Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৬ মে ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

Uttar Pradesh: দলিতের প্রয়োজন নেই অখিলেশের, সমাজবাদী পার্টির সঙ্গে জোটে নারাজ চন্দ্রশেখর

উত্তর ভারতে সিএএ বিরোধী আন্দোলনেও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নিয়েছিলেন চন্দ্রশেখর। দিল্লিতে শাহিনবাগ সমাবেশে যোগ দিয়ে জেলেও গিয়েছিলেন।

সংবাদ সংস্থা
লখনউ ১৫ জানুয়ারি ২০২২ ১২:০১
Save
Something isn't right! Please refresh.
চন্দ্রশেখর এবং অখিলেশ।

চন্দ্রশেখর এবং অখিলেশ।
ফাইল চিত্র।

Popup Close

উত্তরপ্রদেশের বিধানসভা ভোটে অখিলেশ যাদবের সমাজবাদী পার্টি (এসপি)-র সঙ্গে জোটের সম্ভাবনা খারিজ করলেন দলিত নেতা চন্দ্রশেখর আজাদ ওরফে রাবণ। শনিবার তিনি বলেন, ‘অখিলেশজির দলিতদের প্রয়োজন নেই। তাই বিধানসভা ভোটে জোট হচ্ছে না।’’

বৃহস্পতিবার রাতে লখনউতে আজাদ সমাজ পার্টির প্রধান চন্দ্রশেখরের সঙ্গে অখিলেশের গোপন বৈঠকে সমঝোতার বিষয়ে কথা হয়েছিল বলে কয়েকটি সংবাদমাধ্যমে দাবি করা হয়েছিল। চন্দ্রশেখর বলেন, ‘‘আমি অখিলেশজির সঙ্গে দেখা করতে দু’দিনের জন্য লখনউতে গিয়েছিলাম। কিন্তু তিনি না ডেকে আমাকে অপমান করেছেন। আর আমার দলের নেতারা আশঙ্কা করেছিলেন, আমিও এসপি-তে ঢুকে পড়ব।’’

এসপি-র সামাজিক ন্যায় প্রতিষ্ঠার প্রতিশ্রুতি সম্পর্কেও প্রশ্ন তুলেছেন চন্দ্রশেখর। তাঁর কথায়, ‘‘উনি দলিতদের বিষয়ে নীরব।’’ যদিও সমাজবাদী প্রধানকে এখনও তিনি নিজের ‘দাদা’ বলে মনে করেন বলে জানিয়েছেন উত্তরপ্রদেশের দলিত নেতা। সেই সঙ্গে দাবি করেছেন, উত্তরপ্রদেশে বিজেপি-কে হারাতে এসপি এবং বিএসপি-র সঙ্গে হাত মেলাতে চেয়েছিলেন তিনি।

Advertisement

চন্দ্রশেখরের গড়া সামাজিক সংগঠন ভীম আর্মি গত কয়েক বছরে বিভিন্ন রাজ্যে দলিত ও অনগ্রসরদের অধিকার রক্ষার লড়াইয়ে অংশ নিয়েছে। উত্তর ভারতে নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন (সিএএ) বিরোধী আন্দোলনেও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নিয়েছিলেন চন্দ্রশেখর। শাহিনবাগ সমাবেশে যোগ দিয়ে জেলেও গিয়েছিলেন। ২০২০ সালের মার্চ মাসে রাজনৈতিক দল আজাদ সমাজ পার্টি গড়েন তিনি।

উত্তরপ্রদেশে বিধানসভা ভোটের লড়াইয়ে দলিত নেত্রী মায়াবতীর দল বিএসপি এখনও সে ভাবে সক্রিয় হয়নি। এই পরিস্থিতিতে অনগ্রসর (ওবিসি) যাদর গোষ্ঠীর নেতা অখিলেশের নেতৃত্বাধীন জোটে চন্দ্রশেখর যোগ দিলে দলিত ভোটের একাংশ সে দিকে যেতে পারত বলে অনুমান করেছিলেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের অনেকেই। আর সে ক্ষেত্রে চাপ বাড়ত বিজেপি-র উপর। কিন্তু সেই সম্ভাবনায় ‘জল ঢেলে দিলেন’ চন্দ্রশেখর।



Something isn't right! Please refresh.

Advertisement