Advertisement
২৮ জানুয়ারি ২০২৩

নর্মদা বাঁধ নিয়ে বিদ্ধ বিশ্ব ব্যাঙ্কও

জন্মদিনে গুজরাতে সর্দার সরোবর বাঁধ উদ্বোধন করে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এ দিন বলেন, ‘‘বিশ্বে এমন কোনও শক্তি নেই, যারা এই বাঁধ নির্মাণে প্রতিবন্ধকতা তৈরি করেনি! পরিবেশের নামে বিশ্ব ব্যাঙ্ক আর্থিক সাহায্য করেনি। ঢের ষড়যন্ত্র হয়েছে। যারা করেছে, তাদের তালিকা আছে।

নরেন্দ্র মোদী।

নরেন্দ্র মোদী।

নিজস্ব সংবাদদাতা
নয়াদিল্লি শেষ আপডেট: ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৭ ০৩:৫৯
Share: Save:

প্রধানমন্ত্রী হিসেবে বিদেশ সফরে গিয়ে বেনজির আক্রমণ করেছিলেন প্রধান বিরোধী দল কংগ্রেসকে। এ বারে রাজনৈতিক মঞ্চে দাঁড়িয়ে নিশানা করে বসলেন বিশ্ব ব্যাঙ্কের মতো প্রতিষ্ঠানকেও।

Advertisement

জন্মদিনে গুজরাতে সর্দার সরোবর বাঁধ উদ্বোধন করে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এ দিন বলেন, ‘‘বিশ্বে এমন কোনও শক্তি নেই, যারা এই বাঁধ নির্মাণে প্রতিবন্ধকতা তৈরি করেনি! পরিবেশের নামে বিশ্ব ব্যাঙ্ক আর্থিক সাহায্য করেনি। ঢের ষড়যন্ত্র হয়েছে। যারা করেছে, তাদের তালিকা আছে। তবু এ নিয়ে রাজনীতি করব না। বিশ্বব্যাঙ্কের সাহায্য ছাড়াই আজ আমরা বাঁধ বানিয়ে দেখিয়ে দিয়েছি। গুজরাতের সাধুরাও মন্দির থেকে অর্থ দিয়েছেন। ভারতবাসী চাইলে গোটা দুনিয়াকে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে
জিততে পারে।’’

রাজনৈতিক মঞ্চ থেকে বিশ্ব ব্যাঙ্ককে এমন জোরালো আক্রমণের কারণ কী?

সম্প্রতি ‘ইজ অফ ডুয়িং বিজনেস’ নিয়ে বিশ্ব ব্যাঙ্কের তালিকায় ভারতের মান এক ধাপ বেড়েছে মাত্র। তাতে মোদী জমানার উন্নয়নের ফানুস ফেটে গেছে বলে তোপ দাগছেন বিরোধীরা। সে কারণেই মোদীর এমন মন্তব্য বলে ধারণা অনেকের। এতে ভবিষ্যতে সমস্যা হবে না? অর্থ মন্ত্রকের একাংশ সেই আশঙ্কা উড়িয়ে দিয়েছেন।

Advertisement

কংগ্রেসের এক নেতার কথায়, ‘‘রাহুল গাঁধী ক’দিন আগে বলেছিলেন, প্রধানমন্ত্রী একই সঙ্গে ৩-৪টি ভিন্ন গোষ্ঠীকে ভিন্ন বার্তা দিতে পারেন।’’ এ দিন মোদী বিশ্ব ব্যাঙ্ককে দুষে আসলে বিঁধলেন বামপন্থী এবং পরিবেশবিদদেরও। প্রায় ৫০ বছর আগে শুরু হয় নর্মদা বাঁধ প্রকল্প। প্রথম থেকেই পরিবেশ ও কয়েক লক্ষ মানুষের জীবন-জীবিকার প্রশ্ন তুলে এই বাঁধের তীব্র বিরোধিতা করেছিলেন পরিবেশ-কর্মী, অর্থনীতিবিদ এবং বামপন্থীরা। নোয়ম চমস্কির মতো চিন্তাবিদও এর বিরোধিতা করেছেন। সব যুক্তি মেনেই বিশ্ব ব্যাঙ্ক এই প্রকল্প থেকে সরে দাঁড়ায়।

মন্দির থেকে অর্থ সংগ্রহের কথা বলে গেরুয়া শিবিরকেও এ দিন খুশি করেছেন মোদী। পাশাপাশি বিশ্ব ব্যাঙ্কের টাকা ছাড়াই প্রকল্প হওয়ার কথা বলে খুশি করলেন সঙ্ঘের স্বদেশি জাগরণ মঞ্চের মতো গোষ্ঠীগুলিকেও যারা নিজেদের অর্থনৈতিক জাতীয়তাবাদের প্রবক্তা বলে দাবি করে।

কংগ্রেসের রণদীপ সিংহ সুরজেওয়ালা বলেন, ‘‘নর্মদা বাঁধ নিয়ে অনেক দুর্নীতির কথা খোদ সিএজি বলেছে। ভোটের আগে কংগ্রেসের উদ্যোগকে খাটো করে দেখিয়ে প্রধানমন্ত্রী আসলে দুর্নীতিগ্রস্তদেরই আড়াল করতে চাইছেন।’’

দুনিয়া জুড়ে বড় বাঁধ নির্মাণে আর্থিক সাহায্য করে বিশ্বব্যাঙ্ক। নর্মদা বাঁধের ক্ষেত্রে অভিযোগ ওঠে, যত মানুষ লাভবান হবেন, তার থেকে বেশি মানুষের জীবন-জীবিকা ধ্বংস হবে। তা ছাড়া পরিবেশবিদদের অভিযোগ, বড় বাঁধ শুধু যে নদী, পরিবেশ এবং বাস্তুতন্ত্রের সর্বনাশ করে তা-ই নয়। বিপুল পরিমাণ গ্রিন হাউস গ্যাস তৈরি করে উষ্ণায়নও বাড়ায়। সে কারণে গত তিন দশকে আমেরিকায় প্রায় ১০০০ বাঁধ উড়িয়ে দিয়ে বাঁচানো হয়েছে একাধিক নদী।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.