Advertisement
০৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৩
Bihar Election 2020

২৮ অক্টোবর থেকে তিন দফায় ভোট বিহারে, ফলাফল ১০ নভেম্বর

সুশান্ত সিংহ রাজপুতের মৃত্যু ঘিরে অন্যমাত্রা পেয়েছে বিহারের রাজনীতি।

গ্রাফিক: শৌভিক দেবনাথ।

গ্রাফিক: শৌভিক দেবনাথ।

সংবাদ সংস্থা
নয়াদিল্লি শেষ আপডেট: ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০ ১২:৪১
Share: Save:

নোভেল করোনাভাইরাসের জেরে উদ্ভুত মহামারি পরিস্থিতিতেই বিধানসভা নির্বাচন বিহারে। শুক্রবার তার দিন ক্ষণ ঘোষণা করল নির্বাচন কমিশন। বিহারে মোট তিন দফায় নির্বাচন হবে বলে জানিয়েছেন মুখ্য নির্বাচন কমিশনার সুনীল আরোরা। প্রথম দফায় ২৮ অক্টোবর, দ্বিতীয় দফায় ৩ নভেম্বর এবং তৃতীয় দফায় ৭ নভেম্বর ভোটগ্রহণ করা হবে সেখানে। নির্বাচনের ফলাফল ঘোষণা হবে ১০ নভেম্বর।

করোনা পরিস্থিতিতে নির্বাচন করানোর জন্য প্রয়োজনীয় সতর্কতা অবলম্বন করা হচ্ছে বলে এ দিন জানায় নির্বাচন কমিশন। জানানো হয়, নির্বাচনে সামাজিক দূরত্ব বজায়ের দিকে বিশেষ গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে। তার জন্য বুথের সংখ্যা যেমন বাড়ানো হচ্ছে, তেমনই বুথ পিছু ভোটারের সংখ্যা ১৫০০ থেকে কমিয়ে ১০০০ করা হয়েছে। নির্বাচনী প্রচারের জন্য কোনও জন সমাবেশ ডাকতে পারবেন না প্রার্থীরা। ভার্চুয়াল মাধ্যমেই প্রচার সংক্রান্ত যাবতীয় কাজ সারতে হবে তাঁদের। বাড়ি বাড়ি ভোট চাইতে যাওয়ার ক্ষেত্রেও পাঁচ জনের বেশি মানুষ একত্রিত হতে পারবেন না।

মনোনয়ন জমা দেওয়ার ক্ষেত্রেও দুই ধরনের ব্যবস্থা চালু করা হয়েছে। সশরীরে নির্বাচন কমিশনের দফতরে গিয়ে মনোনয় জমা দিতে গেলে, সর্বাধিক দু’জনকে সঙ্গে নেওয়া যাবে। দু’টির বেশি গাড়ি নেওয়া যাবে না। এর পাশাপাশি অনলাইনও মনোনন জমা দেওয়া যাবে। তার জন্য জামানতের অর্থ অনলাইনই জমা করতে পারবেন প্রার্থীরা। এ বারে ভোটগ্রহণের জন্য এক ঘণ্টা বেশি সময় বরাদ্দ করা হয়েছে। শেষ এক ঘণ্টায় ভোট দিতে পারবেন কোভিড পজিটিভ রোগীরা। ৮০ বছরের ঊর্ধ্বে যাঁদের বয়স, তাঁদের জন্য পোস্টাল ব্যালটের ব্যবস্থা করা হবে।

Advertisement

আরও পড়ুন: রাজ্যপাল ধনখড়ের বিরুদ্ধে থানায় গেল শিবসেনা​

শুরুতে বেশ কয়েক দফায় ভোট নেওয়ার কথা থাকলেও, করোনা পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখেই মাত্র তিন দফায় বিহারে নির্বাচন স্থির করেছে কমিশন। এর মধ্যে ২৮ জেলায় শুধু একটি মাত্র দফাতেই ভোটগ্রহণ হবে। ভোট দিতে এসে কেউ যাতে সংক্রমিত না হয়ে পড়েন, তার জন্য ৪৬ লক্ষ মাস্ক, ৬ লক্ষ পিপিই কিট, ২৩ লক্ষ গ্লাভস এবং ৭ লক্ষ বোতল স্যানিটাইজারের ব্যবস্থা করা হয়েছে। ইভিএম-এর বোতাম টেপার আগে প্রত্যেক ভোটারকে গ্লাভস দেওয়া হবে।

