোমায়!” ২০২১ সালে সামান্থা এবং নাগা চৈতন্য সমাজমাধ্যমে তাঁদের বিবাহবিচ্ছেদের কথা ঘোষণা করেন। যদিও বৈবাহিক জীবনের সমস্যা নিয়ে মুখ খোলেননি তাঁরা।

তাঁদের বিবাহবিচ্ছেদের পরে যখন ‘কফি উইথ কর্ণ’-র শোয়ে এসেছিলেন, কর্ণ জোহর জানতে চেয়েছিলেন, সমাজমাধ্যমে স্বামীর সঙ্গে তাঁর বিচ্ছেদ নিয়ে নানা মন্তব্য কি সামান্থার মনে কুপ্রভাব ফেলেছিল? শুধরে দিয়ে সামান্থা বলেছিলেন, “স্বামী নয়, বলো আমার প্রাক্তন স্বামী।” সামান্থা জানিয়েছিলেন, অনুরাগীদের সঙ্গে নিরন্তর সম্পর্ক রাখার পথ তিনি নিজেই বেছে নিয়েছেন। তাই সমাজমাধ্যমে তাঁর বিরুদ্ধে কথা উঠলে তিনি অভিযোগ করতে পারেন না। তিনি বলেন, “আমি অনুরাগীদের কাছে স্বচ্ছ থাকতে চেয়েছি, নিজের জীবনের অনেকটা প্রকাশ করতে চেয়েছি।”

সম্প্রতি মায়োসাইটিসের মতো স্নায়ুর জটিল রোগে ভুগছেন সামান্থা। বিদেশ থেকে চিকিৎসা করিয়ে এসে অনেকটাই সুস্থ। কাজও করছেন পুরোদমে। তবে হাঁপিয়ে যান, হতাশা আসে। সামান্থার মতে, সময়টা কঠিন কিন্তু ভাল। আগের চেয়ে অনেক বেশি শক্তিশালী হয়েছেন তিনি। অভিনেত্রীকে শেষ দেখা গেছে ‘যশোদা’য়, এখন তিনি মগ্ন ‘সিটাডেল’-এর ভারতীয় সংস্করণের কাজ নিয়ে। সিরিজ়ে তাঁর সহ-অভিনেতা বরুণ ধওয়ান। পরিচালক রাজ ও ডিকে। ‘খুশি’ এবং ‘শকুন্তলম’-এর মতো ছবির কাজও রয়েছে হাতে।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)
সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের মাধ্যমগুলি:
Advertisement

Share this article

CLOSE