Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১ ই-পেপার

আগাছা বিজেপিকে বাড়তে দেবেন না, তেজস্বীকে আশীর্বাদ করুন, নীতীশকে আর্জি দিগ্বিজয়ের

সংবাদসংস্থা
নয়াদিল্লি ১২ নভেম্বর ২০২০ ০১:১০
—ফাইল চিত্র।

—ফাইল চিত্র।

এনডিএ ছেড়ে বেরিয়ে আসুন নীতীশ কুমার। তেজস্বী যাদবকে সমর্থন করুন, যাতে লালুপুত্র বিহারের পরবর্তী মুখ্যমন্ত্রী হতে পারেন। মন্তব্য মধ্যপ্রদেশের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী তথা কংগ্রেস সাংসদ দিগ্বিজয় সিংহের। তাঁর মতে, নিজেদের রাজনৈতিক স্বার্থ চরিতার্থ করতে নীতীশ কুমারের মতো দীর্ঘ অভিজ্ঞতাসম্পন্ন রাজনীতিকের মর্যাদা ধুলোয় মিশিয়ে দিয়েছে বিজেপি।

বিহার বিধানসভা ভোটের ফল নিয়ে চারিদিকে বিচার-বিশ্লেষণ চলছে। তার মধ্যেই বুধবার নীতীশের উদ্দেশে একাধিক টুইট করেন দিগ্বিজয়। তিনি লেখেন, ‘জমিতে ফসলের মধ্যে যেমন আগাছা বেড়ে ওঠে, বিজেপি ঠিক তেমনই। যে বৃক্ষকে ভর করে বেড়ে ওঠে, তার শেষ রক্তবিন্দুও শুষে নেয়। নীতীশজি, লালু যাদব এবং আপনি একসঙ্গে লড়াই করেছেন। উনি এখন জেলে। বিজেপি-আরএসএস মতাদর্শ ছেড়ে বেরিয়ে আসুন। তেজস্বীকে আশীর্বাদ করুন। বিজেপি-র মতো আগাছাকে বিহারে ডালপালা ছড়াতে দেবেন না’।

জাতীয় রাজনীতিতে তাঁর মতো দীর্ঘ রাজনৈতিক অভিজ্ঞতাসম্পন্ন মানুষের প্রয়োজন রয়েছে বলেও নীতীশকে পরামর্শ দেন দিগ্বিজয়। তিনি লেখেন, ‘আপনার মতো রাজনীতিকের জন্য বিহার খুব ছোট জায়গা। জাতীয় রাজনীতিতে মনোনিবেশ করা উচিত আপনার। কেন্দ্রের বিভাজনের রাজনীতিকে প্রশ্রয় দেবেন না। বরং সমস্ত ধর্ম নিরপেক্ষ দলগুলিকে একজোট করতে সাহায্য করুন। বিষয়টি ভেবে দেখুন’। এই মুহূর্তে রাহুল গাঁধী একা বিজেপি-র সঙ্গে আদর্শের লড়াই লড়ছেন বলেও মন্তব্য করেন দিগ্বিজয়।

Advertisement


আরও পড়ুন: নীতীশ কুমারই মুখ্যমন্ত্রী, প্রতিশ্রুতি পালন করবে বিজেপি, ঘোষণা সুশীল মোদীর​

মঙ্গলবার বিহার বিধানসভা নির্বাচনের ফলপ্রকাশ হয়েছে। তাতে নীতীশের সংযুক্ত জনতা দল (জেডিইউ)-কে পিছনে ফেলে দ্বিতীয় বৃহত্তম দল হিসেবে উঠে এসেছে বিজেপি। সংখ্যায় এগিয়ে থাকলেও প্রতিশ্রুতি মেনে নীতীশকেই মুখ্যমন্ত্রী করা হবে বলে ইতিমধ্যেই জানিয়ে দিয়েছেন বিজেপি নেতৃত্ব। কিন্তু বিজেপি-র ‘বদান্যতা’য় চতুর্থবারের জন্য মুখ্যমন্ত্রী হয়ে গেলেও, গেরুয়া দাপটের সামনে নীতীশ আসলে নামমাত্র মুখ্যমন্ত্রী হয়ে থাকবেন বলে ইতিমধ্যেই জল্পনা শুরু হয়েছে রাজনৈতিক শিবিরে।

এ নিয়ে জেডিইউ-এর অন্দরেও আলোচনা শুরু হয়েছে বলে খবর। শোনা যাচ্ছে, ভোটের ফল নিয়ে জেডিইউ-এর অনেক নেতাই অসন্তুষ্ট। তাঁদের একাংশের ধারণা, নীতীশের উপর ছড়ি ঘোরাতে যাতে সুবিধা হয়, তার জন্য চিরাগ পাসোয়ানের সঙ্গে আলাদা ভাবে ষড় করেছিল বিজেপি। আর সেই কারণেই নীতীশের ভোট কাটিয়ে নিতে মাঠে নেমেছিলেন চিরাগ। তাই চিরাগের জন্য এনডিএ-র ভোটবাক্সে প্রভাব পড়লেও, তাঁর বিরুদ্ধে কড়া অবস্থান নিতে দেখা যায়নি বিজেপি-র কাউকে।

আরও পড়ুন: নিজের আগুনেই ভস্ম হলেন চিরাগ, বিহারে ১টি আসন জয়ের পর কটাক্ষ জীতনরামের​

এ নিয়ে নীতীশ বা তাঁর ঘনিষ্ঠদের কেউ যদিও প্রকাশ্যে কোনও মন্তব্য করেননি। তবে নীতীশ কুমার যদি তেজস্বীর সমর্থনে এগিয়ে আসেন, সে ক্ষেত্রে রাষ্ট্রীয় জনতা দল (আরজেডি)-এর ৭৫, জেডিইউ-এর ৪৩ এবং কংগ্রেসের ১৯ ভোট মিলিয়ে সরকার গড়ায় আর কোনও বাধা থাকবে না। বরং সরকার গড়তে সমস্যায় পড়বে বিজেপি-ই। তাই রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের মতে, তেজস্বীর সমর্থনে নীতীশকে এগিয়ে আসার আর্জি জানিয়ে নতুন বিহার রাজনীতিতে নতুন জল্পনা উস্কে দিলেন দিগ্বিজয়।

আরও পড়ুন

More from My Kolkata
Advertisement