Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৮ মে ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

নাকু লা-য় সংঘর্ষের আগেই লাদাখে আকাশসীমা লঙ্ঘন চিনা কপ্টারের

লাদাখে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা (এলএসি) বরাবর এলাকায় সংঘর্ষে জড়িয়েছিল ভারত-চিন।

সংবাদ সংস্থা
নয়াদিল্লি ১২ মে ২০২০ ১৩:০৭
Save
Something isn't right! Please refresh.
—ফাইল চিত্র।

—ফাইল চিত্র।

Popup Close

উত্তর সিকিমের নাকু লা সেক্টরে ভারত-চিন সেনা সংঘর্ষের আগেও লাদাখে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা (এলএসি) বরাবর এলাকায় সংঘর্ষে জড়িয়েছিল দু'দেশ। তার আগে লাদাখে এলএসি-বরাবর এলাকায় উড়ছিল চিনের কপ্টার। এমনটাই জানাল ভারত। ওই ঘটনা ঘটেছিল গত মঙ্গলবার, ৫ মে। সে দিন লাদাখে এলএসি-র অত্যন্ত কাছে এসে পড়েছিল চিনের ২টি চপার। এক সময় তা ভারতের আকাশসীমাও লঙ্ঘন করেছিল। ঘটনার সময় ভারতীয় বায়ুসেনার একটি বিমান ওই এলাকায় রুটিনমাফিক নজরদারি করছিল। সে সময় চিনের কপ্টারগুলি এলএসি-র কাছে এসে পড়ে। চিনের কপ্টারগুলির উপস্থিতি জানতে পেরে সঙ্গে সঙ্গে সেখানে ছুটে যায় ভারতীয় বায়ুসেনার সুখোই যুদ্ধবিমান। তবে ভারতের তরফে আকাশসীমা লঙ্ঘন করা হয়নি বলে জানানো হয়েছে। সে সময় কোনও অপ্রীতিকর ঘটনা না ঘটলেও সন্ধ্যায় লাদাখে এলএসি বরাবর এলাকায় নিজেদের মধ্যে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে দু'দেশের সেনা।

সংবাদ সংস্থা এএনআই সূত্রে খবর, মঙ্গলবার এলএসি-র কাছে চিনের হেলিকপ্টার উড়তে দেখে সঙ্গে সঙ্গে সেখানে ছুটে গিয়েছিল ভারতীয় বায়ুসেনার যুদ্ধবিমান। এর পর ওই এলাকায় টহলদারি শুরু করে যুদ্ধবিমানগুলি। পরিস্থিতির দিকেও নজর রাখতে শুরু করে ভারতীয় বায়ুসেনা। সেই সন্ধ্যাতেই লাদাখে এলএসি-র কাছে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয় ভারত ও চিনের সেনাবাহিনীর মধ্যে। তবে সেখানে গোলাগুলি চলেছিল কি না, তা জানা না গেলেও একটি সূত্রের দাবি, ওই সংঘর্ষে ভারতের প্রায় ৭০ থেকে ৮০ জন সেনা জওয়ান আহত হয়েছিলেন। এর পর ঘটনাস্থলে দু'পক্ষের আরও সেনা উপস্থিত হলে পরিস্থিতি শান্ত হয়।

আরও পড়ুন: আজ রাত ৮টায় জাতির উদ্দেশে ভাষণ প্রধানমন্ত্রীর

Advertisement

আরও পড়ুন: করোনা-সংক্রমণ নেই এয়ার ইন্ডিয়ার ৫ পাইলটের, দ্বিতীয় পরীক্ষা নেগেটিভ

মঙ্গলবারের পর গত শনিবার উত্তর-পূর্ব সীমান্তে ফের দু'দেশের মধ্যে সাময়িক উত্তেজনা সৃষ্টি হয়েছিল। উত্তর সিকিমের নাকু লা সেক্টরে ভারত এবং চিনের সেনানিদের মধ্যে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। ভারতীয় সেনা সূত্রে খবর, নাকু লা সেক্টরে সীমান্ত চুক্তি লঙ্ঘন করে এগোচ্ছিল চিন। ওই বিষয়টি নজরে আসার পরই রুখে দাঁড়ায় ভারতীয় সেনা। গোলাগুলি না চললেও ধাক্কাধাক্কি হয় দুই দেশের সেনাজওয়ানদের মধ্যে। তাতে দু’পক্ষেরই বেশ কয়েক জন জওয়ান আহত হন। এর পর স্থানীয় স্তরে আলোচনার মাধ্যমে ওই বিবাদ মিটে যায়। নাকু লা-য় পরিস্থিতি শান্ত হলেও প্রায় ওই সময়েই লাদাখে চিনের কপ্টারগুলি উড়ছিল বলে সরকারি সূত্রের খবর। তবে এ ক্ষেত্রেও পরিস্থিতি আর ঘোরালো হয়নি বলে জানা গিয়েছে।

ভারত-চিন, দু’দেশের সীমান্ত বরাবর এ ধরনের সঙ্ঘর্ষ অবশ্য নতুন নয়। ২০১৭ সাল ডোকলামে সীমান্ত বিবাদের জেরে দু’‌দেশের সেনাবাহিনীর মধ্যে উত্তপ্ত পরিস্থিতি তৈরি হয়েছিল। সে বছরের ১৬ জুন থেকে ২৮ অগস্ট পর্যন্ত ডোকলাম সীমান্তে ৭৪ দিন মুখোমুখি দাঁড়িয়ে ছিল দু’দেশের সেনা। শেষ পর্যন্ত কূটনৈতিক স্তরে আলোচনার মাধ্যমে ডোকলাম-পরিস্থিতি শান্ত হয়।

(অভূতপূর্ব পরিস্থিতি। স্বভাবতই আপনি নানান ঘটনার সাক্ষী। শেয়ার করুন আমাদের। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিয়ো আমাদের ইমেলে পাঠিয়ে দিন, feedback@abpdigital.in ঠিকানায়। কোন এলাকা, কোন দিন, কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই দেবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।)



Something isn't right! Please refresh.

Advertisement