মুখোপাধ্যায় বাড়ির দুই কন্যা তাঁরা, কাজল ও রানি মুখোপাধ্যায়। এ বারে তাঁদের বাড়ির পুজোয় একসঙ্গে ছবি দেখে অনেকেই তা বিশ্বাস করতে পারছেন না। সময় কি তবে তাঁদের বরফ-শীতল সম্পর্কে উষ্ণতার প্রলেপ লাগিয়ে দিল? পুজোর প্রথম দিন থেকে দশমীর সিঁদুর খেলা পর্যন্ত বার বার এক ফ্রেমে ধরা দিয়েছেন কাজল ও রানি। তবে তাঁরা যখন চুটিয়ে ছবি করতেন, তখন কিন্তু পারস্পরিক সম্পর্কটা এতটা মধুর ছিল না। এমনকি গত বছর পুজোতেও তাঁদের মধ্যে এত ঘনিষ্ঠতা দেখা যায়নি।

কাজল ও রানির মধ্যে যে ঠান্ডা লড়াই ছিল, তা অনেকেরই জানা। প্রকাশ্যে না হলেও, ঠারেঠোরে দু’জনেই বুঝিয়ে দিতেন। শোনা যায়, বোন হলেও কর্ণ জোহরের ‘কুছ কুছ হোতা হ্যায়’-এর সময়ে রানিকে এতটুকু জমি ছেড়ে দেননি কাজল। কারণ তিনি তখন প্রতিষ্ঠিত অভিনেত্রী, রানি সবে নেমেছেন ময়দানে। স্বভাবের দিক থেকেও নাক-উঁচু বলে নাম ছিল কাজলের। অন্য দিকে, যৌথ পারিবারিক কাঠামোয় রানিদের পরিবার খানিক কোণঠাসা ছিল বলে শোনা যায়। তবে অভিনেত্রী হিসেবে রানিও পরে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেন। যশ রাজ ফিল্মসের কর্ণধার আদিত্য চোপড়ার সঙ্গে তাঁর বিয়ে হয়। বদলে যেতে থাকে অনেক সমীকরণ। পাশাপাশি সময়ের সঙ্গে দুই অভিনেত্রীও পরিণত হয়েছেন। কেরিয়ার ও সংসার... সব ক্ষেত্রেই তাঁরা সুখী। তাই পুজোর আবহে তাঁদের হাসিমুখের ঝলকানি সর্বত্র। 

তাঁর ‘লাকি ম্যাসকট’ বলে পরিচিত দুই নায়িকার মধ্যে সেতুবন্ধন করেছিলেন কর্ণ জোহর। এ বারে দশমীতে কর্ণ হাজির ছিলেন। তাঁর ‘অঞ্জলি’ ও ‘টিনা’কে সঙ্গে নিয়ে ছবিও তোলেন ভূরি ভূরি।