ক্ষমা চাইলেও কিশোরীকে চুমু খাওয়ার ঘটনায় গায়ক অঙ্গরাগ পাপন মহন্ত নিস্তার পাচ্ছেন না। মহারাষ্ট্রের নারী ও শিশু কল্যাণ দফতরের ভারপ্রাপ্ত মন্ত্রীর নির্দেশে মুম্বই পুলিশ তদন্ত শুরু করেছে। অসমের নারী ও শিশু সুরক্ষা কমিশনের চেয়ারপার্সন সুনীতা চাংকাকতি পাপনের বিরুদ্ধে গুয়াহাটির পুলিশ কমিশনারকে অভিযোগপত্র জমা দেন। চাপের মুখে পাপন আজ ওই শোয়ের বিচারক পদ থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন।

পাপন ভুল স্বীকার করে বলেন, ‘‘ওই ভাবে মেয়েটিকে ধরা ঠিক হয়নি। কিন্তু তা স্নেহের বহিঃপ্রকাশমাত্র।’’ অসমের মঙ্গলদৈয়ের মেয়েটির বাবাও বলেন, ‘‘পাপন মেয়েটির গুরু। যা করেছেন আবেগ ও স্নেহের বশে করেছেন।’’ আজ মেয়েটি ও অন্য কিশোরী প্রতিযোগীরা ভিডিও বার্তা আপলোড করে। সেখানে মেয়েটি বলে, ‘‘পাপন স্যর যা করেছেন তা আমায় ভালবেসেই করেছেন। বাবা-মা যে ভাবে আমায় আদর করে, চুমু খায়, পাপন স্যরও তা-ই করেছেন। খারাপ কিছু করেননি।’’’

পাপন ওই শোয়ের বিচারক ও মেন্টর পদ থেকে সরে দাঁড়ানোর কথা ঘোষণা করে টুইট করেন, ‘‘আমি আর পেশাদার কাজের মানসিকতায় এখন নেই। তাই বিচারকের পদ থেকে সরে দাঁড়াচ্ছি। যতদিন না বিতর্ক শেষ হচ্ছে ও আমার বিরুদ্ধে তদন্ত শেষ হচ্ছে ততদিন আমি সরে থাকতে চাই। আইনে আমার আস্থা রয়েছে।’’

কেন্দ্রীয় শিশু অধিকার সুরক্ষা কমিশনে প্রথম নালিশ জানানো আইনজীবী রুণা ভুঁইয়ার মতে, ‘‘যদি মেয়েটি বা তাঁর পরিবার ঘটনাটি নিয়ে আপত্তি নাও করলেও মামলা চালানো যায়। চ্যানেলের চাপ, তারকার চাপ, ভবিষ্যতের স্বপ্ন সামনে থাকায় ওই কিশোরী বিতর্ক চাইবে না।’’