Advertisement
২৪ জুলাই ২০২৪
Amartya Sen

ই-মেলে অমর্ত্যের পাশে নোবেলজয়ী স্টিগলিৎজ়

বিশ্বভারতী বারবার দাবি করে এসেছে, শান্তিনিকেতনে ১.৩৮ একর নয়, ১.২৫ একর লিজ দেওয়া হয়েছিল অমর্ত্যের বাবা, প্রয়াত আশুতোষ সেনকে।

অমর্ত্য সেন (বাঁ দিকে), জোসেফ স্টিগলিৎজ় (ডান দিকে)।

অমর্ত্য সেন (বাঁ দিকে), জোসেফ স্টিগলিৎজ় (ডান দিকে)। ফাইল চিত্র।

নিজস্ব সংবাদদাতা
শান্তিনিকেতন শেষ আপডেট: ২১ জুলাই ২০২৩ ০৮:০৭
Share: Save:

বিশ্বভারতীর সঙ্গে জমি ‘বিবাদে’ অমর্ত্য সেনের পাশে দাঁড়ালেন আর এক নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ জোসেফ স্টিগলিৎজ় ও প্রবীণ অর্থনীতিবিদ অমিয়কুমার বাগচী। অর্মত্য সেনের প্রতি বিশ্বভারতীর আচরণের প্রতিবাদ করে এবং উপাচার্যের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার দাবিতে রাষ্ট্রপতি দ্রৌপদী মুর্মুকে দেশ-বিদেশের ৩০২ জন শিক্ষাবিদ সম্প্রতি যে চিঠি দিয়েছেন, তাতে তাঁরাও নিজেদের নাম যুক্ত করতে চেয়েছেন বলে দাবি বিশ্বভারতীর শিক্ষক সংগঠনের সভাপতি অধ্যাপক সুদীপ্ত ভট্টাচার্যের। সূত্রের দাবি, ৩০২ জনের সেই তালিকায় ছিলেন নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ জর্জ একারলফও।

বিশ্বভারতী বারবার দাবি করে এসেছে, শান্তিনিকেতনে ১.৩৮ একর নয়, ১.২৫ একর লিজ দেওয়া হয়েছিল অমর্ত্যের বাবা, প্রয়াত আশুতোষ সেনকে। ১৩ ডেসিমাল জমি অমর্ত্য ‘দখল’ করে আছেন বলে বিশ্বভারতী একাধিক বার দাবি করেছে। যদিও রাজ্য সরকার জমির নথি অমর্ত্যের হাতে তুলে দিয়ে জানিয়েছে, ১.৩৮ একরই লিজ দেওয়া হয়েছিল। জমি ‘বিতর্কের’ জল গড়িয়েছে আদালতে। এরই মাঝে একাধিক বার অমর্ত্যকে নানা ভাবে ‘আক্রমণের’ অভিযোগ উঠেছে বিশ্বভারতীর বিরুদ্ধে। তাই ৩০২ জন শিক্ষাবিদের চিঠিতে বিশ্বভারতীর উপাচার্য বিদ্যুৎ চক্রবর্তীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার আর্জি জানানো হয়েছিল। পাশাপাশি, অমর্ত্য সেন নোবেল পুরস্কার পাননি বলে উপাচার্য যে দাবি করেছেন, তারও একযোগে নিন্দা করা হয়েছিল।

এ বার স্টিগলিৎজ় ও অমিয়কুমারও সেই চিঠির সমর্থন করলেন বলে সুদীপ্ত জানিয়েছেন। তাঁর কথায়, স্টিগলিৎজ়ের অফিস থেকে তাঁকে ই-মেল করে নোবেলজয়ীর নাম ওই তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করার অনুরোধ জানানো হয়েছে। নোবেল জয় ছাড়াও আমেরিকার প্রেসিডেন্টের অর্থনৈতিক উপদেষ্টামণ্ডলীর চেয়ারম্যান, বিশ্বব্যাঙ্কের প্রধান অর্থনীতিবিদের মতো নানা দায়িত্ব সামলেছেন স্টিগলিৎজ়। স্বাভাবিক ভাবেই এই বিতর্কে তিনি অর্মত্যের পাশে দাঁড়ানোয় আলোড়ন তৈরি হয়েছে। সুদীপ্ত জানান, তাঁকে লেখা একটি ই-মেলে অমিয়কুমারও বলেছেন, যে-সরকার বর্তমান উপাচার্যকে নিয়োগ করেছে, তারা চায়, অমর্ত্য সেন যেন হয়রানির শিকার হন। কারণ, তিনি দীর্ঘদিন ধরে আরএসএস এবং বিজেপির বিভিন্ন কাজের সমালোচক। সুদীপ্ত বলেন, “স্টিগলিৎজ় ও একারলফের মতো দুই নোবেলজয়ী-সহ দেশ-বিদেশের গণ্যমান্য ব্যক্তিরা অমর্ত্যের পাশে দাঁড়ানোয় আমরা খুশি। আশা করছি, রাষ্ট্রপতি এই উপাচার্যের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবেন।” এ বিষয়ে বিশ্বভারতীর প্রতিক্রিয়া মেলেনি।a

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)

অন্য বিষয়গুলি:

Amartya Sen Joseph Stiglitz Shantiniketan
সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের মাধ্যমগুলি:
Advertisement

Share this article

CLOSE