নুসরতের দিকে তাকিয়ে নিখিল বললেন ‘‘ওর দায়িত্ব আমার। ওকে ভাল রাখব সবসময়।’’

কলকাতার ইস্টার্ন মেট্রোপলিটন বাইপাসের ধারের সাত তারা হোটেলের হাজার আলো বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় যেন আরও উজ্জ্বল হয়ে উঠল স্ত্রী নুসরত জাহানকে পাশে নিয়ে নিখিল জৈনের বলা এই কথায়।

এর আগে তুরস্কের বোদরুমে বসেছিল নুসরত জাহান এবং নিখিল জৈনের বিয়ের আসর। টলিউড থেকে নুসরতের ‘বেস্ট বাডি’ অভিনেত্রী মিমি চক্রবর্তী ছাড়া আর কারও আমন্ত্রণ ছিল না সেখানে। কথা ছিল দেশে ফিরে শপথগ্রহণের পর কলকাতার সবাইকে নিয়ে হবে গ্র্যান্ড রিসেপশন। বসিরহাট কেন্দ্রের এই সদ্য নির্বাচিত সাংসদের রিসেপশনে যে টলিপাড়ার পাশাপাশি রাজনৈতিক সতীর্থরাও থাকবেন সে কথা আগে থেকেই আঁচ করা যাচ্ছিল।

আরও পড়ুন: সামনে এল নুসরতের বিয়ের এক গুচ্ছ নতুন ছবি, দেখুন অ্যালবাম

সেই মতোই বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় বাইপাসের ধারের একটি সাত তারা হোটেলে ধূমধামের সঙ্গে শুরু হল নুসরত-নিখিলের সেই গ্র্যান্ড রিসেপশন। হেভিওয়েট এই রিসেপশন যেন চাঁদের হাট। টলিউড আর রাজনৈতিক মহলের এমন মিশেলও বিরল। সন্ধেবেলাতেই পৌঁছে গিয়েছিলেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সঙ্গে ছিলেন সাংসদ কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়।

 রিসেপশনে নুসরত ও নিখিলের সঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী  মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং মিমি চক্রবর্তী। নিজস্ব চিত্র 

টলি-মহল ত্থেকে আপাতত দেখা গিয়েছে রাইমা সেন ও সস্ত্রীক আবির চট্টোপাধ্যায়কে। দেখা গিয়েছে শিল্পপতি সঞ্জীব গোয়েন্কাকেও। টলিউডের প্রায় সমস্ত অভিনেতা-অভিনেত্রী তো বটেই, ক্যামেরার পিছনে থাকা কলাকুশলীরাও এ দিন আমন্ত্রিত।

নুসরতের বিয়েতে আর কেউ না থাকুক, মিমি যে তাঁর সর্বক্ষণের সঙ্গী সে প্রমাণ আগেও পেয়েছেন নেটিজেনরা। বেস্ট ফ্রেন্ডের বিয়ে নিয়ে তাঁর উচ্ছ্বসিত বক্তব্য, ‘‘দিদির বিয়েতেও এত সাজিনি। আমি আর নুসরত চার-পাঁচ বছর আগে যখন নিজেদের বিয়ে নিয়ে কথা বলতাম তখন থেকে প্ল্যান করেছিলাম কেমন সাজব।’’

 

এ দিন নুসরত পরেছেন বাদামী রঙের লেহেঙ্গা। সঙ্গে মানানসই গয়নাও। খেতে বরাবরই ভালবাসেন তিনি। তাই খাওয়াদাওয়ার আয়োজনও বিস্তর। ইতালিয়ান কুইজিনের পাশাপাশি রয়েছে বাঙালি মেনুও। আমিষ পদের মধ্যে রয়েছে ইলিশ, চিংড়ি, ভেটকি। রয়েছে মাংসের পদও। নুসরতের পছন্দ বসিরহাটের কাঁচাগোল্লাও নাকি জায়গা করে নিয়েছে মেনুতে।

এ দিন সন্ধ্যায় নুসরতের দিকে তাকিয়ে নিখিল বললেন ‘‘ওর দায়িত্ব আমার। ওকে ভাল রাখব সবসময়।’’ আর নুসরত কী বললেন জানেন? মুচকি হেসে নুসরতের বক্তব্য, ‘‘সারা জীবন একই লোকের সঙ্গে কাটাতে হবে! বুঝতে পারছেন চাপটা? মিডিয়ার সামনে ও যা বলল সবাই মনে রাখবেন কিন্তু। এখানে সবাই কিন্তু আমার লোক , যা বলবে ভেবে বলো।’’