Advertisement
২৫ জুলাই ২০২৪
Praful Patel

কংগ্রেসকে সমর্থন কিনা সিদ্ধান্তই নেয়নি এনসিপি

গুজরাত বিধানসভায় আসন সংখ্যা ১৮২। ছয় কংগ্রেস বিধায়ক পদত্যাগের পরে ভোট দেবেন ১৭৬ জন। তার মধ্যে বিজেপির ১২১ জন, কংগ্রেসের ৫১ জন, এনসিপি-র ২, জেডিইউ-এর ১ ও নির্দল ১ জন। হিসেব বলছে, জিততে হলে ৪৫ জন বিধায়কের প্রথম পছন্দের ভোট চাই আহমেদের।

প্রফুল্ল পটেল।— ফাইল চিত্র।

প্রফুল্ল পটেল।— ফাইল চিত্র।

সংবাদ সংস্থা
আমদাবাদ শেষ আপডেট: ০৭ অগস্ট ২০১৭ ১৪:১১
Share: Save:

রাজ্যসভা ভোটে গুজরাত কংগ্রেসের দুশ্চিন্তার মেঘ আরও ঘনীভূত হল। বিজেপি-র পর এ বার তাদের চিন্তা বাড়ল এক সময়ের জোটসঙ্গী এনসিপি।

কারণ, রবিবার এনসিপি নেতা প্রফুল্ল পটেল জানান, গুজরাত রাজ্যসভা ভোটে কোন দলকে তাঁরা সমর্থন করবেন, সে বিষয়ে এখনও কোনও সিদ্ধান্ত নেয়নি দল। গুজরাতের দায়িত্বপ্রাপ্ত এই এনসিপি নেতার কথায়, ‘‘পরিস্থিতির গুরুত্ব বিচার করেই রাজ্যসভা ভোটে সমর্থনের বিষয়টিতে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।’’

আরও পড়ুন: গুজরাত ফিরেও ফের রিসর্ট ‘বন্দি’ কংগ্রেস বিধায়করা

গুজরাতে তিনটি রাজ্যসভা আসনের জন্য নির্বাচন আগামী কাল মঙ্গলবার। বিজেপি তিনটি আসনেই প্রার্থী দিয়েছে। প্রথম দুই প্রার্থী অমিত শাহ এবং স্মৃতি ইরানির জয় নিশ্চিত। তৃতীয় আসনে বিজেপি-র প্রার্থী সদ্য কংগ্রেস ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেওয়া বলবন্তসিন রাজপুত। তিনি সনিয়া গাঁধীর রাজনৈতিক সচিব তথা কংগ্রেস প্রার্থী আহমেদ পটেলকে জোর টক্করের মুখে ফেলে দিয়েছেন। গুজরাত বিধানসভায় কংগ্রেসের আসন সংখ্যা যত, তাতে রাজ্যসভা নির্বাচনে তিনটির মধ্যে একটি আসনে অনায়াসে জেতার কথা কংগ্রেসের।

আরও পড়ুন: মমতাকে দিল্লি ডাক সনিয়ার

কারণ, গুজরাত বিধানসভায় আসন সংখ্যা ১৮২। ছয় কংগ্রেস বিধায়ক পদত্যাগের পরে ভোট দেবেন ১৭৬ জন। তার মধ্যে বিজেপির ১২১ জন, কংগ্রেসের ৫১ জন, এনসিপি-র ২, জেডিইউ-এর ১ ও নির্দল ১ জন। হিসেব বলছে, জিততে হলে ৪৫ জন বিধায়কের প্রথম পছন্দের ভোট চাই আহমেদের। (১৭৬টি ভোট ÷ প্রার্থী সংখ্যা (৪) + ১ = ৪৫) ফলে তাঁর দুশ্চিন্তা থাকার কথা নয়। কিন্তু, রাজ্যসভা নির্বাচনের আগে গুজরাতের সবচেয়ে প্রভাবশালী কংগ্রেস নেতা শঙ্করসিন বাঘেলা বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন। তার পরই কংগ্রেসে বড়সড় ভাঙন ধরে। কংগ্রেসের আশঙ্কা, বেশ কয়েকজন দলীয় বিধায়ক তলায় তলায় বিজেপির সঙ্গে যোগাযোগ রেখে চলেছেন। যে কোনও মুহূর্তে তারা দলও ছাড়তে পারেন। এই পরিস্থিতিতে পুরনো শরিক এনসিপিকে পাশে পাওয়া গেল, কিছুটা নিশ্চিত থাকতে পারতেন কংগ্রেস নেতারা।

আরও পড়ুন: যোগীর পথে নীতীশ, ‘অবৈধ’ কষাইখানা বন্ধে বিহারেও অভিযান

এত দিন সেই চেষ্টাই চালাচ্ছিলেন কংগ্রেস নেতারা। কিন্তু, পটেলের মন্তব্য সেই প্রচেষ্টাকে ধাক্কা দিল বলে মনে করা হচ্ছে।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)
সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের মাধ্যমগুলি:
Advertisement

Share this article

CLOSE