Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৮ মে ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

প্যাংগং থেকে ভারত এবং চিনের সেনা সরানোর প্রক্রিয়া সমাপ্ত, দাবি সরকারি সূত্রে

প্যাংগংয়ের পর লাদাখের দেপসাং, হট স্প্রিং এবং গোগরা অঞ্চলেও সেনা সরানোর কাজ শুরু হবে বলে সূত্রের খবর। এ নিয়ে শনিবার বৈঠকে বসবে ভারত-চিন।

সংবাদ সংস্থা
নয়াদিল্লি ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২১ ১৪:২২
Save
Something isn't right! Please refresh.


—ফাইল চিত্র।

Popup Close

লাদাখ সংঘর্ষের প্রায় বছর ঘুরতে যাওয়ার সময় অবশেষে প্যাংগং হ্রদের দু’ধার থেকেই সেনা সরানোর কাজ শেষ করেছে ভারত এবং চিন। শুক্রবার সরকারি সূত্রের এমনটাই দাবি করা হল।

ওই সূত্রের খবর, প্যাংগং হ্রদের থেকে সেনা সরানোর পর লাদাখের দেপসাং, হট স্প্রিং এবং গোগরা অঞ্চলেও সেনা সরানোর কাজ শুরু হবে। এ নিয়ে শনিবার একটি বৈঠকে বসবেন ভারত এবং চিনের সামরিক বাহিনীর শীর্ষকর্তারা। দু’দেশের দশম দফার ওই বৈঠকে সেনা সরানোর প্রক্রিয়া নিয়ে আলোচনা করা হবে বলে ওই সূত্রের তরফে জানানো হয়েছে।

গত বছরের এপ্রিলে পূর্ব লাদাখে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা (লাইন অব অ্যাকচুয়াল কন্ট্রোল বা এএসি) বরাবর এলাকায় ভারত-চিন সেনা সংঘর্ষের পর ওই অঞ্চলের স্থিতাবস্থা ফিরিয়ে আনার জন্য দু’দেশের মধ্যে দফায় দফায় বৈঠক হয়েছে। অবশেষে দু’পক্ষই ধীরে ধীরে প্যাংগং হ্রদ এলাকা থেকে সেনা সরাতে শুরু করে। জানুয়ারির শেষ দিকেও ওই এলাকায় চিনের একাধিক সেনা ছাউনি ছিল। তবে তা পুরোপুরি সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি, ভারত-চিন, দু’পক্ষের তরফেই ওই অঞ্চলে মোতায়েন সেনা জওয়ান, ট্যাঙ্ক-সহ অন্য সামরিক অস্ত্রশস্ত্রও সরিয়ে নিয়েছে।

Advertisement

প্যাংগং হ্রদের দু’ধার থেকে ভারত-চিনের সেনা সরানোর বিষয়টি সম্প্রতি রাজ্যসভায় জানিয়েছিলেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিংহ। তিনি আরও বলেছিলেন, লাদাখ সীমান্তে দু’দেশের মধ্যে অচলাবস্থা কাটাতে ধীরে ধীরে সেনা সরানো হবে। এ বিষয়ে ভারত-চিন, দু’পক্ষই রাজি হয়েছে বলেও উল্লেখ করেছিলেন রাজনাথ। গোটা বিষয়ে সমন্বয় সাধন করে এবং পরিস্থিতি যাচাই করেই সেনা সরানোর কাজ করা হবে বলেও জানিয়েছিলেন তিনি। এর পর লাদাখ নিয়ে অচলাবস্থা কাটানোর জন্য দু’দেশের সামরিক কর্তাদের মধ্যেও আলোচনা শুরু হবে।

এপ্রিলে লাদাখ-সংঘর্ষের পর জুনে দু’দেশের মধ্যে উত্তেজনা আরও বৃদ্ধি পায়। ১৫ জুন লাদাখের গালওয়ান উপত্যকায় চিনা বাহিনীর সঙ্গে সঙ্ঘর্ষে নিহত হন ভারতীয় সেনার এক উচ্চপদস্থ আধিকারিক-সহ ২০ জন। ঘটনাচক্রে, শুক্রবারই চিন স্বীকার করে, ওই সঙ্ঘর্ষে তাদের ৫ জন সেনা নিহত হয়েছিলেন।

এর পর থেকে দফায় দফায় দু’দেশের মধ্যে সামরিক এবং কূটনৈতিক স্তরে আলোচনা হলেও ফেব্রয়ারির গোড়া পর্যন্ত অচলাবস্থা কাটানোর কোনও রফাসূত্র বার হয়নি। তবে চলতি সপ্তাহের স্যাটেলাইট চিত্রে ধরা পড়েছে, প্যাংগং হ্রদ এলাকা থেকে দু’পক্ষই ধীরে ধীরে সেনা সরানোর কাজ শুরু করেছে। এর পর এল এই খবর।



Something isn't right! Please refresh.

Advertisement