Advertisement
২২ মার্চ ২০২৩
National News

পাঁচতারা হোটেল, অবৈধ সুযোগ-সুবিধা কেন? মন্ত্রীদের ধমক মোদীর

নিজের মন্ত্রিসভার সদস্যদের সতর্ক করে দিলেন নরেন্দ্র মোদী। অনেক মন্ত্রীই সরকারি খরচে পাঁচতারা হোটেলে থাকছেন, অবৈধ ভাবে বিভিন্ন রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থার থেকে সুযোগ-সুবিধা নিচ্ছেন। এমনটা যেন না হয়, বার্তা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।

লোকসভা নির্বাচন ক্রমশ কাছে আসছে। এখন তাঁর মন্ত্রিসভার সদস্যদের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ উঠুক, এমনটা কিছুতেই চাইছেন না প্রধানমন্ত্রী। ছবি: পিটিআই।

লোকসভা নির্বাচন ক্রমশ কাছে আসছে। এখন তাঁর মন্ত্রিসভার সদস্যদের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ উঠুক, এমনটা কিছুতেই চাইছেন না প্রধানমন্ত্রী। ছবি: পিটিআই।

সংবাদ সংস্থা
নয়াদিল্লি শেষ আপডেট: ২০ অগস্ট ২০১৭ ১৪:৪৭
Share: Save:

সরকারি খরচে বিলাসিতার বিরুদ্ধে মন্ত্রীদের সতর্ক করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। সরকারি কাজে গিয়ে পাঁচতারা হোটেলে থা্কা বা বিভিন্ন ব্যক্তিগত কাজে রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থাগুলির গাড়ি ব্যবহার করা চলবে না, নিজের মন্ত্রিসভার সদস্যদের সম্প্রতি এমন বার্তাই দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। খবর সাউথ ব্লক সূত্রের। বুধবার কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার একটি বৈঠক বসেছিল। সেই বৈঠক শেষ হওয়ার পরই নিজের মন্ত্রীদের মোদী সতর্ক করেছেন বলে খবর। কোনও রকম দুর্নীতি বরদাস্ত করা হবে না বলেও তিনি বার্তা দিয়েছেন।

Advertisement

কেন্দ্রীয় মন্ত্রীদের অনেকেই সরকারি সফরে গিয়ে আজকাল সরকারি বাংলো বা সরকারি ব্যবস্থাপনা ব্যবহার করছেন না। তাঁরা পাঁচতারা হোটেলে থাকছেন। এমন খবরই তিনি পেয়েছেন বলে মন্ত্রীদের জানান প্রধানমন্ত্রী। তিনি যে এতে অত্যন্ত অসন্তুষ্ট, তাও প্রধানমন্ত্রী বুঝিয়ে দেন। বেশ কয়েক জন মন্ত্রী নিজেদের মন্ত্রকের অধীনে থাকা রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থাগুলির গাড়ি নিজের কাজে বা পারিবারিক কাজে ব্যবহার করছেন, সংস্থাগুলি থেকে নানা সুযোগ-সুবিধা নিচ্ছেন। এমন অভিযোগও তিনি পেয়েছেন বলে মোদী জানান। এ রকমটা তিনি চলতে দেবে না বলে মোদী স্পষ্ট বার্তা দেন।

আরও পড়ুন: চলতি মাসেই কি মন্ত্রী বদল!

প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ, সরকারি সফরে গিয়ে সরকারি পরিকাঠামোই ব্যবহার করতে হবে, সরকারি খরচে পাঁচতারা হোটেলে থাকা চলবে না। রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থাগুলি থেকে মন্ত্রীরা গাড়ি বা অন্য কোনও সুযোগ-সুবিধা নিতে পারবেন না।

Advertisement

আরও পড়ুন: দায় কার? রেলের মধ্যেই চলছে দোষারোপ, পাল্টা দোষারোপ

স্বচ্ছতা তথা দুর্নীতিমুক্ত প্রশাসনের প্রতিশ্রুতি দিয়ে ক্ষমতায় এসেছিল বিজেপি। সেই বিপুল জয়ের সুবাদেই প্রধানমন্ত্রী পদে বসেছেন নরেন্দ্র মোদী। কার্যকালের তিন বছর ইতিমধ্যেই অতিক্রান্ত। দু’বছর পর ফের নির্বাচনের মুখোমুখি হবে দেশ। এই দু’বছরে মন্ত্রীদের বিরুদ্ধে কোনও দুর্নীতির অভিযোগ উঠুক, এমনটা তিনি চান না বলে প্রধানমন্ত্রী বার্তা দিয়েছেন। দুর্নীতির আভাস মিললে কাউকেই যে রেয়াত করা হবে না, সে বার্তাও প্রধানমন্ত্রী দিয়েছেন বলে খবর।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.