বিজেপির সঙ্গে জোট বেঁধে এ বার চতুর্থ বারের জন্য বিহারের মুখ্যমন্ত্রী হওয়ার দৌড়ে রয়েছেন নীতীশ কুমার। তাঁদের এনডিএ জোটে শামিল রয়েছে চিরাগ পাসোয়ানের লোক জনশক্তি পার্টি, রাজ্যের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী জিতন রাম মাঝির হিন্দুস্তানি আওয়াম মোর্চাও। বিরোধী জোট ছেডে় সম্প্রতি নীতীশের সঙ্গে হাত মেলান জিতন। সুশান্ত সিংহ রাজপুতের মৃত্যুকে হাতিয়ার করে ইতিমধ্যেই ভোটের প্রচারে নেমে পড়েছে এই জোট।

যৌথ ভাবে এনডিএ জোটকে টক্কর দেবে রাষ্ট্রীয় জনতা দল (আরজেডি) এবং কংগ্রেস। পশুখাদ্য দুর্নীতি মামলায় এই মুহূর্তে জেলবন্দি আরজেডি প্রধান লালুপ্রসাদ যাদব। তবে সেখানে বসেই তিনি রণকৌশল তৈরি করছেন বলে খবর। এমনকি কাকে, কোথায় প্রার্থী করা হবে, তাও জেলে বসেই লালু ঠিক করছেন বলে খবর। করোনা সঙ্কট সামাল দিতে কেন্দ্রের ব্যর্থতা, লকডাউনে পরিযায়ী শ্রমিকদের হেনস্থা এবং অর্থনৈতিক সঙ্কট নিয়ে আক্রমণ শানাতে প্রস্তুত হয়ে রয়েছেন লালুপুত্র তেজস্বী যাদব।

আরও পড়ুন: কৃষি বিল নিয়ে মানুষকে ভুল বোঝানো হচ্ছে, দাবি প্রধানমন্ত্রীর​

Advertisement

এ দিন নির্বাচন কমিশন জানায়—

• প্রথম দফায় নির্বাচন ২৮ অক্টোবর, দ্বিতীয় দফায় ৩ নভেম্বর এবং তৃতীয় দফায় ৭ নভেম্বর বিহারে নির্বাচন। ফলাফল ঘোষণা ১০ নভেম্বর।

• তিন দফায় ভোট বিহারে। প্রথম দফায় ৭১টি, দ্বিতীয় দফায় ৯৪টি এবং তৃতীয় দফায় ৭৮টি নির্বাচন কেন্দ্রে ভোট। ২৮টি জেলায় শুধুমাত্র একটি দফাতেই ভোট।

• আজ থেকেই চালু হয়ে গেল নির্বাচনী আচরণবিধি।

• নির্বাচনী প্রচারের জন্য জনসমাবেশ নয়। শুধুমাত্র ভার্চুয়াল সমাবেশ করা যাবে।

• দরজায় দরজায় গিয়ে ভোট চাওয়ার ক্ষেত্রে পাঁচ জনের বেশি মানুষ একত্রিত হতে পারবেন না।

• প্রার্থীরা অনলাইন মনোনয়ন জমা দিতে পারবেন। তার জন্য টাকাও জমা করা যাবে অনলাইনে। যাঁরা সশীরের মনোনয়ন জমা দিতে যাবেন, তাঁরা সর্বাধিক দু’জন সঙ্গী এবং দু’টি গাড়ি নিয়ে যাতে পারবেন।

• শেষ এক ঘণ্টা কোভিড পজিটিভ রোগীদের ভোটগ্রহণের জন্য বরাদ্দ থাকবে।

• ভোটগ্রহণের জন্য ১ ঘণ্টা বেশি সময় বরাদ্দ।

• ১৮ লক্ষ ৮৭ হাজার পরিযায়ীর মধ্যে ১৮ বছরের ঊর্ধ্বে ১৬ লক্ষ ৬ হাজার ভোটার ভোট দিতে পারবেন।

• ৮০ বছরের বেশি বয়সি ভোটারদের জন্য পোস্টাল ব্যালট।

• সতর্কতা মেনে নির্বাচনের জন্য জন্য ৪৬ লক্ষ মাস্ক, ৬ লক্ষ পিপিই কিট, ২৩ লক্ষ গ্লাভস এবং ৭ লক্ষ স্যানিটাইজারের ব্যবস্থা করা হয়েছে।

• প্রতিটি বুথে ১৫০০ ভোটারের পরিবর্তে ১০০০ ভোটারকে ঢুকতে দেওয়ার নির্দেশ।

• করোনা পরিস্থিতে বুথের সংখ্যা বাড়ানো হবে বলে জানালেন মুখ্য নির্বাচন কমিশনার সুনীল আরোরা।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.