Advertisement
২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৪
Prashant Kishor

‘বিজেপির লোক প্রশান্ত কিশোরকে কখনও বলিনি জেডি(ইউ)-র দায়িত্ব নিতে’, দাবি নীতীশ কুমারের

পিকে দাবি করেছিলেন, সম্প্রতি তাঁর কাছে জেডি(ইউ)-র নেতৃত্ব গ্রহণের প্রস্তাব এসেছিল। কিন্তু রাজি হননি। জানান, ২০১৪ সালের লোকসভা ভোটে ভরাডুবির পরেও তাঁর দ্বারস্থ হয়েছিলেন নীতীশ।

পিকে এবং নীতীশ।

পিকে এবং নীতীশ। ফাইল চিত্র।

সংবাদ সংস্থা
পটনা শেষ আপডেট: ০৮ অক্টোবর ২০২২ ১৫:৩১
Share: Save:

ভোটকুশলী প্রশান্ত কিশোরকে (পিকে) তিনি কোন দিনই জেডি(ইউ)-র দায়িত্ব নেওয়ার প্রস্তাব দেননি বলেন দাবি করলেন নীতীশ কুমার। বিহারের মুখ্যমন্ত্রী তথা জেডি(ইউ) সভাপতি নীতীশ শনিবার এ বিষয়ে প্রশান্তের সাম্প্রতিক মন্তব্য খারিজ করে বলেন, ‘‘উনি বিজেপির স্বার্থরক্ষার কাজ করে চলেছেন।’’

পিকে গত সপ্তাহে দাবি করেছিলেন, সম্প্রতি তাঁর কাছে জেডি(ইউ)-র নেতৃত্ব গ্রহণের প্রস্তাব এসেছিল। কিন্তু তিনি তা প্রত্যাখ্যান করেছেন। সেই সঙ্গে পিকের দাবি ছিল, ২০১৪ সালের লোকসভা ভোটে ভরাডুবির পরে তাঁর দ্বারস্থ হয়েছিলেন নীতীশ। তাঁর পরামর্শ মেনে পদক্ষেপ করেই ২০১৫ সালে ফের বিহারের বিধানসভা ভোটে জিতে ক্ষমতা দখল করেছিলেন।

একদা নীতীশ কুমারের ঘনিষ্ঠ পিকে জেডি(ইউ)-তে যোগ দেওয়ার পরে ২০১৮ সালে তাঁকে দলের সহ-সভাপতি করা হয়েছিল। কিন্তু নীতীশের সঙ্গে মতবিরোধের কারণে ২০২০ সালে জেডি (ইউ) থেকে বহিষ্কৃত হন তিনি। কয়েক মাস আগেই পিকে জানিয়েছিলেন, তিনি নতুন রাজনৈতিক কর্মকাণ্ড বিহার থেকেই শুরু করতে চলেছেন। ঘোষণা করেছিলেন ‘জন সূরয যাত্রা’র।

এর পর অগস্টে নীতীশ বিজেপির সঙ্গ ছেড়ে আরজেডি-কংগ্রেস-বামেদের ‘মহাগঠবন্ধনে’ যোগ দেওয়ার পর থেকে ধারাবাহিক ভাবে তাঁকে নিশানা করে চলেছেন পিকে। বিহারে নবগঠিত জোট সরকার বেশি দিন টিকবে না বলেও ভবিষ্যদ্বাণী করেছেন এই ‘দুঁদে’ ভোটকুশলী। তাঁর দাবি, মহাগঠবন্ধনের প্রতি বিহারবাসীর সমর্থন নেই। জবাবে পিকের নাম না করে নীতীশ বলেছিলেন, ‘‘উনি ব্যবসা করেন। এ বার বিজেপির বরাত পেয়ে কাজে নেমেছেন।’’

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement

Share this article

CLOSE