Advertisement
২৫ মে ২০২৪
Maharashtra News

মায়ের ফোনে গেম খেলতে খেলতে ২ লক্ষ গায়েব! বকুনির ভয়ে আত্মঘাতী যুবক

মোবাইলে গেম খেলতে খেলতে আচমকা ফোনে একটি মেসেজ পেয়েছিলেন ১৮ বছরের যুবক। তাতে কোনও প্রতারণামূলক লিঙ্ক ছিল। অসাবধানতায় যা ক্লিক করে ফেলেন তিনি।

An image representing death

—প্রতীকী চিত্র।

আনন্দবাজার অনলাইন ডেস্ক
কলকাতা শেষ আপডেট: ০৭ এপ্রিল ২০২৪ ০৯:১০
Share: Save:

মায়ের ফোনে গেম খেলছিলেন যুবক। অনলাইন গেমে আসক্ত হয়ে পড়েছিলেন তিনি। সেই গেমই কাল হল। তাঁর অসাবধানতায় তাঁর মায়ের ফোন থেকে ২ লক্ষ টাকা কেটে যায়। বকুনির ভয়ে আত্মহত্যা করেছেন তিনি।

ঘটনাটি মহারাষ্ট্রের নালাসোপাড়া এলাকার। পুলিশ জানিয়েছে, গত বুধবার মোবাইলে গেম খেলতে খেলতে আচমকা ফোনে একটি মেসেজ পেয়েছিলেন ১৮ বছরের যুবক। তাতে কোনও প্রতারণামূলক লিঙ্ক ছিল। অসাবধানতায় যা ক্লিক করে ফেলেন তিনি। কিছু ক্ষণের মধ্যে ওই ফোনে টাকা কেটে নেওয়ার মেসেজ ঢোকে। যাতে বলা হয়, যুবকের বাবার ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট থেকে দু’লক্ষ টাকা কেটে নেওয়া হয়েছে।

টাকা কেটে নেওয়ার মেসেজ দেখে ভয় পেয়ে যান যুবক। কী করবেন ভেবে না পেয়ে চরম সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেন। পুলিশের ধারণা, টাকা কেটে যাওয়ার ফলে তাঁকে বকাবকি করা হতে পারে বলে আতঙ্কে ছিলেন তিনি। ঘরে মজুত কীটনাশক খেয়ে তাই আত্মহত্যা করেন।

পুলিশ জানিয়েছে, টাকা কেটে যাওয়ার কথা যুবক বাড়ির কাউকে জানাননি। তার আগেই আত্মঘাতী হয়েছেন। তিনি কীটনাশক খাওয়ার পর বমি করতে শুরু করেন। তাঁর মা এবং পরিবারের অন্যরা দ্রুত যুবককে হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখানেই কিছু ক্ষণ পর তাঁর মৃত্যু হয়। এই ঘটনায় দুর্ঘটনাজনিত মৃত্যুর একটি মামলা রুজু করেছে পুলিশ। যুবকের দেহ পাঠানো হয়েছে ময়নাতদন্তের জন্য।

পুলিশের সাইবার অপরাধ দমন শাখার আধিকারিকেরা তদন্ত শুরু করেছেন। তাঁরা টাকা উদ্ধারের চেষ্টাও করছেন। তাঁরা জানিয়েছেন, মোবাইলে কোনও প্রতারণার ফাঁদে পা দিয়ে টাকা খোয়ালে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে তা উদ্ধার সম্ভব। ২৪ ঘণ্টার মধ্যে যদি পুলিশকে টাকা খোয়ানোর কথা জানানো যায়, ব্যাঙ্কের সঙ্গে যোগাযোগ করে সেই টাকার পুরোটাই ফিরিয়ে আনা যায়। যুবক সম্ভবত সেই তথ্য জানতেন না। সেই কারণেই এমন একটি সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেন।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)
সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের মাধ্যমগুলি:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE