• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

রেটিং বাড়া সত্ত্বেও কেন ইরাবতীর চুপকথা বন্ধ হল জানি না: মনামী

ইনস্টা বলছে শুট শেষ। শেষের পথে ধারাবাহিক। কী করে সময় কাটছে ‘ইরাবতী’র?

monami
মনামি।

ইনস্টা বলছে শুট শেষ। শেষের পথে ধারাবাহিক। কী করে সময় কাটছে ‘ইরাবতী’র?

আপাতত বিশ্রাম করে (হাসি)। নিজের সঙ্গে সময় কাটাচ্ছি। এই তো সবে একদিন শুট শেষ হল।


হাতে নিশ্চয়ই একগাদা অফার? সে সব বাছাবাছি চলছে?

হ্যাঁ, ডাক এসেছিল। একটা মেগা শেষ হওয়ার খবর ছড়ালে নানা প্ল্যাটফর্ম, চ্যানেল থেকে ডাক আসে। আমারও এসেছে। কিছু ডাক পছন্দ না হওয়ায় সাড়া দিইনি। আপাতত নিজের ইউ টিউব চ্যানেল নিয়ে খুব ব্যস্ত।


মনামীকে যদিও চুপচাপ কখনও বসে থাকতে দেখা যায় না...

(মুখের কথা কেড়ে নিয়ে) ওই সবই করছি, নন ফিকশন কাজে ব্যস্ত রেখেছি নিজেকে। একটা নতুন ওটিটি প্ল্যাটফর্ম আসার কথা। গত একমাস ধরে সেই সংস্থার সঙ্গে মিটিংয়ে বসছি। হয়তো ওদের মুখ হয়েই ফিরব। এছাড়া, অন্য আরেকটি ওটিটি প্ল্যাটফর্মে ডান্স রিয়েলিটি শো-এর বিচারক হওয়ার ডাক পেয়েছি। যদিও এখনও পুরোটাই আলোচনার স্তরে।

 হঠাৎ কেন বন্ধ হয়ে গেল ‘ইরাবতীর চুপকথা’?


নিউ নর্মাল পরিবেশের সঙ্গে ‘ইরাবতী’র মানিয়ে নেওয়ার সাক্ষী ছিল আনন্দবাজার ডিজিটাল...

(উচ্ছ্বসিত হাসি) মনে আছে। আমি মাঠে দাঁড়িয়ে ইন্টারভিউ দিয়েছিলাম।

তখনই কি ঠিক হয়ে গিয়েছিল, শেষের পথে মেগা? 
 

একেবারেই না। তখন অন্য একটি চ্যানেল থেকে কাজের অফার আসায় আমি স্টার জলসা চ্যানেল কর্তৃপক্ষের কাছে জানতে চেয়েছিলাম, খুব তাড়াতাড়ি ধারাবাহিক শেষের পথে কি না। তখন জেনেছিলাম, পুজোর আগে ‘ইরাবতী’ শেষ হওয়ার কোনও সম্ভাবনাই নেই।


রেটিং-ও খুব খারাপ ছিল না...

একেবারেই নয়। বরং, বিকেল ৫টার স্লটে নিয়ে আসায় রেটিং বেড়েছিল। দর্শকেরা আরুশির জীবনের প্রেম বেশ উপভোগ করছিলেন বলে শুনেছি।

তাহলে হঠাৎ করে বন্ধ হয়ে গেল ‘ইরাবতীর চুপকথা’?

(সাবধানী গলায়) আমি একদমই জানি না। এটা চ্যানেল আর হাউস বলতে পারবে।

চলতে চলতে হঠাৎ এ ভাবে থেমে যাওয়া... কষ্ট দিচ্ছে মনামিকে?

 খারাপ লাগা তো সব সময়েই থাকবে। সেটা এক সপ্তাহ আগে জানলেও, এক মাস আগে জানলেও। বিশেষ করে সেই ধারাবাহিক টানা দু’বছর চললে টান আরও বেড়ে যায়। সেখানে কষ্ট আরও বেশি। ভীষণ মিস করব শুটিং জোন, মেকআপ রুম, টেকনিশিয়ানদের। যাঁরা ইরাবতীর জন্মদিন, আরুশি ফিরেছে, টিআরপি বেড়েছে ‘মনামিদি খাওয়াও’ বলে আবদার জুড়তেন, তাঁদের। সন্ধেবেলায় আমি আর আমার ‘ঠাম্মু’ সুছন্দাদি একসঙ্গে বসে চা, মুড়ি খেতাম, শুটিংয়ের বাইরেও নানা কথা হত। সেগুলো আর হবে না।
 

অনেকে বলেন, ইরাবতীর সঙ্গে মনামীর নাকি মিল আছে?


