Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

১৭ জানুয়ারি ২০২২ ই-পেপার

স্কার্টে না বলিনি, বিপাকে পড়ে ব্যাখ্যা দিলেন মহেশ

সংবাদ সংস্থা
নয়াদিল্লি ৩০ অগস্ট ২০১৬ ০৩:৫৬

বিদেশিনিদের পোশাক বিধি নিয়ে মুখ খুলে বিতর্কে জড়িয়েছিলেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী। এ বার সেই বিতর্ক সামাল দিতে বিষয়টি নিয়ে নতুন ব্যাখ্যা দিলেন কেন্দ্রীয় সংস্কৃতি ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী মহেশ শর্মা। জানালেন, কোনও পোশাক নিয়ে তিনি নিষেধাজ্ঞা জারি করেননি। সম্পূর্ণ ভুল ব্যাখ্যা হয়েছে তাঁর মন্তব্যের।

কাল আগরায় এক ঝাঁক সাংবাদিকের সামনে বিদেশি পর্যটকদের সুরক্ষা নিয়ে কথা বলছিলেন মন্ত্রী মহেশ শর্মা। সেখানেই তিনি জানান বিদেশি পর্যটকদের জন্য বিমানবন্দরেই একটি ‘ওয়েলকাম কিট’ দেওয়ার কথা ভাবা হচ্ছে। তার মধ্যে থাকবে একটি কার্ড। ভারতে থাকার সময় বিদেশিদের কী কী করণীয় এবং কী কী নয়, সে বিষয়ে একটি তালিকা থাকবে সেখানে। ব্যাখ্যা দিতে গিয়ে মন্ত্রী আরও বলেন, ‘‘এই যেমন ছোটখাটো শহরের ক্ষেত্রে বেশি রাত করে বাইরে না থাকাটাই ভাল। স্কার্ট পরাটাও উচিত নয়।’’ মহেশের এই মন্তব্যের পরেই বিতর্কের ঝড় ওঠে।

দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরীবাল মহেশের বিরুদ্ধে তোপ দেগে টুইট করেন। লেখেন, ‘‘বৈদিক যুগেও মেয়েদের পছন্দের পোশাক পরার স্বাধীনতা মোদী জমানার থেকে বেশি ছিল।’’ মহেশের মন্তব্যের কড়া সমালোচনা করেন কংগ্রেস নেতা মণীশ তিওয়ারিও। দিল্লির মহিলা কমিশনের প্রধান স্বাতী মালিওয়াল বলেন, ‘‘সরকারের মানসিকতা কতটা অসহনীয়, এটা তারই প্রমাণ। এখানেই শেষ নয়। আজ সকালে বিভিন্ন সংবাদমাধ্যম থেকে শুরু করে সোশ্যাল মিডিয়া— সর্বত্রই মহেশের মন্তব্য নিয়ে সমালোচনা শুরু হয়। আর তার পরই ‘ড্যামেজ কন্ট্রোলের’ চেষ্টায় নামেন ৫৫ বছরের মন্ত্রী। তাঁর ব্যাখ্যা, ‘‘ভারত তো বিবিধ সংস্কৃতির দেশ। ১০০ কিলোমিটারের মধ্যে লোকজনের পোশাক বিধি পাল্টাতে দেখা যায় এখানে। আমরা অতিথিকে ভগবানের আসনে বসাই। পোশাক নিয়ে এখানে কোনও নিষেধাজ্ঞার কথা ভাবাই যায় না। আমি শুধু পরামর্শ দিতে চেয়েছিলাম। এখানকার ধর্মস্থানে গেলে কী কী করা উচিত, সেটা নিয়ে। অনেক দেশই তো তাদের পর্যটকদের জন্য আচরণ-বিধি তৈরি করে রাখে।’’

Advertisement

এর আগেও মেয়েদের নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য করে সমালোচনার মুখে পড়তে হয়েছিল মহেশকে। কয়েক মাস আগে তিনি বলেছিলেন, ‘‘যে মেয়েরা রাতে বেরোতে চায়, ভারতে তাদের মেনে নেওয়া হয় না।’’ সে বারও যথেষ্ট হইচই হয়েছিল। মহেশ আজ আরও বলেছেন, ‘‘আমিও মেয়ের বাবা। মেয়েদের কী পরা উচিত, কী নয়, তা নিয়ে মোটেও আমি কিছু বলতে চাইনি। এর এক্তিয়ারও আমার নেই।’’

আরও পড়ুন

Advertisement