×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

১১ মে ২০২১ ই-পেপার

‘রাজনীতি থেকে দূরে থাকে সেনা’, জবাব রাওয়তের

 সংবাদ সংস্থা
নয়াদিল্লি ০২ জানুয়ারি ২০২০ ০১:০৫
ছবি: এপি।

ছবি: এপি।

সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের (সিএএ) বিরুদ্ধে দেশজোড়া আন্দোলন নিয়ে মন্তব্য করে বিতর্কের মুখে পড়েছিলেন সদ্য প্রাক্তন সেনা প্রধান তথা অধুনা চিফ অব ডিফেন্স স্টাফ (সিডিএস) বিপিন রাওয়ত। সেই বিতর্কের জবাব দিয়ে আজ তিনি বললেন, ‘‘সেনাবাহিনী রাজনীতি থেকে দূরেই থাকে।’’ নয়া সেনাপ্রধান মনোজ মুকুন্দ নরবণেও জানিয়েছেন, সেনাবাহিনী সম্পূর্ণ অরাজনৈতিক। আজ সিডিএসের দায়িত্ব গ্রহণ করেন তিনি। তার আগে রসিকতা করে রাওয়ত জানান, এখন খানিকটা ‘হালকা’ লাগছে।

দিন কয়েক আগে দিল্লিতে এক অনুষ্ঠানে রাওয়ত বলেছিলেন, ‘‘কলেজ বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়ুয়ারা বহু মানুষের ভিড়কে নেতৃত্ব দিয়ে শহরে অগ্নিসংযোগ ও হিংসা ছড়াচ্ছেন। এটা নেতৃত্ব হতে পারে না। যাঁরা মানুষকে ভুল পথে চালিত করেন, তাঁরা নেতা নন।’’ এর পরেই নেতার সংজ্ঞা দিয়ে তিনি বলেছিলেন, ‘‘এক জন নেতা আপনাকে সঠিক অভিমুখে চালিত করবেন, সঠিক পরামর্শ দেবেন এবং আপনার পাশের মানুষদের খেয়াল রাখবেন।’’ বিরোধীরা অভিযোগ করেন, এক জন সেনা প্রধান হয়ে তিনি রাজনৈতিক মন্তব্য করেছেন। আজ ওই বিষয়ে তাঁকে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, ‘‘আমরা রাজনীতি থেকে দূরেই থাকি। সরকারের নির্দেশানুসারে সেনাবাহিনী কাজ করে।’’

আরও পড়ুন: নাগরিকত্ব আইন রদে আইনি পথে সিপিআই

Advertisement

নতুন সেনাপ্রধান মনোজ মুকুন্দ নরবণেও একই সুরে বলেছেন, ‘‘সেনাবাহিনী সব সময়ই অরাজনৈতিক এবং আগামিদিনেও অরাজনৈতিকই থাকবে। আমরা যখন সেনাবাহিনীর সদস্য হই, তখন সংবিধানের নামে শপথগ্রহণ করি এবং সেই শপথকেই সব কিছুর উপরে রাখি।’’

দায়িত্ব নেওয়ার পর রাওয়ত জানিয়েছেন, তিন বাহিনীর মধ্যে আরও সমন্বয় গড়ে তোলা হবে। নয়া সিডিএসের কথায়, ‘‘আমার মূল লক্ষ্য হবে, তিন বাহিনীর মধ্যে কী ভাবে সমন্বয় বাড়ানো যায়। আপনাদের আশ্বস্ত করতে চাই, সেনাবাহিনী, নৌসেনা এবং বায়ুসেনা একটা টিম হিসেব কাজ করবে। সিডিএস ওই তিন বাহিনী পরিচালনা করবে এমনটা নয়, সমন্বয় গড়ে তোলাই এখন প্রধান ও প্রাথমিক কাজ।’’

আজ সাউথ ব্লকের বাইরে দাঁড়িয়ে সাংবাদিকদের একের পর এক প্রশ্নের উত্তর দিয়েছেন রাওয়ত। নয়া সিডিএসের দাবি, তিনি নিরপেক্ষ ছিলেন এবং নিরপেক্ষ থাকবেন। কিছুটা রসিকতা করেই রাওয়ত বলেন, ‘‘মাথাটা এখন হাল্‌কা লাগছে। দীর্ঘ ৪১ বছর ধরে ওই গোর্খা টুপি পরছি। আবার পিক ক্যাপে ফিরে এলাম। এখন ওই টুপিই পরছি। ওই পিক ক্যাপ আমাদের নিরপেক্ষ থাকতে শিখিয়েছে।’’

Advertisement