লকডাউন, আনলক, নিউ নর্মাল তিনটে ফেজই দেখলেন। একজন অভিনেত্রী হিসেবে কোনটার সঙ্গে কী ভাবে মানিয়ে নিলেন?

 তিনটে তিন রকম। লকডাউনে পুরোপুরি বাড়িতে। সোশ্যালে অনুরাগীদের সঙ্গে যোগাযোগ থাকত। নাচ, গান, আঁকার মতো সৃষ্টিশীল কাজে সময় কাটিয়েছি। সেগুলো পোস্ট করেছি। সবাই প্রশংসা করতেন। ভাল লাগত। বসে থাকিনি কোনও দিন চুপ করে। আনলক পিরিয়ডে আবার শুটিং। তারই নতুন পর্যায় নিউ নর্মাল। সেই সময়টা আমাদের খুব সকাল সকাল কল, তিনটে চারটে-র মধ্যে প্যাক আপ। তার মধ্যে দশ, বারোটা সিন করা মানে কোথাও কোনও দাঁড়ানো, বসার টাইম নেই। সারাক্ষণ যেন ছুটতাম। অভিনয়ের সময় বাদে দূরত্ব মেপে চলা, কথা বলা, স্যানিটাইজেশন। প্রথম প্রথম ভয় ভয় করত। আস্তে আস্তে সবটাই অভ্যেস হয়ে গিয়েছিল। নিজেই নিজের মেকআপ, হেয়ার ডু, কস্টিউম পরে বাড়িতে নিয়ে গিয়ে কেচে পরের দিন আবার সেটা পরে আসা এবং শুট শেষে নিজের দায়িত্বে বাড়ি নিয়ে যাওয়া...নিউ নর্মাল দায়িত্ব অনেকটাই বাড়িয়ে দিয়েছিল।

 

প্রত্যেকটা চরিত্রই অভিনেতার মনে ছাপ ফেলে যায়। ‘ইরাবতী’ মনামিকে কী দিল?

২০১৮-য় শুরু ‘ইরাবতীর চুপকথা’। তখন যে ধরনের গল্প চলত তার থেকে ইরাবতী ভীষণ এগিয়ে। অনেকটাই ‘লৌহ মানবী’। ভীষণ মনের জোর। এ রকম একটা চরিত্র অভিনয় জীবনে একবারের বেশি পাওয়াও যায় না। অভিনয়ও করে ওঠা সম্ভব নয়। আমার জীবনে আমি যতগুলো ধারাবাহিক করেছি তাদের মধ্যে প্রথম পাঁচটা বাছতে বললে আমার সিভিতে ‘ইরাবতী’ সেই প্রথম পাঁচের তালিকায় থাকবে।

অনেকে বলেন, ইরাবতীর সঙ্গে মনামীর নাকি মিল আছে?

 

(আবার হাসি) মিল আছে...অমিল আছে।


কী কী মিল? অমিলই বা কোথায় কতটা?
আগে মিলের কথা বলি? চরিত্রের মতো আমিও বাড়ির সবার দায়িত্ব পালন করি। এখানে ইরা আর আমি যেন একাকার। ইরার মতো আমিও যথেষ্ট শক্ত মনের মানুষ। নেতৃত্ব দিতে পারি ওর মতো। তবে অমিলটাই বেশি। ইরা ঘোরতর সংসারী। দারুণ রাঁধে। ওর রান্না সবাই খেতে ভালবাসে। কোনও কিছুতেই পজেজিভনেস ছিল না। আমি এসবের পুরো উল্টো। সংসারী দূর অস্ত, রান্নাই পারি না তেমন। মানে, করলে হয়ত পারব। কিন্তু এসবে মন নেই। আর আমি ‘আমার’টুকু খুব ভাল বুঝে নিই। আমার জিনিসে আমি প্রচণ্ড পজেসিভ।

আসল অমিলটাই বাদ দিয়ে গেলেন! ইরাবতী বিবাহিত। মনামী অবিবাহিত... কবে বিয়ে করবেন?
(হেসে ফেলে এড়ানোর চেষ্টা) হ্যাঁ, ইরাবতীর তো মেয়েরও বিয়ের সময় হয়ে গেল। তার পরেই সামলানোর চেষ্টায় হাসিমাখা জবাব, এসব কথা উঠছে কেন? আগামী এক সপ্তাহ আমি এখনও ‘ইরাবতী’। মনামীকে না হয় তারপর জেনে নেওয়ার চেষ্টা করবেন?
 

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন