• নিজস্ব প্রতিবেদন
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

নওয়াজের অবদমিত কামের শিকার আমিও: নীহারিকা সিংহ

nawazwuddin
নওয়াজউদ্দিন ও নীহারিকা। -ফাইল ছবি।

ছবি বা কোনও চরিত্র নয়। দাম্পত্য জীবন আর পরকীয়া নিয়ে এই করোনাকালে বিপর্যস্ত অভিনেতা নওয়াজুদ্দিন সিদ্দিকি

বিবাহবিচ্ছেদ চেয়ে দিন কয়েক আগেই নোটিস পাঠিয়েছেন অভিনেতা নওয়াজুদ্দিন সিদ্দিকীর স্ত্রী আলিয়া সিদ্দিকী ওরফে অঞ্জনা কিশোর পাণ্ডে। অভিনেতা এ দিকে ইদ পালনের জন্য গতকালই উত্তরপ্রদেশে নিজের বাড়িতে পৌঁছে গিয়েছেন। তাঁকে পাঠানো নোটিসেরও কোনও জবাব দেননি তিনি। আর ঠিক এই সময়েই গোদের উপর বিষফোঁড়ার মতো আবার সামনে এসেছেন নওয়াজের পুরনো প্রেমিকা নীহারিকা সিংহ। ‘মিটু’ আন্দোলনে নওয়াজের বিরুদ্ধে যিনি যৌন হেনস্থার অভিযোগ তুলেছিলেন। মুম্বইয়ের এক সংবাদমাধ্যমকে নীহারিকা জানিয়েছেন, ‘‘আমিও বহু বার নওয়াজের অবদমিত কামের স্বীকার হয়েছি।’’ ‘মিস ইন্ডিয়া’ নীহারিকা অভিযোগে বলেছিলেন, ‘মিস লাভলি’ ছবির শুটিংয়ের সময় নওয়াজের সঙ্গে স্ক্রিন শেয়ার করি। ওই সময়ে সারারাত শুট করে সকালে নওয়াজ আমার বাড়ি আসতে চায়, আমি ওকে ব্রেকফাস্টের জন্য আমন্ত্রণ জানাই। কিন্তু দরজা খুলতেই ও জড়িয়ে ধরে আমায়। আমি ছাড়াতে চাইলেও ছাড়ে না। আমিও শেষে হাল ছেড়ে দিই। এ রকম শারীরিক সম্পর্ক স্থাপনের জন্য নওয়াজ প্রায় জোর করত আমায়।’

নীহারিকা পরবর্তীকালে উপলব্ধি করেন, শুধুমাত্র যৌনতার জন্যই নওয়াজ তাঁর সঙ্গে সম্পর্ক স্থাপন করেছিলেন। নীহারিকা জানান, তাঁদের সম্পর্ক নিয়ে নওয়াজের সঙ্গে আলোচনা করতে চাইলে নওয়াজ তাঁকে বলতেন, ‘‘আমার স্বপ্ন ছিল, আমার স্ত্রী হবে মিস ইন্ডিয়া বা এক জন অভিনেত্রী, যেমন মনোজ বাজপেয়ী আর পরেশ রাওয়াল করেছেন।’’

আরও পড়ুন: টানা দু’মাস শুটিং বন্ধের পরে কোথায় দাঁড়িয়ে বাংলার টেলি-ইন্ডাস্ট্রি?

আরও পড়ুন: লকডাউনে পানভেলের ফার্মহাউজ থেকে বাবাকে দেখতে মুম্বই গেলেন কেন সলমন?​

তা হলে কি নওয়াজের অন্য সম্পর্কে জড়িয়ে পড়া বা অবদমিত যৌনতাড়না তাঁর বিবাহবিচ্ছেদের অন্যতম কারণ হয়ে দাঁড়াল? নওয়াজ মুখে কুলুপ এঁটেছেন। যদিও তাঁর আত্মজীবনী ‘অ্যান অর্ডিনারি লাইফ: আ মেময়ার’-এ নওয়াজ তাঁর সঙ্গে নীহারিকার সম্পর্কের কথা স্বীকার করে লেখেন, ‘‘নীহারিকার সঙ্গে কিছু দিন আলাপের পর ওকে বাড়িতে মাটন খেতে ডাকি। এর পর আমাকে ওর বাড়িতে ডাকল। বলল, ‘মাটন খাওয়াবে’। আমি সে দিন প্রথম বার নীহারিকার বাড়ি গেলাম। দরজা বন্ধ ছিল। তা খোলামাত্র দেখে অবাক হলাম। দেখলাম, হাজারটা মোমবাতির আলো। আমি ওকে জড়িয়ে ধরে সোজা বেডরুমে নিয়ে চলে গেলাম। সেই শুরু হল আমাদের প্রেম। মাত্র দেড় বছর ছিল সেই সম্পর্ক।’’

লকডাউনের সময় যদিও এই বিষয়ে কোথাও কোনও বিবৃতি দেননি নওয়াজ। কিন্তু ‘বম্বে টাইমস’কে দেওয়া সাক্ষাৎকারে নওয়াজের স্ত্রী অঞ্জনা জানান, বেশ কিছু বছর ধরেই তাঁদের বিবাহিত জীবন সুখের যাচ্ছিল না। অনেক কিছু সহ্য করতে হয়েছে তাঁকে। কিন্তু সে সব ঘটনার বেশির ভাগই প্রকাশ্যে বলা তাঁর পক্ষে অস্বস্তিকর।

আর কী অস্বস্তিকর বিষয় আছে যা অঞ্জনা বলতে চাইছেন না? তা হয়তো বলবে সময়।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন