Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৯ মে ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

LDF Kerala: আদালতের প্রশ্নে কেরলে সম্মেলনে রাশ সিপিএমের 

কেরলে শনিবারই নতুন কোভিড সংক্রমণ হয়েছে ৪৫ হাজার ১৬৬। রাজ্যে মোট ‘অ্যাক্টিভ’ করোনা রোগীর সংখ্যা এখন ২ লক্ষ ৪৭ হাজার ২২৭।

নিজস্ব সংবাদদাতা 
কলকাতা ২৩ জানুয়ারি ২০২২ ০৭:০৫
Save
Something isn't right! Please refresh.
প্রতীকী ছবি।

প্রতীকী ছবি।

Popup Close

রাজ্যে বেড়ে চলেছে কোভিড সংক্রমণ। তারই মধ্যে চলছিল সিপিএমের সম্মেলন-পর্ব। শেষ পর্যন্ত কেরল হাই কোর্টের ‘ভর্ৎসনা’র মুখে পড়ে জেলা সম্মেলনে রাশ টানল কেরল সিপিএম। দু’টি জেলার সম্মেলন গুটিয়ে দেওয়া হয়েছে তড়িঘড়ি। অন্য আর একটি জেলার সম্মেলন আপাতত পিছিয়ে দেওয়া হয়েছে।

কেরলে শনিবারই নতুন কোভিড সংক্রমণ হয়েছে ৪৫ হাজার ১৬৬। রাজ্যে মোট ‘অ্যাক্টিভ’ করোনা রোগীর সংখ্যা এখন ২ লক্ষ ৪৭ হাজার ২২৭। রাজ্যের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ভি এস অচ্যুতানন্দনও করোনা আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি। সংক্রমণ ঊর্ধ্বমুখী থাকায় নতুন করে কিছু বিধিনিষেধ জারি করেছে কেরল রাজ্য সরকার। কাল এবং আগামী ৩০ জানুয়ারি, দুই রবিবার দক্ষিণী ওই রাজ্যে লকডাউনের মতোই বিধিনিষেধ থাকবে। সংক্রমণের হারের নিরিখে জেলাগুলিকে তিনটি শ্রেণিতে ভাগ করে সতর্কতামূলক পদক্ষেপ ঘোষণা করা হয়েছে। এমতাবস্থায় শাসক দলের সম্মেলন কী ভাবে চলছে, সেই প্রশ্ন তুলে কেরল হাই কোর্টে জনস্বার্থের আবেদন করেছিলেন এক আইনজীবী। আদালত প্রশ্ন তুলেছে, ‘এ ক্যাটিগরি’র জেলায় ৫০ জনের বেশি লোক নিয়ে কোনও অনুষ্ঠান করা যাবে না বলে যেখানে প্রশাসন নির্দেশ জারি করেছে, প্রজাতন্ত্র দিবসের অনুষ্ঠানও যখন নিয়ন্ত্রিত হচ্ছে, সেখানে রাজনৈতিক দলের সম্মেলন চলছে কী ভাবে? সম্মেলনেও উপস্থিতির সংখ্যা ৫০-এ বেঁধে রাখতে হবে বলে নির্দেশ দিয়েছে হাই কোর্ট। তার পরেই নড়েচড়ে বসেছেন সিপিএম নেতৃত্ব।

সিপিএমের কেরল রাজ্য নেতৃত্বের বক্তব্য, বিভিন্ন অঞ্চলের কমিটি থেকে জেলা সম্মেলনের প্রতিনিধি বাছাই করা হয়ে গিয়েছে। এক একটা জেলা সম্মেলনে গড়ে দু’শো জন প্রতিনিধি থাকছেন। সেই সংখ্যা ৫০-এ নামিয়ে আনা হবে কীসের ভিত্তিতে? এই অসুবিধার জন্যই সম্মেলন চলছিল প্রেক্ষাগৃহে কোভিড-বিধি মেনে, এখন আদালতের রায়ের পরে তা আপাতত একেবারে বন্ধ রাখতে হবে। হাই কোর্ট যখন শুক্রবার নির্দেশ দেয়, তত ক্ষণে কাসারগোড় ও ত্রিশূরে তিন দিনের জেলা সম্মেলন শুরু হয়ে গিয়েছিল। রাতেই কাসারগোড়ের সম্মেলন শেষ করে দেওয়া হয়েছে, ত্রিশূরের সম্মেলন মিটে গিয়েছে এ দিন। আলপ্পুঝা জেলা সম্মেলন ২৮ জানুয়ারি শুরু হওয়ার কথা ছিল, তা আপাতত স্থগিত রাখা হয়েছে। ওই তিন জেলাই কোভিড-নির্দেশিকায় ‘এ ক্যাটিগরি’তে আছে। কোচিতে সিপিএমের রাজ্য সম্মেলন হওয়ার কথা মার্চের শুরুতে। ফেব্রুয়ারি মাসে পরিস্থিতি বুঝে বকেয়া জেলা সম্মেলন শেষ করার পরিকল্পনা করবে সিপিএম।

Advertisement


Something isn't right! Please refresh.

Advertisement