গান গাইতে ভালবাসেন? কিন্তু যথাযথ প্ল্যাটফর্মের অভাবে নিজেকে মেলে ধরতে পারছেন না? এ বার উঠতি গায়কদের জন্য সুখবর। ফিল্ম প্রোডাকশন হাউজ ‘জাস্ট স্টুডিও’ নিয়ে এল নতুন উদ্যোগ ‘জাস্ট টিউন’।

‘জাস্ট স্টুডিও’-র কর্ণধার, অভিনেত্রী সুচন্দ্রা ভানিয়া উঠতি গায়কদের কথা মাথায় রেখেই এরকম এক পরিকল্পনাকে বাস্তবায়িত করেছেন। শহুরে ‘রক’ অথবা গ্রামবাংলার ‘ভাটিয়ালি-ভাওয়াইয়া’, ‘বাংলার সুর’-এর মেলবন্ধন ঘটানোই এর প্রধান উদ্দেশ্য। শুধু কলকাতাই নয়, বাংলার বিভিন্ন প্রান্তে, এখানে-ওখানে হাজারও প্রতিভার বিকাশ যাতে ঘটতে পারে তারই জন্য এই নতুন প্রয়াস।

শুধু তাই নয়, এক ছাদের তলায় শহরের নামজাদা মিউজিশিয়ানদের একত্রিত করাও তাঁদের অন্যতম লক্ষ্য। গানের কোনও সীমানা হয় না, হয় না কোনও দেশ, জাতি, ধর্মের ভেদাভেদ— এই বার্তাই যেন দিতে চায় ‘জাস্ট টিউন’।

আরও পড়ুন : আমার সিম্বা যেন থাকে দুধেভাতে

 

ইতিমধ্যেই ‘বিশ্ব সঙ্গীত দিবসে’ ওপার বাংলার বাউল শিল্পী হাসান আলি চিস্তির রচিত গান, ‘দিল্লিতে নিজামুদ্দিন আউলিয়া এল’-র মধ্য দিয়ে তাঁরা তাঁদের যাত্রা শুরু করেছেন। বাংলা বাউল গানের সঙ্গে যাযাবর ‘রোমানি’দের জিপসি জ্যাজ মিউজিকের মিশেল সৃষ্টি করেছে এক অনন্য ফিউশনের। গানটি গেয়েছেন এই শহরেরইকিছু তরুণ গায়ক— দিব্যকমল মিত্র, মেঘাতিথি বন্দ্যোপাধ্যায়, দীপ্তদীপ চক্রবর্তী এবং উৎসব তালুকদার।

স্বাধীনতার দিনে আবার নতুন মিউজিক ভিডিও নিয়ে ফিরছে জাস্ট টিউন।সঙ্গে থাকছে বাংলার অনেক না-শোনা গান। 

আরও পড়ুন: ধুতি-শার্টে সর্বভারতীয় বাঙালিই থেকে গেলেন হেমন্ত