Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

০৫ ডিসেম্বর ২০২১ ই-পেপার

গোরক্ষকদের মারে খুন হওয়া পহলুর বিরুদ্ধেই চার্জশিট আনল রাজস্থানের কংগ্রেস সরকারের পুলিশ

সংবাদ সংস্থা
নয়াদিল্লি ২৯ জুন ২০১৯ ১৬:৪৯
পহেলু খান-কাণ্ডে সমালোচনার ঝড় উঠেছিল সর্বত্রই। ফাইল চিত্র।

পহেলু খান-কাণ্ডে সমালোচনার ঝড় উঠেছিল সর্বত্রই। ফাইল চিত্র।

তথাকথিত গোরক্ষকেরাই পিটিয়ে খুন করেছে রাজস্থানের দুধ ব্যবসায়ী পহলু খানকে। রাজস্থানের অলওয়রে হইচই ফেলে দেওয়া ওই ঘটনার সময় সে রাজ্যে ছিল বিজেপি-র বসুন্ধরা রাজের সরকার। রাজস্থানে এখন ক্ষমতার পালাবদল ঘটেছে। এসেছে কংগ্রেসের অশোক গহলৌতের সরকার। তবে সেই ঘটনার প্রায় দু’বছর পর পহলু খানের বিরুদ্ধেই গরু পাচারের অভিযোগে চার্জশিট দিল কংগ্রেস সরকারের পুলিশ। ঘটনাচক্রে, সে সময় ওই ঘটনার বিরুদ্ধে সরব হয়েছিল রাজ্যের তৎকালীন বিরোধী দল কংগ্রেস। সরব হয়েছিলেন কংগ্রেস নেতা অশোক গহলৌতও। তবে বসুন্ধরা রাজে সরকারকে সরিয়ে রাজস্থানে ক্ষমতা দখলের পর মুখ্যমন্ত্রী গহলৌতের বক্তব্য, তাঁরা নিজেদের অবস্থান বদল করেননি। এব‌ং বিজেপি সরকারের আমলেই ঘটনার তদন্ত করা হয়েছিল, প্রয়োজনে পুনরায় যার তদন্ত করতেও রাজি তাঁর সরকার।

শুধুমাত্র পহলু খানই নন, চার্জশিটে নাম রয়েছে তাঁর দুই ছেলে আরিফ খান ও ইরশাদ খান এবং পিকআপ ট্রাকের চালকেরও। ২০১৭-র এপ্রিলে জয়পুরের একটি পশুহাট থেকে গরু কিনে বাড়ি ফিরছিলেন ৫৫ বছরের পহলু। সঙ্গে ছিলেন তাঁর দুই ছেলে আরিফ ও ইরশাদ। অলওয়রে তাঁদের গাড়ি থামায় গোরক্ষকেরা। গরু পাচারের অভিযোগ চলে বেধড়ক মারধর। অভিযোগ, গরু কেনার রসিদ দেখিয়েও কোনও লাভ হয়নি। যদিও পুলিশের দাবি ছিল, তাঁদের সঙ্গে প্রয়োজনীয় নথিপত্র ছিল না।

মারধরের পর আহত অবস্থায় পহলু খানকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে সেখানেই মারা যান তিনি। গুরুতর আহত হন তাঁর দুই ছেলেও। রাজস্থান পুলিশ সে সময় দু’টি এফআইআর দায়ের করে। প্রথম এফআইআরে আট জনের বিরুদ্ধে পহলুকে মারধরের অভিযোগ আনা হয়। এবং দ্বিতীয় এফআইআরে অভিযোগ করা হয়, জেলাশাসকের বিনা অনুমতিতে পহলু ও তাঁর দুই ছেলে গরু পাচার করছিলেন। তবে ওই আট অভিযুক্তই পরে জামিন পেয়ে যায়। ওই ঘটনায় দেশে-বিদেশে সাড়া পড়ে যায়। গোরক্ষকদের তাণ্ডবের বিরুদ্ধে মুখ খোলে কংগ্রেস-সহ অন্য বিরোধী দল।

Advertisement

আরও পড়ুন: ‘যারা দেশের বিভাজন চায়, তাদের ভয় পাওয়াই উচিত’, কাশ্মীর নিয়ে হুঁশিয়ারি অমিতের

গত বছরের ডিসেম্বরে এই চার্জশিট তৈরি করা হয়েছিল। তবে রাজস্থানে কংগ্রেস সরকার গঠনের পর চলতি বছরের ২৯ মে বেহররের একটি আদালতের অতিরিক্ত চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটের কাছে তা পেশ করা হয়।

আরও পড়ুন: ব্যান্ডেল স্টেশনে পয়েন্ট ব্ল্যাঙ্ক রেঞ্জ থেকে গুলি করে খুন তৃণমূল নেতাকে, অভিযোগের তির বিজেপির দিকে

এই ঘটনায় চার্জশিট পাওয়ার খবরে হতবাক পহলু খানের পরিবার। পহলুর ছেলে ইরশাদ জানিয়েছেন, কংগ্রেস সরকার ক্ষমতায় আসার পর তাঁরা ভেবেছিলেন অবস্থার পরিবর্তন হবে। তবে এই ঘটনায় সমালোচনার মুখে পড়েছেন মুখ্যমন্ত্রী অশোক গহলৌত। এআইএমআইএম-এর আসাদুদ্দিন ওয়াইসির দাবি, ক্ষমতায় আসা কংগ্রেস আসলে বিজেপি-র হুবহু প্রতিরূপ মাত্র। এই চার্জশিটের কথা প্রকাশ্যে আসতেই প্রশ্ন উঠছে, তবে কি ক্ষমতায় আসার পর নিজেদের অবস্থান বদল করল কংগ্রেস? যদিও সে অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছেন গহলৌত। মুখ বাঁচাতে তিনি বলেন, “বিজেপি সরকারের আমলে ওই ঘটনার তদন্ত করা হয়েছিল। এবং সে সময় চার্জশিট পেশ করা হয়।” গহলৌতের আরও আশ্বাস, ‘‘কোনও অসঙ্গতি মিললে ঘটনার পুনরায় তদন্তে করা হবে।’’

এবার শুধু খবর পড়া নয়, খবর দেখাও। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের YouTube Channel - এ।

আরও পড়ুন

Advertisement