×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

০৮ মার্চ ২০২১ ই-পেপার

সেনা তথ্য পাচার, গুপ্তচরবৃত্তির অভিযোগে দিল্লিতে ধৃত চিনা মহিলা-সহ তিন

সংবাদ সংস্থা
নয়াদিল্লি ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ ১৭:৩৪
দিল্লিতে ধৃত তিন সন্দেহভাজন চিনা গুপ্তচর। ছবি: টুইটার থেকে নেওয়া।

দিল্লিতে ধৃত তিন সন্দেহভাজন চিনা গুপ্তচর। ছবি: টুইটার থেকে নেওয়া।

গুপ্তচরবৃত্তির অভিযোগে এক চিনা মহিলা এবং তাঁর নেপালি সহযোগীকে গ্রেফতার করল দিল্লি পুলিশ। গোপনীয় সরকারি নথি পাচারের অভিযোগে শুক্রবার তাঁদের ধরে দিল্লি পুলিশের বিশেষ সেল। প্রসঙ্গত, গুপ্তচরবৃত্তির অভিযোগে রাজীব শর্মা নামে এক ফ্রিল্যান্স সাংবাদিককে সোমবার ধরা হয়েছিল। তাঁকে জেরা করেই চিনা গুপ্তচর চক্রের সন্ধান মেলে বলে পুলিশের দাবি।

দিল্লি পুলিশ শনিবার জানিয়েছে, ‘স্পর্শকাতর সরকারি তথ্য’ পাওয়ার বিনিময়ে রাজীবকে বিপুল টাকা দিয়েছিলেন ধৃত মহিলা এবং তাঁর সহযোগী। ধৃতদের কাছ থেকে একাধিক ল্যাপটপ, মোবাইল এবং অন্যান্য আপত্তিকর সামগ্রী বাজেয়াপ্ত করা হয়। তাঁদের বিরুদ্ধে ‘অফিশিয়াল সিক্রেটস অ্যাক্ট’-এ মামলা রুজু করেছে পুলিশ। রাজীবকে মঙ্গলবার দিল্লির একটি আদালতে তোলা হলে বিচারক ছ’দিনের পুলিশি হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছিলেন।

দিল্লি পুলিশের ডেপুটি কমিশনার (বিশেষ সেল) সঞ্জীবকুমার যাদব এ দিন সাংবাদিক বৈঠকে জানান, রাজীব উত্তর-পশ্চিম দিল্লির পীতমপুরা এলাকার বাসিন্দা। তিনি বলেন, ‘‘প্রতিরক্ষা বিষয়ক গোপনীয় কিছু নথি আমরা উদ্ধার করেছি। ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে। প্রয়োজনে এ বিষয়ে অন্য তদন্তকারী সংস্থার সঙ্গেও যোগাযোগ করা হবে।’’ রাজীব আগে পঞ্জাব থেকে প্রকাশিত একটি ইংরেজি দৈনিকের সাংবাদিক ছিলেন বলে জানা গিয়েছে।

Advertisement

আরও পড়ুন: করোনার কোপে মেয়াদ কমতে পারে বাদল অধিবেশনের

প্রসঙ্গত, বছর দু’য়েক আগেও রাজধানীতে চিনা গুপ্তচর চক্রের সন্ধান পেয়েছিল দিল্লি পুলিশ। গ্রেফতার করা হয়েছিল এক চিনা নাগরিক-সহ কয়েকজনকে। তখন চার্লি নামে ধৃত চিনা নাগরিক হিমাচল প্রদেশের ধর্মশালায় নির্বাসিত তিব্বতি সরকারের দফতরের উপর নজরদারির দায়িত্বে ছিলেন। পাশাপাশি, তদন্তে জানা গিয়েছিল, অরুণাচল প্রদেশ-সহ উত্তর-পূর্বাঞ্চলের নানা রাজ্যেও তাঁর ‘যাতায়াত’ ছিল।

আরও পড়ুন: জম্মু-কাশ্মীরে ১৩৫০ কোটির প্যাকেজ কেন্দ্রের, এক বছর জল ও বিদ্যুতে ৫০ শতাংশ ছাড়

Advertisement