Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৮ জুন ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

Abhishek Banerjee: কিছু হলেই সিবিআই দিচ্ছে, বিচারব্যবস্থা নিয়ে সরব অভিষেক

একের পর এক ঘটনায় সিবিআই তদন্তের নির্দেশ রাজনৈতিক প্রতিহিংসার ফল— এই অভিযোগ বরাবরই করে তৃণমূল।

নিজস্ব সংবাদদাতা
হলদিয়া ২৯ মে ২০২২ ০৭:৫৯
Save
Something isn't right! Please refresh.
হলদিয়ার রানিচক সংহতি ময়দানের শ্রমিক সমাবেশে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। শনিবার।

হলদিয়ার রানিচক সংহতি ময়দানের শ্রমিক সমাবেশে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। শনিবার।
নিজস্ব চিত্র।

Popup Close

একের পর এক ঘটনায় সিবিআই তদন্তের নির্দেশ রাজনৈতিক প্রতিহিংসার ফল— এই অভিযোগ বরাবরই করে তৃণমূল। শনিবার হলদিয়ার সভা থেকে আরও একধাপ এগিয়ে বিচার ব্যবস্থার নিরপেক্ষতা নিয়েও প্রশ্ন তুললেন তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেন, ‘‘বলতেও লজ্জা লাগে যে, বিচারব্যবস্থায় এমন এক-দু’জন রয়েছেন, যাঁরা সম্পূর্ণ যোগসাজশে কাজ করছেন তাদের (বিজেপি) তল্পিবাহক হিসেবে। এক শতাংশ। কিছু হলেই ওঁরা সিবিআই দিয়ে দিচ্ছেন।’’ অভিষেক আরও জুড়েছেন, ‘‘যদি মনে হয় সত্যি কথা বলার জন্য আপনি আমার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবেন, তবু আমি ক্যামেরার সামনে এমন সত্যি দু’হাজার বার বলব, দশ হাজার বার বলব। সত্যি বলতে আমার বিবেকে বাধে না।’’

সিবিআই এবং ইডি-র তলব নিয়ে এ দিন সরাসরি বিজেপিকে বিঁধেছেন অভিষেক। তিনি বলেন, ‘‘আজ যারা ভাবছে মানুষের টাকা নয়ছয় করে যা ইচ্ছে তাই করব, ইডি পিছনে লাগাব, সিবিআই পিছনে লাগাব। কাঁচকলা! আমাকে দু’বার ইডি-সিবিআই দিয়ে দিল্লিতে ডেকেছে। আমি দু’বার মাথা নত করেছি দিল্লির বুকে। আর দু’বার তোমার মাথা নত করিয়েছি আমি। তোমাকে পরাস্ত করে বাংলায় ক্ষমতায় এসেছে সেই দিদি। স্কোর এখন ২-২।’’ বিজেপির প্রতি অভিষেকের আরও বার্তা, ‘‘তোমরা হেরে গিয়ে এখন বাংলাকে দিল্লির কাছে মাথা নত করাতে আমাকে বার বার সিবিআই-ইডি দিয়ে দিল্লিতে ডেকে পাঠাচ্ছ। আমরা যদি দরজা খুলি তাহলে বিজেপি উঠে যাবে।’’

সিবিআই প্রশ্নে নাম না করে রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারীকেও নিশানা করেছেন অভিষেক। রানিচকের সভায় তিনি বলেন, ‘‘উত্তর কলকাতায় যাঁর নেতৃত্বে বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভাঙা হল, তাঁর পদলেহন করে এখানকার এক নেতা নিজেকে ইডি-সিবিআই থেকে বাঁচাতে পূর্ব মেদিনীপুরের আবেগকে কেন্দ্রের কাছে বিক্রি করেছে।’’

Advertisement

বিজেপির মুখপাত্র শমীক ভট্টাচার্য পাল্টা বলছেন, ‘‘তৃণমূল ভারতের সংবিধানকে আক্রমণ করেছে। প্রধানমন্ত্রী, রাজ্যপাল, স্বারষ্ট্রমন্ত্রীকে আক্রমণ করেছে। হতাশা আর ক্ষোভ থেকে বিচারব্যবস্থাকেও আক্রমণ করছে।’’ সিপিএম নেতা বিকাশ ভট্টাচার্যের মতে, ‘‘এটা আদালত আবমাননা।’’ আর প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরীর বক্তব্য, ‘‘কাটা ঘায়ে নুনের ছিটে পড়েছে। বিচারপতিদের সিদ্ধান্ত মেনে নিতে ওদের কষ্ট হচ্ছে।’’

সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তেফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ



Something isn't right! Please refresh.

Advertisement