×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

২০ এপ্রিল ২০২১ ই-পেপার

সেরোর সমীক্ষায় স্বস্তি, জানাল সরকারও

নিজস্ব সংবাদদাতা
নয়াদিল্লি ০৩ ফেব্রুয়ারি ২০২১ ০৭:১৯


ফাইল চিত্র

সমীক্ষাটি হওয়ার কথা জানা গিয়েছিল আগেই। তার ফলাফলের বিশ্লেষণও করে ফেলেছিলেন বিশেষজ্ঞেরা। আজ দিল্লির স্বাস্থ্যমন্ত্রী সত্যেন্দ্র জৈন সেটাই সরকারি ভাবে ঘোষণা করলেন। তাঁর বক্তব্য, করোনা সংক্রমিত হওয়ার পরে অর্ধেকের বেশি দিল্লিবাসীর শরীরে এখন অ্যান্টিবডি রয়েছে।

জানুয়ারিতে রাজধানীর বাসিন্দাদের উপরে পঞ্চম সেরো সমীক্ষা করে দিল্লি সরকার। ১১টি জেলার ২৮ হাজার বাসিন্দার রক্ত পরীক্ষা করে দেখা যায়, প্রায় ৫৬ শতাংশের শরীরে করোনার অ্যান্টিবডি রয়েছে। দক্ষিণ দিল্লির প্রায় ৬২.১৮ শতাংশ বাসিন্দার শরীরে অ্যান্টিবডি উপস্থিত। পূর্ব দিল্লির ৫৮.৮১ শতাংশ, উত্তর দিল্লির ৪৯.০৯ শতাংশ এবং নয়াদিল্লি এলাকার ৫৪.৬৯ শতাংশের অ্যান্টিবডি রয়েছে। চতুর্থ সেরো সমীক্ষায় ২৫ থেকে ২৬ শতাংশ দিল্লিবাসীর শরীরে অ্যান্টিবডি পাওয়া গিয়েছিল। এই পরিসংখ্যানের ভিত্তিতে সত্যেন্দ্র বলেন, ‘‘দিল্লি ধীরে ধীরে হার্ড ইমিউনিটির দিকে এগোচ্ছে।’’ কোনও জনগোষ্ঠীর ৬০ থেকে ৭০% সংক্রামক রোগে আক্রান্ত হওয়ায় তাঁদের শরীরে অ্যান্টিবডি তৈরি হলে রোগ নতুন করে ছড়ানোর় সুযোগ হারায় ও ক্রমশ সাধারণ রোগে পরিণত হয়। দিল্লিও সেই দিকে এগোচ্ছে বলে দাবি জৈনের।

Advertisement
Advertisement