Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

০২ ডিসেম্বর ২০২১ ই-পেপার

অভিনন্দন ফের উড়বেন? নির্ভর করছে সুস্থতার উপর, বললেন বায়ু সেনাপ্রধান

সংবাদ সংস্থা
নয়াদিল্লি ০৪ মার্চ ২০১৯ ১৭:২১
অভিনন্দন বর্তমানের সঙ্গে দেখা করলেন কেন্দ্রীয় প্রতিরক্ষা প্রতিমন্ত্রী সুরেশ ভামরে। ছবি: টুইটার থেকে নেওয়া

অভিনন্দন বর্তমানের সঙ্গে দেখা করলেন কেন্দ্রীয় প্রতিরক্ষা প্রতিমন্ত্রী সুরেশ ভামরে। ছবি: টুইটার থেকে নেওয়া

মেরুদণ্ডে চোট রয়েছে। চিড় ধরেছে পাঁজরের হাড়ে। বায়ু সেনার উইং কমান্ডার অভিনন্দন বর্তমানকে সেই অসুস্থতা কাটিয়ে উঠতে হবে আগে। যত তাড়াতাড়ি সুস্থতা প্রকাটিয়ে উঠবেন, তত তাড়াতাড়ি ককপিটে ফিরতে পারবেন তিনি। জানালের বায়ু সেনাপ্রধান এয়ার চিফ মার্শাল বীরেন্দ্র সিংহ ধানোয়া। পাকিস্তানে বিমান হানার পর এই প্রথম সাংবাদিক সাংবাদিক বৈঠক করল ভারতীয় বায়ু সেনা। তবে বায়ু সেনার অভিযানে পাকিস্তানে হতাহতের সংখ্যা নিয়ে মন্তব্য করতে চাননি বায়ু সেনা প্রধান।

প্রায় ৫৮ ঘণ্টা পাক সেনার কব্জায় থাকার পর শুক্রবার রাতে দেশে ফেরেন অভিনন্দন। তার পর থেকেই দিল্লিতে সেনাবাহিনীর আর আর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন উইং কমান্ডার। সেখানে তাঁর চিকিৎসা এবং শারীরিক পরীক্ষা-নিরীক্ষা চলছে। রবিবারই চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, পাকিস্তান তাঁর শরীরে কোনও আড়ি পাতার যন্ত্র ঢুকিয়ে দিতে পারেনি। তবে তাঁর মেরুদণ্ডের নীচের অংশে আঘাত ধরা পড়েছে। চোট রয়েছে পাঁজরের হাড়েও। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ এও জানায়, আরও অন্তত ১০ দিন চিকিৎসা এবং শারীরিক পরীক্ষার জন্য হাসপাতালে ভর্তি থাকতে হবে তাঁকে। ফলে অন্তত এই ১০ দিনের আগে যে অভিনন্দন কাজে যোগ দিতে পারবেন না, সেটা কার্যত নিশ্চিতই ছিল।

এই পরিস্থিতিতে সোমবার সাংবাদিক বৈঠক করেন বায়ু সেনাপ্রধান। সেখানেই অভিনন্দন কবে কাজে যোগ দিতে পারবেন, সেই প্রশ্ন করেন সাংবাদিকরা। ধানোয়া বলেন, ‘‘আপাতত হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন উইং কমান্ডার অভিনন্দন বর্তমান। তিনি কবে ফের ককপিটে বসতে পারবেন, সেই বিষয়টি নির্ভর করছে তাঁর শারীরিক সুস্থতার উপর। চিকিৎসকরা তাঁকে ‘ফিট’ ঘোষণা করলেই ফের কাজে যোগ দেবেন।’’

Advertisement

অভিনন্দন বর্তমান সম্পর্কে কছু মিস করলেন না তো?

আরও পডু়ন: মৃতের সংখ্যা গোনা নয়, আমাদের কাজ লক্ষ্যে আঘাত করা, বললেন বায়ুসেনা প্রধান

গত ২৭ ফেব্রুয়ারি ভারতের আকাশ সীমা লঙ্ঘন করে ভারতে হামলা চালায় পাক বায়ুসেনা। মিগ-২১ বাইসন যুদ্ধবিমানে পাল্টা প্রতিরোধ করেন ভারতীয় বায়ু সেনার উইং কমান্ডার অভিনন্দন। পাকিস্তানের একটি এফ-১৬ যুদ্ধবিমান ধ্বংস করার পর নিজের বিমানও ধ্বংস হয়ে যায়। তবে তার আগেই বিমান থেকে ‘ইজেক্ট’ করে অর্থাৎ চলন্ত বিমান থেকে বেরিয়ে পাক অধিকৃত কাশ্মীরের মাটিতে নামতে সক্ষম হন অভিনন্দন। তার পরই পাক সেনার হাতে বন্দি হন। তবে তার আগে তাঁকে পাক অধিকৃত কাশ্মীরের জনতা মারধর করে। সেই মারধর এবং ‘ইজেক্ট’ এর এবং মারধরের জেরেই চোট পান অভিনন্দন।

আরও পডু়ন: আমি নই, ইমরান বললেন, নোবেল শান্তি পুরস্কারের যোগ্য তিনিই, যিনি...

(ভারতের রাজনীতি, ভারতের অর্থনীতি- সব গুরুত্বপূর্ণ খবর জানতে আমাদের দেশ বিভাগে ক্লিক করুন।)

আরও পড়ুন

Advertisement