Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৬ অক্টোবর ২০২১ ই-পেপার

আজ যাচ্ছেন রাহুল-প্রিয়ঙ্কা, হাথরস কাণ্ডে আরও চাপে যোগী

সংবাদ সংস্থা
নয়াদিল্লি ০১ অক্টোবর ২০২০ ১১:১৯
নির্যাতিতার পরিবারের সঙ্গে দেখা করার কথা রাহুল গাঁধী ও প্রিয়ঙ্কা গাঁধীর।— ফাইল চিত্র

নির্যাতিতার পরিবারের সঙ্গে দেখা করার কথা রাহুল গাঁধী ও প্রিয়ঙ্কা গাঁধীর।— ফাইল চিত্র

উত্তরপ্রদেশের হাথরসের ঘটনাকে সামনে রেখে এ বার কোমর বেঁধে ময়দানে নামছে কংগ্রেস। বৃহস্পতিবার ওই নিহত তরুণীর পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে হাথরস যাচ্ছেন রাহুল গাঁধী এবং প্রিয়ঙ্কা ভদ্র। পরিস্থিতি অগ্নিগর্ভ হয়ে ওঠার আশঙ্কায় এলাকায় ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন হাথরসের জেলাশাসক। তবে বিরোধীরা বলছে, রাহুল-প্রিয়ঙ্কা যাবেন বলেই আগেভাগে ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছে।

হাথরসে নারী নির্যাতনের সাম্প্রতিকতম ঘটনা ঘিরে দেশ জুড়ে শোরগোল পড়ে গিয়েছে। ফের জীবন্ত হয়ে উঠেছে ২০১২ সালে নির্ভয়া গণধর্ষণ কাণ্ডের স্মৃতি। ইতিমধ্যেই দেশের একাধিক জায়গায় হাথরসের ঘটনাকে সামনে রেখে বিক্ষোভ-প্রতিবাদে নেমেছে বিরোধী দলগুলি। বুধবার মুম্বইতে মোমবাতি মিছিল করেন কংগ্রেস কর্মী সমর্থকরা। বৃহস্পতিবার কলকাতাতেও একটি প্রতিবাদ বিক্ষোভের আয়োজন করা হয়েছে। সেই বার্তা ভরকেন্দ্রে পৌঁছে দিতেই যেন এদিন হাথরস যাচ্ছেন রাহুল- প্রিয়ঙ্কা। কারণ, গণধর্ষণ এবং খুনের ঘটনা ঘিরে যোগী সরকারের বিরুদ্ধে সর্বাত্মক ভাবে পথে নেমেছে বিরোধীরা। তারা উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্র্রী যোগী আদিত্যনাথের পদত্যাগ দাবি করেছে। এর মধ্যে আবার নিহত তরুণীর দেহ তাঁর পরিবারের হাতে তুলে না দিয়ে তড়িঘড়ি দাহ করার অভিযোগ সেই আগুনে ঘি ঢেলেছে। এই পরিস্থিতিতে রাহুল-প্রিয়ঙ্কার হাথরস সফর তাৎপর্যপূর্ণ বলেই মনে করা হচ্ছে।

রাহুল-প্রিয়ঙ্কার হাথরস সফরের তীব্র বিরোধিতা করছে বিজেপি। কেন্দ্রীয় মন্ত্রী মুখতার আব্বাস নকভির দাবি, এলাকায় উত্তেজনা ছড়াতে ‘রাজনৈতিক পর্যটন’ করতে যাচ্ছেন রাহুল। তাঁর আশ্বাস, ‘‘উত্তরপ্রদেশ সরকার দ্রুত ব্যবস্থা নিচ্ছে। খুব তাড়াতাড়ি তার ফল দেখতে পাওয়া যাবে।’’

Advertisement

আরও পড়ুন: হাথরসের পর বলরামপুর, ফের গণধর্ষণের জেরে মৃত্যু দলিত মহিলার

হাথরসের জেলাশাসক পি লস্কর অবশ্য সংবাদ সংস্থা এএনআই-কে জানিয়েছেন, রাহুল- প্রিয়ঙ্কার সফরের কোনও খবর তাঁদের কাছে নেই। তিনি আরও বলেছেন, ‘ অপ্রীতিকর পরিস্থিতি’ এড়াতে জেলার সীমানা সিল করে দেওয়া হয়েছে এবং এলাকায় ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছে। ঘটনার তদন্তে যে বিশেষ তদন্তকারী দল (সিট) গঠন করা হয়েছে, তার সদস্যরা এদিন নিহত তরুণীর পরিবারের সঙ্গে দেখা করবেন বলে জানিয়েছেন লস্কর।

হাথরসের ঘটনা নিয়ে তোলপাড় রাজনৈতিক মহল। এ দিনই টুইট করে রাহুল অভিোগ করেন, উত্তরপ্রদেশে ‘জঙ্গলরাজ’ চলছে এবং তার শিকার হচ্ছেন মহিলারা।


আরও পড়ুন: চিন্তা বাড়াচ্ছে কেরল, দেশে মোট আক্রান্ত ৬৩ লক্ষ ছাড়াল

যোগী সরকারকে আক্রমণে রাহুলের সুরই শোনা গিয়েছে মহারাষ্ট্রের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অনিল দেশমুখের গলায়। তাঁরও অভিযোগ, উত্তরপ্রদেশে ‘জঙ্গলরাজ’ চলছে। হাথরস এবং বলরামপুর, পর পর দু’টি নারী নির্যাতনের ঘটনা নিয়ে সরব হয়েছেন বহুজন সমাজ পার্টির নেত্রী মায়াবতীও। যোগীকে বিঁধে তাঁর মন্তব্য, উত্তরপ্রদেশে আইনের শাসন নেই।

ধারালো আক্রমণ শানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও। তিনি টুইট করেছেন, ‘‘হাথরসের দলিত তরুণীকে ঘিরে এই বর্বর এবং লজ্জাজনক কাণ্ডের নিন্দার কোনও ভাষা নেই। নির্যাতিতার পরিবারকে গভীর সমবেদনা জানাই। আরও লজ্জাজনক ঘটনা হল, পরিবারের কারও অনুমতি এবং উপস্থিতি ছাড়াই তরুণীর দেহ সৎকার করে দেওয়া। যারা খালি ভোটের জন্য স্লোগান দেয় আর লম্বাচওড়া প্রতিশ্রুতি দেয় তাদের আসল চেহারাটা সামনে এনে দিচ্ছে এই ঘটনা।’’


আরও পড়ুন

Advertisement