×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

২০ জানুয়ারি ২০২১ ই-পেপার

অতি প্রবল ঘূর্ণিঝড়ের আকারে আজ রাতেই ছোবল মারতে পারে নিভার, সর্বোচ্চ গতি হতে পারে ১৪৫ কিমি

সংবাদ সংস্থা
নয়াদিল্লি২৫ নভেম্বর ২০২০ ১১:৫৪
নিভার যত এগোচ্ছে উত্তাল হচ্ছে সমুদ্র। ছবি সৌজন্য টুইটার।

নিভার যত এগোচ্ছে উত্তাল হচ্ছে সমুদ্র। ছবি সৌজন্য টুইটার।

পুদুচেরি থেকে ৩১০ কিলোমিটার পূর্ব ও দক্ষিণ-পূর্বে এবং চেন্নাই থেকে ৩৭০ কিলোমিটার পূর্ব ও দক্ষিণ-পূর্বে দক্ষিণ-পশ্চিম বঙ্গোপসাগরের উপর অবস্থান করছে ঘূর্ণিঝড় নিভার। মৌসম ভবন জানিয়েছে, আগামী ১২ ঘণ্টার মধ্যে ‘অতি প্রবল ঘূর্ণিঝড়ের’ রূপ নিয়ে মমল্লাপুরম এবং কারাইকলের মাঝে বুধবার রাতের দিকে আছড়ে পড়ার প্রবল সম্ভাবনা রয়েছে। নিভার আছড়ে পড়ার সময় এর গতিবেগ হতে পারে ঘণ্টায় ১২০-১৩০ কিলোমিটার। সর্বোচ্চ গতিবেগ হতে পারে ঘণ্টায় ১৪৫ কিলোমিটার।

গভীর নিম্নচাপের প্রভাবে মঙ্গলবার থেকেই তামিলনাড়ু এবং পুদুচেরিতে বৃষ্টি শুরু হয়েছে। কোথাও কোথাও ভারী বৃষ্টি হয়েছে বলে খবর। তামিলনাড়ু, পুদুচেরি এবং উপকূলীয় অন্ধ্রপ্রেদশে এ দিন থেকে বৃষ্টির মাত্রা আরও বাড়বে বলে মৌসম ভবন সূত্রে খবর। তামিলনাড়ুর চেন্নাই, কাঞ্চিপুরম এবং চিঙ্গলপেটে অতি ভারী বৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

Advertisement

পরিস্থিতির মোকাবিলায় গ্রেটার চেন্নাইয়ে ১২৯টি ত্রাণ শিবির খোলা হয়েছে। নিচু এলাকা থেকে লোকজনকে সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে মঙ্গলবারই। জাতীয় বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনীর (এনডিআএফ) ১২০০ সদস্যকে তামিলনাড়ু, পুদুচেরি এবং অন্ধ্রপ্রদেশে মোতায়েন করা হয়েছে। এর মধ্যে ১২টি দল গিয়েছে তামিলনাড়ুতে, ৭টি অন্ধ্রপ্রদেশে এবং ৩টি পুদুচেরিতে। অতিরিক্ত ২০টি দল প্রস্তুত রাখা হয়েছে বলে বলে এনডিআরএফ সূত্রে খবর। পরিস্থিতির উপর নজর রাখছে নৌবাহিনীও। তামিলনাড়ু এবং পুদুচেরি প্রশাসনের সঙ্গে অনবরত যোগাযোগ রাখছে তারা। প্রস্তুত রাখা হয়েছে উপকূলরক্ষী বাহিনীর জাহাজ এবং উদ্ধারকারী হেলিকপ্টারও।

যে গতিতে নিভার তামিলনাড়ু এবং পুদুচেরির দিকে এগিয়ে আসছে, বিশাল ক্ষয়ক্ষতির আশঙ্কায় আগেভাগেই কোমর বেঁধেছে তামিলনাড়ু এবং পুদুচেরি। তামিলনাড়ুতে এ দিন সরকারি ছুটি ঘোষণা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী ই পলানীস্বামী। রেল ও বাস পরিষেবাতেও কিছুটা রাশ টানা হয়েছে ঘূর্ণিঝড়ের জন্য। পুদুচেরিতে জমায়েতের উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। একমাত্র আপত্কালীন পরিষেবা ছাড়া বাকি দোকানপাট বন্ধ করে রাখতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

 


অন্ধ্রপ্রদেশেও সতর্কতা জারি করা হয়েছে। বিশেষ করে নেল্লোর এবং চিত্তুর জেলায় বাড়তি সতর্কতা জারি করা হয়েছে। কাডাপা, কুর্নুল এবং অনন্তপুরে মঙ্গলবার থেকেই বৃষঅটি শুরু হয়েছে। সমুদ্র তীরবর্তী নিচু এলাকাগুলো থেকে বাসিন্দাদের উঁচু স্থানে সরানো হয়ে বলে রাজ্য প্রশাসন সূত্রে খবর।

নিভার যত এগিয়ে আসছে সমুদ্র ততই উত্তাল হচ্ছে। পুদুচেরিতে সমুদ্র ব্যাপক উত্তাল হয়ে উঠেছে। সঙ্গে চলছে ঝোড়ো হাওয়া। মৌসম ভবনের ডিরেক্টর মৃত্যুঞ্জয় মহাপাত্র জানিয়েছেন, নিভার আছড়ে পড়ার সময় সমুদ্রের জল দেড় মিটার পর্যন্ত উঠতে পারে।

Advertisement