Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

১৮ মে ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

মানবদেহে তৃতীয় দফায় কোভ্যাক্সিন টিকা পরীক্ষার প্রস্তুতি এমস-এ

গত ২৪ জুলাই এমস-এ ‘কোভ্যাক্সিন’-এর প্রথম পর্যায়ের ‘হিউম্যান ক্নিনিক্যাল ট্রায়াল’ শুরু হয়েছিল।

সংবাদ সংস্থা
নয়াদিল্লি ০১ নভেম্বর ২০২০ ১১:৩৭
Save
Something isn't right! Please refresh.
প্রতীকী ছবি।

প্রতীকী ছবি।

Popup Close

দিল্লির অল ইন্ডিয়া ইনস্টিটিউট অব মেডিক্যাল সায়েন্সেস (এমস)-এ সম্ভাব্য করোনা টিকা ‘কোভ্যাক্সিন’-এর তৃতীয় তথা চূড়ান্ত পর্যায়ের ‘হিউম্যান ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল’-এর তৎপরতা শুরু হয়েছে। সূত্রের খবর, মানবদেহে কোভ্যাক্সিন পরীক্ষার জন্য প্রস্তুতকারী সংস্থা ‘ভারত বায়োটেক ইন্টারন্যাশনাল’-এর তরফে এমস কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন জানানো হয়েছিল। বিষয়টি নিয়ে শীঘ্রই এথিকস কমিটিতে আলোচনা হবে।

ভারত বায়োটেকের চেয়ারম্যান তথা ম্যানেজিং ডিরেক্টর কৃষ্ণ এলা জুলাই মাসের গোড়ায় জানিয়েছিলেন, দুই রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থা, ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অব মেডিক্যাল রিসার্চ (আইসিএমআর) এবং ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব ভাইরোলজি (এনআইভি)-র সহযোগিতায় ভারতে প্রথম করোনা টিকা তৈরি করেছেন তাঁরা। সফল প্রি-ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালও হয়ে গিয়েছে।

এর পরে ড্রাগস কন্ট্রোলার জেনারেল অব ইন্ডিয়া (ডিসিজিআই)-র তরফে প্রথম ও দ্বিতীয় পর্যায়ের হিউম্যান ট্রায়ালের অনুমোদন মেলে। শুরু হয় স্বেচ্ছাসেবক খোঁজার পালা। গত ২৪ জুলাই এমস-এ প্রথম কোভ্যাক্সিনের ‘হিউম্যান ক্নিনিক্যাল ট্রায়াল’ শুরু হয়েছিল। এই পরীক্ষার জন্য দিল্লির ‘ডক্টর ডাংস ল্যাব’-এর সহযোগিতা নিয়েছিল হায়দরাবাদের সংস্থা ভারত বায়োটেক। অগস্টের শেষ পর্বে জানানো হয়, মানবদেহে কোভ্যাক্সিনের প্রথম ও দ্বিতীয় পর্যায়ের পরীক্ষা সফল হয়েছে।

Advertisement

বিশ্বজুড়ে ৪০টির বেশি সংস্থা এখন মানবদেহে সম্ভাব্য করোনা টিকা পরীক্ষার কাজ চালাচ্ছে। ভারতে করোনা টিকা প্রস্তুত করতে অন্তত ৭টি গবেষণা চলছে। ভারত বায়োটেক ছাড়াও সিরাম ইনস্টিটিউট অব ইন্ডিয়া, জাইডাস ক্যাডিলা, প্যানাসিয়া বায়োটেক, ইন্ডিয়ান ইমিউনোলজিক্যালস, মাইনভ্যাক্স অ্যান্ড বায়োলজিক্যাল-ই-র মতো সংস্থা এই উদ্দেশ্যে কাজ চালিয়ে যাচ্ছে।

আরও পড়ুন: খুব শীঘ্রই টিকা আসছে দাবি মডার্নার, ট্রায়াল শেষের পথে জনসন অ্যান্ড জনসন, ফাইজারও

ব্রিটেনের অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের সঙ্গে সুইডিশ-আমেরিকান সংস্থা অ্যাস্ট্রাজেনেকার তৈরি সম্ভাব্য করোনা প্রতিষেধক কোভিশিল্ডের মানবদেহে ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল ও উৎপাদনের দায়িত্ব পেয়েছে পুণের ‘সিরাম ইনস্টিটিউট অব ইন্ডিয়া’। সংস্থার তরফে জানানো হয়েছে, মানবদেহে দু’দফার পরীক্ষা সফল হয়েছে। করোনা টিকার পরীক্ষা এবং উৎপাদনের কাজে আমেরিকার সংস্থা ‘নোভাভ্যাক্স’-এর সঙ্গেও সিরাম ইনস্টিটিউটের চুক্তি হয়েছে।

আরও পড়ুন: আরও বাড়ল সুস্থতার হার, দেশে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৮২ লক্ষের কাছাকাছি

আমেরিকার ৩ ওষুধ প্রস্তুতকারক সংস্থা মডার্না আইএনসি, জনসন অ্যান্ড জনসন এবং ফাইজার আইএনস-ও করোনা টিকার পরীক্ষায় সাফল্যের দাবি করেছে। তৃতীয় দফার ‘হিউম্যান ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল’ প্রক্রিয়া অনেকটাই এগিয়েছে জানিয়ে মডার্না আইএনসি-র দাবি, শীঘ্রই তাদের টিকা বাজারে আসতে চলেছে। ফাইজার আইএনসি-র তরফেও মানবদেহে তৃতীয় পর্যায়ের পরীক্ষা শেষ পর্যায়ে রয়েছে বলে জানানো হয়েছে।



Something isn't right! Please refresh.

আরও পড়ুন

Advertisement